ভূমিকা (Introduction)
দেহের বৃদ্ধি , শক্তি ও বেঁচে থাকার জন্য প্রতিটি প্রাণীর খাদ্য অপরিহার্য। তাই মানবদেহকে সুস্থ্য-সবল রাখার জন্যও খাদ্য অপরিহার্য। খাদ্য ও পুষ্টির সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা অর্জন করা দেহকে সুস্থ্য রাখার পূর্বশর্ত।

খাদ্য ও পুষ্টি  একে অপরের পরিপূরক। শরীরের চাহিদার জন্য আমাদের খাদ্যকে বিবেচনা করা হয়। ভাল স্বাস্থ্যের মূল ভিত্তি হলো পুষ্টিকর খাবার ও শরীরচর্চা। যখন কোন মানুষের খাদ্য ও পুষ্টি জ্ঞানের অভাব দেখা দেয় বা আর্থিক অভাব দেখা দেয় তখন  রোগের বৃদ্ধি হয়, শারীরিক এবং মানসিক উন্নয়নে বাধা পায়। যে কারণে আমাদের খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকতে হবে।

খাদ্য কাকে বলে? (What is called food?)
যে পদার্থ খাওয়ার মাধ্যমে জীবন বাঁচানো থেকে শুরু করে শারীরিক ও  মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখে সেটাকে খাদ্য বলা যায়। অন্যভাবে বললে, খাদ্য হলো এমন উপাদান বিশেষত কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট, এবং প্রোটিন যা একটি জীবকে শক্তি, বৃদ্ধি, এবং জীবনের প্রক্রিয়া বজায় রাখার জন্য ব্যবহার হয়।

খাদ্যের কাজ
খাদ্যের কাজগুলো হলোঃ
১. খাদ্য দেহের ক্ষয় পূরণ ও বৃদ্ধি সাধন করে।
২. খাদ্য দেহে তাপ ও শক্তি উৎপাদন করে।
৩. খাদ্য শরীরের অভ্যন্তরীণ ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করে, শরীরকে সুস্থ, সবল ও কর্মক্ষম রাখে।

পুষ্টি কাকে বলে? (What is called nutrition?)
যে শরীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ায় জীব তার গৃহীত খাদ্য পরিপাক, শোষণ এবং খাদ্যের উপাদানের সাহায্যে দেহের বৃদ্ধি, ক্ষয়পূরণ, রক্ষণাবেক্ষণ রোগ প্রতিরোধ ও শক্তির চাহিদা পূরণ করে তাকে পুষ্টি বলে।

খাদ্য ও পুষ্টির মধ্যে পার্থক্য কি? (What is different between food and nutrition?)

খাদ্য

  • কর্মশক্তি সৃষ্টি করে।
  • যে কোন আহার্য পদার্থ খাদ্য।
  • ক্ষুদা নিবারণ করে।

পুষ্টি

  • জীবদেহে বৃদ্ধি ও বিকাশ ঘটায়।
  • পুষ্টি একটি বিজ্ঞানভিত্তিক পক্রিয়া।
  • পুষ্টি আমাদের দৈহিক গঠন তৈরিতে ও সুস্থ থাকতে সাহায্য করে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x