Health
1 min read

জয়তুন তেলের উপকারিতা, জয়তুন তেল কোথায় পাওয়া যায়

জয়তুন তেলের উপকারিতা

আজকে আমরা জানবো জয়তুন তেলের উপকারিতা প্রতিদিন খাবারে দুই চামচ করে জয়তুন তেল খেলে ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমায়।উপকারী এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায়। এছাড়া নিয়মিত খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমে যায় গোসলের সময় 1 থেকে 4 চা চামচ গোসলের পানিতে জয়তুন তেল দিলে শরীরের শিথিলতা পাওয়া যায়। এছাড়া ব্যাথানাশক হিসেবে জয়তুন তেল আরো বিশেষ ভূমিকা রাখে।

জয়তুন তেলের উপকারিত জয়তুন তেল খাওয়ার নিয়ম ও এর ব্যবহার;

জয়তুন  এর পাতাকে শান্তির প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং শরীরের শান্তির দূত হিসেবে জয়তুনের তেল ব্যবহার করা হয়।

আরবিতে জয়তুন কে তরল সোনা নামে ডাকা হয় ।জয়তুন ফল গাছ 8 থেকে 10 মিটার উচ্চতায় লম্বা হয়ে থাকে এর পাতা উচ্চতায় তার থেকে 10 সেমি লম্বা এবং প্রশস্ততা 1 থেকে 3 সেমি প্রশস্ত হয়ে থাকে। জয়তুন ফল আকারে ছোট হয় সাধারণত এক থেকে 2.5 সেমি লম্বা হয়ে থাকে।

এই গাছের ফলন ভূমধ্যসাগর অঞ্চলে বেশি হয়ে থাকে। জয়তুন তেলের কারণে হরমোন বহুগুণে বৃদ্ধি পায় । অনেকে আবার জলপাই আর জয়তুন কে একসাথে মিলিয়ে ফেলে কিন্তু জলপাই এর মধ্যে ভাল জাত জলপাই আছে তা থেকেই জয়তুন তেল তৈরি হয়।জয়তুন আর জলপাই দেখতে একই রকম হলেও একই রকম না মুসলমানদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল-কোরআন এই  জয়তুন ফলের কথা বলা হয়েছে ।

 

আসুন জেনে নেই,জয়তুন তেলের উপকারিতা; জয়তুন তেলের রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই। যাদের ভিটামিন এর অভাব রয়েছে তারা জয়তুন তেল খেতে পারেন।

জয়তুনের তেলে র আইসি এন্টিঅক্সিডেন্ট যা আমাদের রক্তে কোলেস্টরলের পরিমাণ কমিয়ে দেয় রক্তে কোলেস্টেরল দূর করে । আমাদের রক্তচাপ কমিয়ে দেয় তাই উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ রাখতে জয়তুন তেল খেতে হবে।

জয়তুন তেল রক্তশূন্যতা রোধে বিশেষ ভাবে কাজ করে। সাধারণত মেয়েদের এই সমস্যাটা বেশি দেখা দেয় নিয়মিত সেবন করলে তাড়াতাড়ি ফলাফল পাওয়া যায়।

বিভিন্ন ধরনের টিউমার রগ ফুলে যাওয়া কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দাঁতের ক্যাভিটি এমনকি ক্যান্সারের রোগসহ বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে জয়তুন তেল ব্যবহার করতে পারেন।

গর্ভবতী মেয়েরা গর্ভাবস্থায় নিয়মিত জয়তুন তেল দিয়ে শরীরে মালিশ কর্তে পারেন এতে বাচ্চাদের জন্মের দাগ পড়ে না।

এছাড়া বাচ্চা জন্মদানের পর মেয়েদের ত্বকে সাদা দাঁতের ছাপ পড়ে যায় জয়তুন তেল মালিশের ফলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

