Class 7 - বাংলা
1 min read

পাখি গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর (PDF)

গল্পটির একটি অসাধারণ দিক হচ্ছে পাখিটি সেরে ওঠার প্রতিটি ধাপ থেকে কুমুও সুস্থ হওয়ার প্রেরণা পায়। পাখিটির প্রতি দুজন কিশাের-কিশােরীর অকৃত্রিম মমত্ববােধ ও সমবেদনা গল্পটিকে এক অনন্য মাত্রায় উন্নীত করেছে।

পাখি গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর | কিশােরী কুমু অসুস্থ হলে তাকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে পরিবার। সহপাঠীরা সবাই ওপরের ক্লাসে উঠে যাবে আর সে নিচের ক্লাসে পড়ে থাকবে এই নিয়ে কুমুর ভাবনার শেষ নেই। দ্রুত সুস্থতার জন্য কুমু সােনাঝুরিতে দিদিমার দোতলা বাড়ির উন্মুক্ত পরিবেশে আসে। সেখানে সে একটি অভূতপূর্ব ঘটনার সম্মুখীন হয়।

শিকারির বন্দুকের গুলির আঘাতে একটি বুনোহাস আহত হলে কুমু তার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়। পাখিটিকে সুস্থ করে তােলার জন্য সে ব্যাকুল হয়ে ওঠে। লাটুর সহযােগিতা নিয়ে কুমু পাখিটিকে বিপদ থেকে বাঁচাতে এবং দ্রুত সুস্থ হতে সাহায্য করে।

গল্পটির একটি অসাধারণ দিক হচ্ছে পাখিটি সেরে ওঠার প্রতিটি ধাপ থেকে কুমুও সুস্থ হওয়ার প্রেরণা পায়। পাখিটির প্রতি দুজন কিশাের-কিশােরীর অকৃত্রিম মমত্ববােধ ও সমবেদনা গল্পটিকে এক অনন্য মাত্রায় উন্নীত করেছে।


পাখি গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : সহপাঠীদের সাথে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে একটি বিড়ালছানার করুণ ডাক শুনে থমকে দাঁড়ায় শ্রেয়সী। হঠাৎ দেখে রাস্তার পাশে একটি গর্তে একটি বিড়ালছানা আটকে আছে। বন্ধুদের সাহায্য নিয়ে শ্রেয়সী সেটিকে পরিষ্কার করে কোলে তুলে নেয়। বাড়িতে ফেরার পর শ্রেয়সীর সেবা-যত্নে বিড়ালছানাটি যেন প্রাণ ফিরে পেল। খুব অল্প সময়ে সে তাদের পরিবারেরই একজন হয়ে উঠল। কিন্তু ওর ভাই সুজা তাকে সহ্য করতে পারত না, প্রায়ই মারধর করত। একদিন শ্রেয়সী স্কুল থেকে ফিরে বিড়ালছানাটিকে আর খুঁজে পেল না।

ক. হাঁসরা গিয়ে কোথায় নামল?
খ. কুমু-লাটুর মনে কোনাে সন্দেহ রইল না কেন?
গ. শ্রেয়সীর মাধ্যমে ‘পাখি’ গল্পের কোন বিশেষ দিকটি ফুটিয়ে তােলা হয়েছে? ব্যাখ্যা করাে।
ঘ. ‘সুজার মানসিকতা কুমু বা লাটুর মতাে হলে বিড়ালছানাটিকে হারাতে হতাে না শ্রেয়সীর’ -বিশ্লেষণ করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : স্কুল থেকে ফেরার পথে রাস্তার পাশে মুমূর্ষু অবস্থায় একটি কুকুর ছানা দেখতে পেয়ে সেটাকে বাড়িতে নিয়ে আসে আদিবা। তার সেবা যত্নে কুকুর ছানাটা যেন প্রাণ ফিরে পেল। খুব অল্পদিনেই কুকুর ছানাটি তার অন্তরঙ্গ হয়ে উঠল। কিন্তু তার বড় বােন অনিমা সেটাকে একদমই পছন্দ করত না। সুযােগ পেলেই কুকুরটিকে সে লাঠি পেটা করত।

ক. ‘অবধি’ শব্দের অর্থ কী?
খ. কুমুর চোখ ঝাপসা হয়ে আসে কেন? ব্যাখ্যা করাে।
গ. আদিবার আচরণে ‘পাখি’ গল্পের কোন দিকটি ফুটে উঠেছে? ব্যাখ্যা করাে।
ঘ. উদ্দীপকে ‘পাখি’ গল্পের সম্পূর্ণভাব প্রকাশ করে কী? তােমার মতামত দাও।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ : গােপন সূত্রে খবর পেয়ে সুন্দরবন অঞ্চলের বন কর্মকর্তা মানিক সাহেব দুবলার চরে যান। সেখান থেকে খাঁচাবন্দি তিনটি হরিণসহ শিকারী সুজন মিয়াকে আটক করেন। আহত হরিণগুলােকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে গভীর জঙ্গলে অবমুক্ত করেন। দুঃখ করে বলেন, পশুপাখি আমাদের প্রকৃতির অংশ। কী করে আমরা এদের বিনাশ করি।

