Class 6 - Bangla
1 min read

পাখির কাছে ফুলের কাছে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর (PDF)

পাখির কাছে ফুলের কাছে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর : এই কবিতার মধ্যে কবির নিসর্গপ্রেম গভীর মমত্বের সঙ্গে ফুটে উঠেছে। কবি প্রকৃতির বিচিত্র সৌন্দর্যের কাছে যেতে চান, তাদের সঙ্গে মিশে যেতে চান । প্রকৃতি যেন মানুষের পরম আত্মীয়, সখা। কবি মনোরম সেই প্রকৃতির আহ্বান শুনতে পান। জড় প্রকৃতি আর জীব-প্রকৃতির মধ্যে নিবিড় যে সম্পর্ক কবি সেই সম্পর্কের আনন্দ অনুভব করেন। আর তাঁর ছড়া-কবিতার খাতা ভরে ওঠে প্রকৃতির সৌন্দর্য ও আনন্দের পঙ্ক্তিমালায়।

পাখির কাছে ফুলের কাছে কবিতার সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : একটি টিভি চ্যানেল ‘জীবন ও প্রকৃতি’ নামে একটি অনুষ্ঠান প্রচার করে। অনুষ্ঠানটিতে প্রকৃতির বিচিত্র রূপ, পাহাড়ি দৃশ্য, ঝর্নার গতিময় ছন্দ, ফুল ও প্রজাপতির মিলনমেলা, বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা, বনে জীবজন্তুর অবাধ বিচরণ, বিভিন্ন কীটপতঙ্গের বিচরণ, নদনদীর ছন্দময় গতি ইত্যাদি দেখানো হয়। শর্মিলী তার বাবার কাছে প্রশ্ন করল, ‘জীবন ও প্রকৃতি’ নামে টেলিভিশনে যে অনুষ্ঠানটি প্রচার করছে তাতে আমাদের শিক্ষণীয় কী? বাবা বললেন, এদের সহাবস্থানের মধ্য দিয়ে প্রকৃতি পূর্ণতা পায়। এককথায় বলা যায়, এরা একে অপরের পরিপূরক।

ক. কবি আল মাহমুদ কত সালে জন্মগ্রহণ করেন?
খ. কবি ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতায় নিসর্গ-প্রেম বলতে কী বুঝিয়েছেন?
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত অনুষ্ঠানটি কোন অর্থে তোমার পঠিত ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার প্রতিচ্ছবি?— ব্যাখ্যা করো।
ঘ. শর্মিলীর বাবার সর্বশেষ উক্তিটির যথার্থতা ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার আলোকে বিশ্লেষণ করো।

প্রশ্নের উত্তর

ক. কবি আল মাহমুদ ১৯৩৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন।

খ. ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতায় নিসর্গ-প্রেম বলতে প্রকৃতির বিচিত্র সৌন্দর্যের প্রতি কবির ভালোবাসার কথা বুঝিয়েছেন।
বাংলাদেশের লোকজ জীবন ও পল্লি-প্রকৃতির আধারে ঢাকা পল্লির স্নিগ্ধ শ্যামল রূপ কবির কাছে যেন এক বিচিত্র সৌন্দর্যের উৎস। কী দিন, কী রাত— পাহাড়, পর্বত, নদী, সাগর, রাতের জোনাকি পোকা সব মিলে প্রকৃতির যে সৌন্দর্যের প্রতি কবি দুর্বল তা-ই নিসর্গ-প্রেম।

গ. জীবন ও প্রকৃতির বিচিত্র ছবি চিত্রায়িত করার মধ্য দিয়ে উদ্দীপকে বর্ণিত অনুষ্ঠানটি ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার প্রতিচ্ছবি হয়ে উঠেছে। প্রকৃতির বিচিত্র রূপ, পাহাড়ি দৃশ্য, ঝর্নার গতিধারা, ফুল প্রজাপতির মিলনমেলা উভয় স্থানে বিদ্যমান। কবি যেন প্রকৃতির এই বিচিত্র সৌন্দর্যের কাছেই যেতে চান।

উদ্দীপকে প্রকৃতির বিচিত্র সৌন্দর্যের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। আলোচ্য কবিতার কবি যেমন প্রকৃতির সৌন্দর্যের কাছে যেতে চান, তেমনি উদ্দীপকের কবিও নিসর্গের হৃদয় ধরে টেনে আনতে চান একটি চ্যানেলেরবপ্রদত্ত অনুষ্ঠানটি। তাই প্রকৃতির সৌন্দর্যের সাথে নিসর্গের যে সম্পর্ক সেই সম্পর্কের আবেদন উদ্দীপক ও কবিতার মধ্যে প্রতিচ্ছবি হিসেবে প্রকাশ পেয়েছে।

