Health

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম

1 min read
গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম

আসসালামু আলাইকুম আজকে আমরা আলোচনা করব গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম সমূহ।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম জানেন না  আজকে তাদের জন্যই আমাদের এই পোস্ট। আবার অনেকেই জানেন কিন্তু সঠিক নিয়ম জানেন না। তাই আজকে গর্ভকালীন মায়েদের উদ্দেশ্যেই আলোচনা করব।  গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম সমূহ।  গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম ইসলামে কি বলে । গর্ভাবস্থায় কত দিন সহবাস করা নিরাপদ ইত্যাদি ।সকল বিষয় সমুহ আজকের এই আলোচনা। 

 

আমাদের জীবনের প্রতিদিন চলার পথে অনেক প্রশ্ন মাথায় ঘুরপাক খায়। আমাদের মাথায় অনেক ধরনের প্রশ্নের উত্তর খুব সহজভাবে এবং সঠিকভাবে জানা থাকে কিন্তু প্রশ্নের উত্তর জানা কঠিন হয়। আবার অনেক সময় দেখা যায় যে লোকের সামনে লজ্জার ভয়ে জানার আগ্রহ হারিয়ে ফেলি।

আমাদেরকে মনে রাখতে হবে যে কোন প্রশ্ন হোক না কেন তার উত্তর সঠিক জানা এবং প্রশ্নের উত্তর জানা এতে লজ্জার কোনো ব্যাপার নেই। এখানে আরেকটি জিনিস খেয়াল রাখবেন সেটা হচ্ছে আপনি যদি কোন প্রশ্ন লজ্জা এবং ভয়ের জন্য জানার আগ্রহ না করেন তাহলে আপনি কিন্তু ভীষণ ভুল করবেন কারণ একটি প্রশ্নের উত্তর জানা খুবই জরুরী এবং যে কোন প্রশ্নের উত্তর জানা থাকা ভালো। তাই লজ্জা ভয় না করে প্রশ্নের উত্তর গুলো জেনে রাখুন। কারণ  কোন কোন কাজের জন্য আপনার এই প্রশ্নগুলো কাজে লাগতে পারে বলা যায় না । তবে আগে থেকেই প্রশ্ন উত্তর জানা ভালো।   তাই এখানে  লজ্জা ভয় কোনটাই করা উচিত নয় ।

আমাদের মহিলাদের মধ্যে গর্ভাবস্থায় এরকম বিভিন্ন ধরনের লজ্জাবোধ প্রশ্ন চলে আসে কিন্তু কেউ কারো সঙ্গে কখনো শেয়ার করি না এবং প্রশ্নের উত্তর গুলো জানার চেষ্টাও করিনা কিন্তু এতে করে আমাদের অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যায় ।তাই আমরা সবসময় চেষ্টা করব যেন গর্ভকালীন অবস্থায় যেগুলো সমস্যা সমাধান করার জন্য প্রশ্নের উত্তর গুলো আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে ।

আমাদের মধ্যে অনেকেরই এইরকম প্রশ্ন জাগে গর্ভাবস্থায় সহবাস বা সেক্স করলে অনাগত সন্তানের কোনো ক্ষতি হবে কিনা।  সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ কথা হচ্ছে আমরা নারীদের মনে বিভিন্ন ধরনের সন্দেহ ঘুরপাক খায়। যেমন গর্ভাবস্থায় সহবাস করা যাবে কিনা এরকম বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন তাদের মনে সন্দেহের তালিকা সৃষ্টি করে ফেলে।  তাই এই সন্দেহ দূর করার জন্য আপনাদের সঙ্গে আজকে আলোচনা করব গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম পদ্ধতি।

মহান আল্লাহ তা’আলা পবিত্র কুরআনে বলেছেন

তোমাদের স্ত্রীগণ তোমাদের শস্যক্ষেত্র। সুতরাং তোমরা তোমাদের শস্যক্ষেত্র যেভাবে ইচ্ছা সেভাবে বিচরণ করো।  সূরা বাকারা 223

এ আয়াত থেকে বোঝা যায় যে মুসলিম দম্পতিরা যখন ইচ্ছে তখন  যে ভাবে  ইচ্ছে  সেভাবে  যৌনসঙ্গম করতে পারবে । এর জন্য কোন বাধা দেওয়া হয়নি। কাজেই যদি গর্ভ অবস্থায় তারা সহবাস করতে চায় তাহলে সেটাও জায়েজ।  কোন অসুবিধা হবে না।  গর্ভ অবস্থায়  সহবাসের ক্ষেত্রে কেবল  দুইটি বিষয় লক্ষ  রাখা আবশ্যক।

 

  • স্ত্রীর মাসিক ঋতুস্রাব চলাকালীন সহবাস করা যাবে না।
  •  স্ত্রীর সাথে পায়ুকাম  বা অ‌্যানল সেক্স করা যাবে না।

 

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এই দুইটি ক্রিয়াকে নিষেধ করে রেখেছেন এবং ঘোষণা দিয়েছেন,

কোন ব্যক্তি যদি ঋতুস্রাব অবস্থায় স্ত্রীর সাথে বা স্ত্রীর পায়ুপথে সহবাস করলে বা গণকের কাছে এসে তার কথায় বিশ্বাস করে নিল।  সে প্রকৃত পক্ষে প্রকৃতির পক্ষের ওপর অবহিত সবকিছু অস্বীকার করল। তিরমিজি 135