ক. বুনাে হাঁসের চোখ দুটো কিসের মতাে?
খ. ‘সমস্ত শরীরটা থরথর করে কাঁপছে’ –কার শরীর, কেন কাঁপছে?
গ. উদ্দীপকের খাঁচাবন্দি হরিণ ‘পাখি’ গল্পের কোন বিষয়টির প্রতি দিকনির্দেশ করে তা আলােচনা করাে।
ঘ. “অসহায় প্রাণীর প্রতি মমত্ববােধ ও তার অবমুক্তি-ই ‘পাখি’ গল্পের একমাত্র বিষয় নয়” -মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : খাওয়ার উপযুক্ত হয়নি বলে হরিণছানাটি রক্ষা পায়। তারা তাকে লালনপালন করতে থাকে নিজেদের বাড়িতে বড়াে করার জন্য। এসময় হরিণছানার খেলার সাথি হয় বাড়ির বােবা-কালা শিশুটি। হরিণছানাটির সাথে বড়াে হতে থাকে শিশুটিও। একসময় বাড়ির লােকেরা ঠিক করে হরিণটিকে জবাই করে তার মাংস বাজারে বিক্রি করবে বলে। কিন্তু তাদের ইচ্ছেয় বাদ সাধে বােবা-কালা ছেলেটি। বাড়ির সকলের চোখ এড়িয়ে হরিণটিকে সে বন্দিদশা থেকে মুক্ত করে । প্রাণে বাঁচায় তাকে। তার বুদ্ধিতে মুক্তি পেয়ে বনের হরিণ বনে ফিরে যায়।

ক. ‘পাখি’ গল্পটির লেখক কে?
খ. কুমুর চোখ ঝাপসা হয়ে আসে কেন?
গ. উদ্দীপকের হরিণছানাটির সাথে ‘পাখি’ গল্পের বুনােহাসটির অবস্থার সাদৃশ্য তুলে ধরাে।
ঘ. হরিণছানাটির সাথে শিশুটির বেড়ে ওঠা ‘পাখি’ গল্পের কোন বিশেষ দিকটিকে ইঙ্গিত করে? বিশ্লেষণ করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : অতিথি পাখি শিকার বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে আলিম সাহেব বাজারে গিয়ে দেখেন একটি লােকের হাতে অনেক পাখি। কাছে গিয়ে দেখেন সেগুলাে অতিথি পাখি। তিনি জানতে পারেন সেগুলাে পার্শ্ববর্তী বিল থেকে ফাঁদ পেতে ধরা। আলিম সাহেব পাখিগুলাে কিনে নেন এবং বাঁধন খুলে মুক্ত করে আকাশে উড়িয়ে দেন। পরিশেষে শিকারি লােকটিকে বলেন, এরপর যদি এমন কাজ করাে তবে তােমাকে পুলিশে ধরিয়ে দেব।

ক. ‘পাখি’ গল্পটি কার, কোন গ্রন্থ থেকে সংকলিত হয়েছে?
খ. ‘এখুনি ওদের ধরে ফেলবে’ -কথাটি কোন প্রসঙ্গে বলা হয়েছে?
গ. উদ্দীপকের সাথে ‘পাখি’ গল্পের সাদৃশ্য নির্ণয় করাে।
ঘ. “উদ্দীপকের আলিম সাহেবের আচরণ ‘পাখি’ গল্পের লেখিকার চেতনাকে ধারণ করেছে।” – মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : বলাই প্রকৃতির সন্তান। প্রকৃতির প্রতিটি উপাদান তার খুব প্রিয়। গাছ, ফুল, লতাপাতা, পাখি যেন তার চিরকালের প্রিয়তম বন্ধু। শীতের সকালের সূর্যের সােনাঝরা রােদ যখন গাছের উপর পড়ে বলাই তখন দেখতে পায় রৌদ্রোজ্জ্বল হাসি। আবার প্রবল ঝড় যখন লণ্ডভণ্ড করে দেয় চারদিক তখন গাছের আর্তনাদ তাকে ব্যথিত করে।

