পড়াশোনা

অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর (পর্ব-২)

1 min read

প্রশ্ন-১। শিল্পোন্নয়নের সবচেয়ে বড় সমস্যা কোনটি?

উত্তরঃ শিল্পোন্নয়নের সবচেয়ে বড় সমস্যাটি হলো পরিবেশ দূষণ।

প্রকৃতির স্বাভাবিক অবস্থায় কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়লে পরিবেশ দূষণ হয়। শিল্প প্রতিষ্ঠানের বর্জ্য ও রাসায়নিক দ্রব্য নদী-নালায় পড়ে পানি দূষণ হয়। অপচনশীল দ্রব্য মাটিতে মিশে মাটির উর্বরতা নষ্ট হয়। কল-কারখানার বিকট শব্দ ও ধোঁয়ার মাধ্যমে শব্দ ও বায়ু দূষিত হয়।

তাই বলা যায়, শিল্পের উন্নয়নে সবচেয়ে বড় সমস্যা পরিবেশ দূষণ।

প্রশ্ন-২। অভিসার বলতে কী বোঝায়?

উত্তরঃ অভিসার শব্দের অর্থ সংকেত স্থানে গমন করা। সাধারণভাবে শব্দটি মানুষের নির্দিষ্ট স্থানের অভিমুখে যাত্রাকে বোঝাত। তবে ক্রমশ এই শব্দটি প্রেমিক-প্রেমিকার মিলনের উদ্দেশ্যে পরস্পরের অভিমুখে যাত্রাকেই বোঝায়।

রূপ গোস্বামী ছয় প্রকারের অভিসারের কথা বলেছেন-

১) দিবাভসারিকা

২) কুজঝটিকাভিসারিকা

৩) তীর্থযাত্রাভিসারিকা

৪) উন্মত্তাভিসারিকা

৫) বর্ষাভিসারিকা

৬) অসমঞ্জসাভিসারিকা।

প্রশ্ন-৩। একমুখী শিক্ষা কি?

উত্তরঃ একমুখী শিক্ষা হলো মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রে এক সিলেবাসের অন্তর্ভুক্ত শিক্ষা পদ্ধতি। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ‘একমুখী শিক্ষা’ কথাটি বেশ গুরুত্বের দাবি রাখে। কেননা এখানে প্রচলিত রয়েছে সাধারণ শিক্ষা, মাদ্রাসা শিক্ষা, বৃত্তিমূলক শিক্ষা এবং ইংরেজি শিক্ষা। সাধারণভাবে একমুখী শিক্ষা বলতে উল্লিখিত শিক্ষাব্যবস্থায় একই পাঠ্যক্রম অনুসরণ করাকে বুঝায়।

প্রশ্ন-৪। গ্রামের মানুষ শহরে পারি দিচ্ছে কেন?

উত্তরঃ অধিক জনসংখ্যার কারণে গ্রামে পর্যাপ্ত কর্মসংস্থানের সুযোগ না থাকায় সেখানে খাবারের অভাব দেখা দেয়, শিক্ষার সুযোগ থাকে না এবং চিকিৎসার অভাব দেখা দেয়। এসকল কারণে গ্রামের মানুষ শহরে পারি দিচ্ছে।

প্রশ্ন-৫। খলিলুর রহমান বাবর কে ছিলেন?

উত্তরঃ খলিলুর রহমান বাবর ছিলেন একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক। তিনি ঢাকার গেন্ডারিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি আমজাদ হােসেন পরিচালিত ‘বাংলার মুখ’ সিনেমার মাধ্যমে নায়ক হিসেবে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। এরপর ধীরে ধীরে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন খলনায়ক হিসেবে। খলনায়ক হিসেবে বাবরের যাত্রা শুরু হয় জহিরুল হক পরিচালিত ‘রংবাজ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে। তিনি ‘দাগী’ নামের একটি সিনেমা প্রযোজনা করেছিলেন। পরিচালনা করেছিলেন একমাত্র সিনেমা ‘দয়াবান’।

প্রশ্ন-৬। পাথফাইন্ডার কি?