ঘ. কবি আল মাহমুদের ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতায় প্রকৃতি ও মানুষকে একে অপরের সখা ও পরম আত্মীয় বলা উদ্দীপকের শর্মিলীর বাবার উক্তিতেও প্রতীয়মান হয়। হয়েছে, যা ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার মধ্যে নিসর্গ-প্রেমের সহজাত অবস্থান দেখানো হয়েছে। প্রকৃতির চিরশোভা কবির হৃদয়কে করেছে আন্দোলিত; প্রাণের মাঝে কবি মানুষ ও প্রকৃতির কাছাকাছি অবস্থান দেখেছেন।

উদ্দীপকের শর্মিলীর বাবা বলেছেন, প্রকৃতি ও জীবন একে অপরের পরিপূরক। প্রকৃতি জীবনকে করে সৌন্দর্যমণ্ডিত ও গতিশীল। চারিদিক শোভায় পরিপূর্ণ করে প্রাণিকূলে আনে নব আনন্দ। সেখানে মানুষ যেন প্রকৃতিরই বিরাট এক অংশ, কাছের আত্মীয়, পরম সখা।

প্রকৃতি সবসময় জীবনকে বৈচিত্র্যমণ্ডিত করে। আর এই বৈচিত্র্যময় প্রকৃতির ছোঁয়ায় জীবনের নতুন পথ চলা শুরু হয়। প্রকৃতি ছাড়া জীবন যেমন অচল তেমনি জীবনই প্রকৃতিকে করে তোলে সৌন্দর্যময়। তাই বলা যায়, সহাবস্থানের ফলেই জীবন ও প্রকৃতি এরা একে অপরের পরিপূরক।

নিজে অনুশীলন করো

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : ঈদের পর রত্না বান্দরবান বেড়াতে এসে মামার সাথে গেল ঝরনা দেখতে। একনাগাড়ে ঝরনার পানি পড়ার শব্দে রত্না এতই বিমোহিত হয়েছে যে, ঘরে এসে ঝরনার ওপর একটি ছড়া লিখে ফেলল।

ক. ‘মিনার’ শব্দের অর্থ কী?
খ. কবি ছিটকিনি খুলে ঘর থেকে বেরিয়ে এলেন কেন?
গ. উদ্দীপকে ঝরনা দেখে রত্নার ছড়া লেখার সাথে কবি আল মাহমুদের ছড়া লেখার বিষয়ে মিল ও অমিল বর্ণনা করো।
ঘ. উদ্দীপকের বক্তব্য ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার ভাবকে কতটুকু ধারণ করে তা বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ :
এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে— সবচেয়ে সুন্দর করুণ;
সেখানে সবুজ ডাঙা ভ’রে আছে মধুকূপী ঘাসে অবিরল;
সেখানে গাছের নাম: কাঁঠাল, অশ্বত্থ, বট, জারুল, হিজল;
সেখানে ভোরের মেঘে নাটার রঙের মতো জাগিয়ে অরুণ;

ক. ‘কলরব’ অর্থ কী?
খ. কবি কেন পাখির কাছে, ফুলের কাছে মনের কথা বলেছেন?
গ. উদ্দীপকের সাথে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার সাদৃশ্য দেখাও।
ঘ. “উদ্দীপক এবং আলোচ্য কবিতায় প্রকৃতির প্রেমের মধ্য দিয়ে দেশপ্রেম প্রধানরূপে প্রতীয়মান হয়ে উঠেছে”— মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : সমতল ভূমির বিশালতা, তার এক প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে সবুজাভ সুউচ্চ পাহাড়। পাহাড়ের গায়ে লুকোচুরি করছে সাদা সাদা মেঘ। বৃষ্টি হলে পাহাড় বেয়ে নেমে আসে পানি। চিকচিক করে সূর্যের আভা। অনতিদূরে হাওর। হাওরের বুকে নানা জাতের মাছ, পাখি ডুবো খেলা খেলে।