ক. কী দেখে কুমুর গলার ভিতরটা টনটন করে ওঠে? খ. লাটু কীভাবে বুনাে হাঁসটির থাকার ব্যবস্থা করেছিল?
গ. উদ্দীপকের বলাইয়ের সাথে ‘পাখি’ গল্পে বর্ণিত কুমু ও লাটুর মানসিকতার মিল দেখাও।
ঘ. উদ্দীপক ও ‘পাখি’ গল্পের প্রেক্ষাপট সম্পূর্ণ ভিন্ন।” -মন্তব্যটি মূল্যায়ন করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : রাসেল পাখিপ্রেমী। বনে বাদাড়ে বিভিন্ন রকমের পাখি বের করাই তার কাজ। সচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে সাধারণ মানুষকে পাখি শিকার থেকে বিরত থাকতে বলে সে। একবার ঝড়ে অনেক পাখি আহত হয়। পরদিন দেখা গেল রাসেল ওষুধের ব্যাগ হাতে পাখিদের সেবা করছে। এ দৃশ্য দেখে অনেকেই তাকে পাগল বলে ঠাট্টা করে।

ক. কুমুর দিদিমার বাড়ি কোথায়?
খ. কুমুর পাখি কাদের সঙ্গ নিল? কেন?
গ. উদ্দীপকের রাসেল ও গল্পের কুমুর সাদৃশ্য বর্ণনা করাে।
ঘ, ‘পাখি সংরক্ষণে রাসেলের মতাে লােক থাকা জরুরী’ -‘পাখি’ গল্পের আলােকে উক্তিটির যথার্থতা মূল্যায়ন করাে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৮ : কবুতর পােষার শখ কামালের। শুরুতে একজোড়া কবুতর সে খাঁচাতেই পুষত। বলতে গেলে একসময় এটা নেশায় দাঁড়িয়ে যায়। তাই কবুতরের আরামদায়ক বসবাসের জন্য কাঠের খােপ বানিয়ে দেওয়ালে টানিয়ে দিয়েছে কামাল। এখন তার পাঁচ জোড়া কবুতর।

ক. লীলা মজুমদারের জন্ম কত সালে?
খ. আহত পাখির প্রতি কুমুর মমত্ববােধের পরিচয় দাও।
গ. উক্ত প্রতিফলিত দিকটি ‘পাখি’ গল্পের কোন চরিত্রসমূহে বিদ্যমান? -আলােচনা করাে।
ঘ. প্রাণীদের প্রতি মমত্ববােধ দেখানাের জন্য আমাদের আচরণে কী কী পরিবর্তন আনা উচিত? মতামত দাও।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৯ : কামালদের বাড়ির পাশে এক মস্ত বিল। শীতকাল এলেই বিল জুড়ে কিচিরমিচির করে ভিনদেশী পাখিরা। কামাল প্রতিবছর অপেক্ষা করে এই সময়টার জন্যে। প্রতিদিন পাখি শিকার করে এনে পেট পুরে খায় সে।

ক. কুমু চমকে উঠে কী দেখতে পেল?
খ. আনন্দের চোটে কুমু ঘরময় হেঁটে বেড়ায় কেন?
গ. উদ্দীপকের কামালের সঙ্গে পাখি গল্পের লাটু চরিত্রের বৈসাদৃশ্য দেখাও।
ঘ. কামালের মতাে ছেলেদের মনােভাব বদলানাের জন্যে ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে? ‘পাখি’ গল্পের কুমু চরিত্রের আলােকে বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ১০ : দূর থেকে হঠাৎ দেখলে মনে হবে নড়েচড়ে উঠেছে একটি চড়ই অথবা বাবুই পাখি । একই বর্গিয় হলেও বাংলাদেশে লাল এই পাখি বিরল। শীত মৌসুমে এই পাখিরা পরিযায়ী হয়ে আসে আমাদের দেশসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে। প্রজনন মৌসুম মে মাস শুরু আগেই আবার চলে যায় অন্য দেশে। তুঁত ফল খেতে ভালােবাসে বলে বাংলা নাম ‘পাতি তুঁতি’। রঙমাখা পালকের জন্য ‘লালগিরি’ বা ‘লাল বঘেরি’ নামেও পরিচিত।

ক. সােনাঝুরিতে কার বাড়ি?
খ. পাখিটাকে দেখে কুমুর গলার ভেতরে টনটন করতে থাকে কেন? ব্যাখ্যা করাে।
গ. উদ্দীপকটি ‘পাখি’ গল্পের কোন দিকটির প্রতিনিধিত্ব করে? আলােচনা করাে।
ঘ. উদ্দীপকটির বক্তব্যে ‘পাখি’ গল্পের অন্তরালে ফুটে ওঠা লেখকের ভাবনার প্রতিফলন ঘটেছে কি? যৌক্তিক মতামত দাও।

 


ANSWER SHEET

উপরে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে পাখি গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর ডাউনলোড করে নাও।

Rate this post