পড়াশোনা
0 min read

দ্বিতীয় অধ্যায়: ধর্মগ্রন্থ, সপ্তম শ্রেণির হিন্দুধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা

পুরাণের বৈশিষ্ট্য কয়টি?

উত্তরঃ পুরাণের বৈশিষ্ট্য পাঁচটি।

চণ্ডী কী?

উত্তরঃ চণ্ডী হিন্দুদের ধর্মগ্রন্থ।

বাসন্তী পূজার সময় কী পাঠ করা হয়?

উত্তরঃ বাসন্তী পূজার সময় শ্রীশ্রীচণ্ডী পাঠ করা হয়।

চণ্ডীর আরেক নাম কী?

উত্তরঃ চণ্ডীর আরেক নাম সপ্তশতী।

দুর্গা দেবীকে আমরা কী বলে প্রণাম করি?

উত্তরঃ “সর্বমঙ্গলমঙ্গল্যে শিবে সর্বার্থসাধিকে শরণ্যে ত্র্যম্বকে গৌরি নারায়ণি নমোহস্তুতে।” এই বলে আমরা দুর্গা দেবীকে প্রণাম করি।

চণ্ডী থেকে আমরা কী শিক্ষা পাই?

উত্তরঃ চণ্ডী থেকে আমরা যে শিক্ষা পাই তা হলো, শক্তিশালী ও সাহসী হওয়া, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা এবং নারীকে মর্যাদা দেওয়া। পাশাপাশি শ্ৰীশ্রীচণ্ডীর বন্দনার মাধ্যমে শত্রুর কবল থেকে দেশ ও সমাজকে রক্ষা করার অনুপ্রেরণা পাওয়া যায়।

কেন রাজা সুরথ বাসন্তী পূজা করেন?

উত্তরঃ হারানো রাজ্য ফিরে পাবার জন্য রাজা সুরথ বাসন্তী পূজা করেন। রাজা সুরথ বসন্তকালে সর্বপ্রথম দেবী দুর্গার আরাধনা শুরু করেন, তাই এ পূজার নাম বাসন্তীপূজা। মহর্ষি মেধার কাছে রাজা সুরথ দেবী দুর্গার মাহাত্ম্য জানার পরে নিজ রাজ্য ফিরে পাবার আসায় বাসন্তী পূজা করেন।

পুরাণের বিষয়বস্তু উল্লেখ করো।

উত্তরঃ মানুষের কল্যাণকর সুন্দর জীবন সম্পর্কে গল্পের মাধ্যমে উপদেশ ও নীতি শিক্ষা প্রদান পুরাণের মূল বিষয়বস্তু। পুরাণে মূলত সেকালের ধর্ম এবং জীবনের প্রতিফলন ঘটেছে। পুরাণে রয়েছে সৃষ্টি ও দেবতাদের উপাখ্যান, ঋষি ও রাজাদের বংশ, পৃথিবীর ভৌগোলিক পরিচিতি, তীর্থমাহাত্ম্য, দান, ব্রত, তপস্যা, আয়ুর্বেদ প্রভৃতির মধ্য দিয়ে বেদভিত্তিক হিন্দুধর্ম ও সমাজের নানা কথা

Rate this post