একইভাবে ইহরাম ও রোজা অবস্থায় সহবাস নিষেধ করা হয়েছে।  এছাড়া অন্য সকল সময়  যখন ইচ্ছে তখনই আপনি সহবাস করতে পারবেন।

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার সতর্কতা সমূহঃ

গর্ভাবস্থায় সহবাস করা থেকে বিরত থাকার জন্য কোন হুকুম করা হয়নি। গর্ভাবস্থায় সহবাস  করার  নির্দিষ্ট  কোন নিয়ম সম্পর্কে  বলা হয় নি । কিন্তু গর্ভকালীন অবস্থায় সহবাসের সময় আপনাকে অবশ্যই একটু বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

আপনি কি মনে রাখতে হবে গর্ভাবস্থায় কিভাবে সহবাস করলে আপনার স্ত্রী শান্তি অনুভব করবে  এবং খেয়াল রাখতে হবে গর্ভের সন্তানের জন্য কোনো ক্ষতি না হয়।  তাই আপনাকে সব দিকে খেয়াল রেখেই এইটুকু মেনে চলতে হবে।  খুব ধৈর্য   সহকারে গর্ভকালীন অবস্থা মা ও শিশু দুজন কে ভালো রাখার জন্য আপনাকে সেই ভাবে সহবাস করতে হবে। যে ভাবে সহবাস করলে  মা ও শিশুর দুজনেই সুস্থ থাকে। তবে আপনাকে মনে রাখতে হবে আপনার স্ত্রী যদি গর্ব অবস্থায় থাকে বা গর্ব অবস্থায় নাও থাকে তবুও ভুলেও কখনো পিছন পাট দিয়ে সহবাস করার চেষ্টা করবেন না এতে করে আপনার গুনা হবে।

গর্ভাবস্থায় সহবাস করার নিয়ম সমূহঃ

গর্ভকালীন অবস্থায় সহবাস করার কোনো নির্দেশনা বা নিষেধ নেই। গর্ভকালীন অবস্থায় প্রথম তিন  মাস সহবাস না করা ভালো সময় সহবাস করলে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে । তাই গর্ভকালীন অবস্থায় প্রথম তিন মাস সর্তকতা অবলম্বন করে সহবাস করুন। প্রথম তিন মাস যদি আপনি সাবধানতা অবলম্বন করে সহবাস করতে পারেন তাহলে আপনার মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ থাকবেন কোন ক্ষতি হবে না।

গর্ভাবস্থায় সহবাসের পূর্বে কিছু কথা জেনে রাখা ভালোঃ

যদি আপনার গর্ভকালীন সময় স্বাভাবিকভাবে থাকিন । তাহলে আপনি সন্তান গর্ভে থাকা অবস্থায় প্রসব বেদনা শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত সহবাস করতে পারবেন।

গর্ভকালীন অবস্থায় আপনি যদি কিছু নিয়ম অনুসরণ করলে কোন প্রকারের সমস্যা হবে না।

সহবাসের সময় স্বাভাবিক নড়াচড়াও গর্ভে শিশুর কোন ক্ষতি হয় না। গর্ভের শিশু তলপেট ও শক্ত    পেশী  দিয়ে সুরক্ষিত থাকে।

আপনার শিশু এলেমেন্ট ইন সেক্রেট মধ্যে অবস্থান করে যা তাকে সুরক্ষিত রাখে।

জরায়ুর মুখ মিউকাস নাগ  ধারা সিল করা থাকে। বাচ্ছা শিশুকে ইনফেকশনের হাত থেকে মুক্তি করে রাখে।

সহবাসের সময়   পুরুষের গোপন অঙ্গ নারীর গোপন অঙ্গ পর্যন্ত প্রবেশ করে। গর্ভের শিশু পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে ।  তাই গর্ভের শিশুর ক্ষতির আশঙ্কা বেড়ে যায়।

সহবাসের পর অর্গাজম হলে বাচ্চার নড়াচড়া বৃদ্ধি পেতে পারে।  এটা হয় অর্গাজমের পর আপনার হার্ট বিট বেড়ে যাওয়ার কারণে।

অরগাজমের কারণে জরায়ুর পেশিতে মিশ্র সংকোচন প্ল্যাটফর্ম হতে পারে

ক্ষীণ স্ত্রী এবং ক্ষতিকর হয় যদি গর্ভধরণের সবকিছু স্বাভাবিক থাকে তবে অর্গাজমের কারণে হওয়া সংকোচনের ফলে গর্ভপাত বা প্রসব বেদনা শুরু হয়।

সুতরাং নিচের সমস্যাগুলির না থাকলে গর্ভ অবস্থায় সহবাস করলে কোন সমস্যা হবে না।  তবে এই  সময়  আপনার  সর্তকতা অবলম্বন করা ভালো। এতে আপন স্ত্রী ও সন্তান দু’জনকেই ভালো থাকতে পারে ।

আজকের আলোচনা এ পর্যন্তই আপনারা সকলে ভাল থাকবেন আমাদের এই পোস্ট যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং কমেন্টে আরো কিছু তথ্য জানতে ইচ্ছুক থাকলে জানতে পারবেন।

আবার ফিরে আসবো নতুন কোন পোস্ট নিয়ে আপনাদের মাঝে সে পর্যন্ত  সবাই ভালো থাকো।

গর্ভাবস্থায় সহবাস, গর্ভাবস্থায় সহবাস করার বিভিন্ন পদ্ধতি ছবি, স্ত্রী সহবাসের ইসলামিক নিয়ম , সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয় ,

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment