প্রবন্ধ এক ধরনের শিল্পকর্ম। প্রবন্ধ শব্দটির ব্যুৎপত্তিগত অর্থ প্রকৃষ্ট বন্ধন বা শ্রেষ্ঠ বন্ধন। সাধারণত কোনো বিষয়ের সুস্পষ্ট ধারণা ও এর যথাযথ প্রকাশই প্রবন্ধ বা রচনা। অর্থাৎ, সুন্দর, সঠিক ও পরিষ্কারভাবে মনের ভাবনাকে বিষয়ভিত্তিক ভাবধারায় বর্ণনা করার নামই প্রবন্ধ বা রচনা। কোনো বিষয়ে সুন্দর ও সঠিকভাবে মনের ভাব প্রকাশ করে পরিচ্ছন্ন চিন্তা ভাবধারার মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করাই প্রবন্ধ বা রচনার মূল লক্ষ্য। সহজ, সরল ও সাবলীল ভাষা প্রয়োগের ওপরই নির্ভর করে প্রবন্ধ রচনার সার্থকতা।

প্রবন্ধ লেখার সময় নিচের বিষয়ের প্রতি বিশেষ লক্ষ রাখতে হবে :

১. সহজে বোঝা যায় এমনভাবে প্রবন্ধ লিখতে হবে।

২. ব্যাকরণগত কোনো ভুল যেন না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৩. বানানের প্রতি খেয়াল অবশ্যই রাখতে হবে।

৪. একই কথার পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৫. প্রয়োজনে উদাহরণ সন্নিবেশ করা যাবে।

৬. সাধু অথবা চলতি যেকোনো একটি ভাষা প্রয়োগ করতে হবে, সাধু ও চলতি মিশ্রণ দূষণীয়।

৭. ভাষা সহজ, সরল ও প্রাঞ্জল হতে হবে।

প্রবন্ধের শ্রেণিবিভাগ

১. বর্ণনামূলক

  • প্রাণী-সংক্রান্ত
  • স্থান-সংক্রান্ত
  • বস্তু-সংক্রান্ত

 

২. বৃত্তান্তমূলক

  • ঐতিহাসিক
  • জীবনচরিত
  • ভ্রমণবৃত্তান্ত

 

৩. চিন্তামূলক

  • নীতি-সংক্রান্ত
  • ধর্ম-সংক্রান্ত
  • গুণ-সংক্রান্ত

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x