ক. পাহাড়ের গায়ে হাত বুলায় কে?
খ. ঝিমধরা এই মস্ত শহর। – ব্যাখ্যা করো।
গ. উদ্দীপকে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার যে দিকটি ফুটে উঠেছে তা ব্যাখ্যা করো।
ঘ. “উদ্দীপক ও ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতায় প্রকৃতিপ্রেমেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।” মূল্যায়ন করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : রিমন রাঙামাটি ঘুরতে গিয়ে প্রকৃতির এক অপরূপ সৌন্দর্য অনুভব করল । সে রাঙামাটির ঝুলন্ত ব্রিজ এবং পাহাড়ের বিভিন্ন সৌন্দর্য অবলোকন করল। সে প্রকৃতির বিভিন্ন সৌন্দর্য ও লেক দেখে এর মধ্যে মিশে যেতে চাইল। রিমন বুঝতে পারল যান্ত্রিক সৌন্দর্যের চেয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনেক বেশি সুন্দর।

ক. ‘সোনালী কাবিন’ কাব্যগ্রন্থটি কার লেখা?
খ. ‘ডাবের মতো চাঁদ’ বলতে কবি কী বুঝিয়েছেন?
গ. উদ্দীপকের সাথে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার কী কী সাদৃশ্য রয়েছে?
ঘ. “রিমন বুঝতে পারল যান্ত্রিক সভ্যতার সৌন্দর্যের চেয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনেক বেশি সুন্দর।” উদ্দীপকের উক্তিটি ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার আলোকে বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : রাতুল পূর্ণিমার রাতে আকাশের দিকে তাকিয়ে চাঁদ দেখছিল। তার কাছে চাঁদের স্বচ্ছ আলোয় চারিদিক কেমন যেন মায়াময় মনে হচ্ছিল। রাতের বেলাও দু একটা পাখি মাঝে মাঝে ডাক দিচ্ছিল। দূরের গাছপালাগুলোকে কেমন যেন অচেনা মনে হচ্ছিল। সেখানে দল বেঁধে জোনাকিরা উড়ে বেড়াচ্ছিল।

ক. দরবার শব্দটির অর্থ কী?
খ. দিঘির কথায় ফুল-পাখিরা কলরব জুড়ল কেন?
গ. উদ্দীপকে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার কোন দিকটি ফুটে উঠেছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকের রাতুলের দেখা পরিবেশের আলোকে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার মূল বক্তব্য বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : শিমুর লেখা সকল কবিতা শহুরে জীবন ও পরিবেশকে ঘিরে। একবার গ্রামে বেড়াতে গেলে গ্রামীণ পরিবেশে রাতের বেলায় জোনাকির আলো, বাঁশবাগানের ফাঁক দিয়ে উঁকি দেওয়া চাঁদ, দিঘির জলে মৃদু ঢেউয়ের ছন্দ তাকে মুগ্ধ করে। সে কবিতা লিখতে বসে পড়ে, যে কবিতার প্রতিটি চরণে ফুটে উঠেছে প্রকৃতির অপরূপ শোভা।

ক. কবি আল মাহমুদ কত খ্রিষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন?
খ. ‘ডাবের মতো চাঁদ বলতে কবি কী বুঝিয়েছেন?
গ. উদ্দীপকে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার কোন দিকটি প্রতিফলিত হয়েছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. ‘উদ্দীপকটি ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার মূলভাবকে তুলে ধরে’ -বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৮ : ডিসকভারি চ্যানেলে প্রকৃতির বিচিত্র রূপ,পাহাড়ি দৃশ্য, ঝর্ণার গতিময় ছন্দ, ফুল ও প্রজাপতির মিলন মেলা, বিভিনড়ব প্রজাতির গাছপালা, জীবজন্তুর বনে অবাধ বিচরণ, নদ-নদীর ছন্দময় গতি ইত্যাদি দেখানো হয়। রাহাত তার মামার কাছে প্রশ্ন করল, এই অনুষ্ঠানগুলো থেকে আমাদের শিক্ষনীয় কী? মামা বললেন, এদের সহাবন্থানের মধ্য দিয়ে প্রকৃতি পূর্ণতা পায়। এরাই আমাদের বাঁচিয়ে রাখে।

ক. ‘চৌকিদার’ শব্দের অর্থ কী?
খ. ‘আমরা সবাই না ঘুমানোর দল’- এখানে না ঘুমানোর দল বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে?
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত অনুষ্ঠানটির সাথে ‘পাখির কাছে ফুলের কাছে’ কবিতার সাদৃশ্য ব্যাখ্যা কর।
ঘ. ‘এদের সহাবন্থানের মধ্য দিয়ে প্রকৃতি পূর্ণতা পায়। এরাই আমাদের বাঁচিয়ে রাখে।’ উক্তিটির যথার্থতা বিশ্লেষণ কর।

ANSWER SHEET

উপরে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে এই প্রশ্নের উত্তরগুলো ডাউনলোড করে নাও।

Rate this post