চুলের সৌন্দর্য বর্ধনে জয়তুন তেলের উপকারিতাঃ

চুলের সৌন্দর্য বর্ধন বিশেষ জয়তুন তেল হাতের তালু নিয়ে মাথা মেসেজ করলে উপকারিতা পাওয়া যায়।আসুন আরো জয়তুন তেলের উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নেই।প্রতিদিন খাবারের দুই চামচ করে জয়তুন তেল খেলে ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমায়। উপকারিতা এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায় ।এছাড়া নিয়মিত খেলে প্লম ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমে যায় গোসলের সময় এক থেকে চার চামচ গোসলের পানিতে জয়তুন তেল দিলে শরীরের শিথিলতা পাওয়া যায় এছাড়াও ব্যথানাশক হিসেবে আরও বিশেষ ভূমিকা রাখে।

জয়তুন তেলের দাম অনেক বেশি হয়ে থাকে এছাড়া চিকিৎসাশাস্ত্রে এই জয়তুন তেল ব্যবহার করা হয়। মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাহু সাল্লাম  জয়তুন তেল ব্যবহার করতেন।তাই এই তেলের আলাদা গুনাগুন রয়েছে।

জয়তুন তেলের উপকারিতাগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে হার্টের সুস্থ্যতা। এট হার্টের সুরক্ষায় কার্যকারী ভূমিকা পালন করে এছাড়া বিবাহিত জীবন যাপনে স্ত্রী-পুরুষ দুজনের যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধি ও প্রজনন প্রক্রিয়াতে বিশেষভাবে সাহায্য করে জয়তুন তেল।

জয়তুন তেলের উপকারিতা জয়তুন তেল নিয়মিত ব্যবহারের ফলে আমাদের শারীরিক সুস্থতা বহুগুণ বৃদ্ধি করে। এছাড়াও জয়তুন তেলের বিশেষ কিছু গুণাগুণ রয়েছে যা আমরা জানিনা। আমরা জয়তুন তেলের বিভিন্ন উপকারিতা সম্পর্কে জানতে পারলাম।

জয়তুন তেলের দাম বেশি চেষ্টা করুন তেল পরিমাণ মত না খেতে পারলে প্রসিত আকারে খাওয়ার ক্ষেত্রে শারীরিক বিভিন্ন উপকারিতা লাভ করা যায়।

জয়তুন তেলের উপকারিতা জয়তুন তেলের উপকারিতা সম্পর্কে আমরা কমবেশি সবাই জানি আবার অনেকেই জানিনা। জয়তুন ফলের যেমন উপকারিতা রয়েছে তেমনি জয়তুন তেলের উপকারিতা বলে শেষ করা যাবেনা। প্রকৃতিক উপাদানে ভরপুর জয়তুন তেল আমাদের জন্য খুবই উপকারী।

  • জয়তুন  আরবি নাম ;যাইতুন বাংলা নাম; জয়তুন
  • জয়তুন এর বৈজ্ঞানিক নাম;olea europea
  • জয়তুন এর ইংরেজি নাম; অলিভ olive

জয়তুন তেলের উপকারিতা সম্পর্কে কুরআন কি বলে

কুরআন শরীফের সূরা তীন এর 1 থেকে 5 নং আয়াতে বলা হয়েছে। আনজির ডুমুর ও জয়তুন এর সিনাই পর্বত এবং পবিত্র মক্কা নগরীর কথা একই সাথে উল্লেখ করা হয়েছে। ডুমুর ও জয়তুন সিনাই পর্বত এবং পবিত্র মক্কা নগরীর কথা এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। বিভিন্ন প্রকার তেলের মধ্যে জয়তুন তেল এক বিশেষ গুণ সম্পন্ন যুগে যুগে ঔষধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়ে আসছে বিভিন্ন প্রকার বিশেষ গুণ সম্পন্ন ভেষজ তেল  যুগে যুগে ঔষধ তৈরিতে ব্যবহার হয়ে আসছে খাদ্য হিসেবেও জয়তুন এর স্বাদ ও গন্ধে অতুলনীয়।

জয়তুন তেল চেনার উপায়

জয়তুন তেল চেনার উপায় অলিভ অয়েল এর ক্ষেত্রে ও আপনি করতে পারেন ফ্রিজ টেস্ট ।এক্ষেত্রে অলিভ অয়েল একটি পাত্রে নিয়ে দুই ঘন্টার জন্য ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। দুই ঘন্টা পরে যদি দেখেন অলিভ অয়েল জমে শক্ত হয়ে গেছে অথবা লিকুইড আসে, তাহলে আপনার অলিভ অয়েল টি খাঁটি নয় ।যদি দেখেন যে এটি হালকা জমে গেছে অথবা ঘন হয়ে গেছে তবে বুঝবেন আপনার তিনটি খাঁটি।

