b

আমরা টর্চ লাইট, বিভিন্ন রকম রিমোট কন্ট্রোলার, নানা রকম খেলনা ইত্যাদি ক্ষেত্রে যে বহনযোগ্য ব্যাটারি ব্যবহার করি এগুলোকে ড্রাইসেল বা শুষ্ক কোষ বলে।

লেড স্টোরেজ ব্যাটারির সুবিধা ও অসুবিধা লিখ।

লেড স্টোরেজ ব্যাটারির সুবিধাসমূহঃ
১। প্রাথমিক অবস্থাতেই এটি উচ্চ ভোল্টেজের বিদ্যুৎ প্রবাহ প্রদান করে থাকে।
২। এটির নির্মাণ ব্যয় খুব সামান্য।
৩। ব্যাটারি নির্মাণে প্রয়োজনীয় উপকরণের খুবই সহজলভ্যতা।
৪। এটিকে পুনরায় রিচার্জ করা যায়।
৫। এ জাতীয় ব্যাটারির অভ্যন্তরীণ রোধ কম।
৬। এর মূল উপাদানসমূহকে রিসাইকেল করা যায়।

লেড স্টোরেজ ব্যাটারির অসুবিধাসমূহঃ
১। লেড স্টোরেজ ব্যাটারির ওজন অস্বাভাবিকভাবে বেশি।
২। খুবই ধীরগতিতে চার্জিত হয়।
৩। এ ব্যাটারির কর্মদক্ষতা মাত্র 70%।
৪। তড়িৎ বিশ্লেষ্য যোগ করায় সাথে সাথেই ব্যাটারি চার্জিত হয় এবং এটি ক্ষয় হতে থাকে।
৫। এটি অতিরিক্ত তাপের সৃষ্টি করে থাকে।
৬। এ ব্যাটারির রক্ষণাবেক্ষণ খরচ আছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x