জয়তুন তেল কোথায় পাওয়া যায়

জয়তুন তেল কোথায় পাওয়া যায় এটি পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল উপকূল এলাকায় বিশেষ করে লেবানন সিরিয়া তুরস্কের সামুদ্রিক অঞ্চল ইরানের উত্তরাঞ্চল কাস্পিয়ান সাগরের দক্ষিনে ভালো জন্মে।ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের এর তেলের কারণে বহুগুণে বৃদ্ধি পেয়েছে ।

জয়তুন তেলের মালিশ প্রকৃতি আমাদের জন্য কী কী নিয়ামত রেখেছে তা আমরা অনেকেই কিন্তু জানিনা। মানুষ বেঁচে থাকার জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল। প্রকৃতিতে পাওয়া এমন বিস্ময়কর জিনিস যাদের উপকারিতার কথা বলে শেষ করা যাবে না ।এমন একটি উপকারী উপাদান হলো জয়তুন তেল।

জয়তুন তেল বিশেষ করে জয়তুন ফল থেকে পাওয়া যায় জয়তুনের তেল নিয়মিত মাথায় মালিশ করলে মাথার চুল পড়া কমে যায় এবং মাথা ঠান্ডা রাখে। জয়তুনের তেল নিয়মিত মুখে মালিশ করলে মুখের ব্রণ নির্মূল হয়।এমনকি গর্ভবতী মায়েদের জয়তুন তেল মালিশ করলে বাচ্চাদের গায়ে জন্মের দাগ পরে না। আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাহু সাল্লাম ব্যবহার করতেন তাই এই জয়তুন তেল এর বিশেষ কিছু উপকারিতা,রয়েছে যা আমরা জানি না আমরা নিয়মিত জয়তুন তেল ব্যবহার করার অভ্যাস করব।

ত্বকের যত্নে জয়তুন তেল জয়তুন তেলের উপকারিতা শরীরের বিভিন্ন ধরনের বলিরেখা দূর করতে বা শরীরের স্কিন সফট রাখতে জয়তুন তেলের উপকারিতা বিশেষ করে বাচ্চা প্রসবের পরে মায়েদের পেটের দাগ পড়ে। চামড়ায় বলিরেখা দেখা যায় তা একেবারে শরীর থেকে নির্মূল করতে আপনারা প্রতিদিন জয়তুন তেল মালিশ করুন।

জয়তুন তেলের দাম সাধারণত জয়তুন তেল সুপার কসমেটিকসের দোকানে পাবেন। আপনারা চাইলে অনলাইন সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে সংগ্রহ করতে পারেন ।পরিমাণের উপর এর দাম নির্ভর করে সাধারণত 250 থেকে 350 টাকার মধ্যে পাবেন।

জয়তুন তেল কিভাবে খেতে হয়

জয়তুন তেলের উপকারিতা প্রতিদিন খাবারে যদি দুই চামচ করে জয়তুন তেল খায় তাহলে ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমায়। আর উপকারী এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ায়। এছাড়া নিয়মিত খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমে যায়, গোসলের সময় 1 থেকে 4 চা চামচ গোসলের পানিতে জয়তুন তেল দিলে উপকারিতা পাওয়া যায়। এছাড়াও ব্যাথা নাশক হিসেবে আরও বিশেষ ভূমিকা রাখে, তাই আপনারা নিয়মিত জয়তুন তেল ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন আশা করি আপনারা ভাল ফলাফল পাবেন।

উপরুক্ত বিষয়গুলো থেকে আমরা বুঝতে পারলাম বা জানতে পারলাম জয়তুন তেল আমাদের সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত একটি প্রাকৃতিক  নিয়ামতের শুকরিয়া আমরা আদায় করব ইনশাল্লাহ।

Rate this post