উত্তরঃ পাথফাইন্ডার হচ্ছে একটি মার্কিন মহাকাশযান, যা ১৯৯৭ সালের ৪ জুলাই সফলভাবে মঙ্গল গ্রহে অবতরণ করে। ১৯৯৬ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রেরিত এ মহাকাশযানটি ৩৯ কোটি কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে মঙ্গল গ্রহে পৌঁছে। আগামী কয়েক বছরে মঙ্গলে আরো কমপক্ষে ৭টি মহাকাশযান পাঠানোর যে পরিকল্পনা বিজ্ঞানীরা করেছেন, পাথফাইন্ডার তার পথপ্রদর্শক। পাথফাইন্ডার মঙ্গল গ্রহের লাল ভূমি, বিভিন্ন আকৃতির পাথর ও ছোট ছোট পাহাড়ের ছবি পাঠিয়েছে।

প্রশ্ন-৭। সরকারের সঙ্গে পার্বত্য জেলা ও আঞ্চলিক পরিষদের সম্পর্ক

উত্তরঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানের আওতায় বিশেষ ব্যবস্থা হিসাবে পার্বত্য জেলা পরিষদ ও আঞ্চলিক পরিষদ গঠন করা হয়েছে। উভয় পরিষদকে আইন অনুযায়ী নির্দিষ্ট ক্ষমতা ও কর্তৃত্ব প্রদান করা হয়েছে। জেলা ও আঞ্চলিক পরিষদ আইনের বা কোনো বিধি বিধানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ বিধি প্রণয়ন করতে পারবে। আইন প্রণয়নের ক্ষমতা সরকারের হাতে ন্যস্ত। অপরদিকে, সরকারের প্রয়োজন দেখা দিলে জেলা পরিষদের কাজকর্মের ব্যাপারে নির্দেশ প্রদান বা অনুশাসন এবং গেজেট আদেশ দ্বারা আঞ্চলিক পরিষদ বাতিল ঘোষণা পর্যন্ত করতে পারবে।

প্রশ্ন-৮। লিওনার্দো দ্যা ভিঞ্চি কে ছিলেন? তার বিখ্যাত চিত্রকর্ম কি?

উত্তরঃ লিওনার্দো দ্যা ভিঞ্চি ইতালীয় রেনেসাঁসের কালজয়ী চিত্রশিল্পী। তিনি জন্ম গ্রহণ করেন ১৪৫২ সালে এবং মৃত্যুবরণ করেন ১৫১৯ সালে। তার বিখ্যাত চিত্রকর্মের মধ্যে Mona Lisa, The Last Supper, The Madonna and Child উল্লেখযোগ্য।

প্রশ্ন-৯। প্রাক্কলিত নগদান প্রবাহ বিবরণী বলতে কী বোঝায়?

উত্তরঃ যে বিবরণীর মাধ্যমে ব্যবসায়ে একটি নির্দিষ্ট সময়ে কী পরিমাণ নগদ অর্থ আয় এবং ব্যয় হচ্ছে তা জানা যায়, তাকে প্রাক্কলিত নগদান প্রবাহ বিবরণী বলে।

এ বিবরণীতে নির্দিষ্ট সময়ের নগদ আয় এবং ব্যয়ের পরিমাণ সংরক্ষণ করা হয়। এটি দৈনিক, সাপ্তাহিক ও মাসিক ভিত্তিতে তৈরি হতে পারে।

এছাড়া, নগদান প্রবাহ বিবরণীর মাধ্যমে উদ্যোক্তা তার ব্যবসায়ের প্রকৃত নগদ অর্থের অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারেন।

প্রশ্ন-১০। প্রশিক্ষণ কীভাবে অপচয় ও দুর্ঘটনা কমায়?

উত্তরঃ দক্ষতার সাথে কাজ পরিচালনা করা যায় বলে প্রশিক্ষণ অপচয় ও দুর্ঘটনা কমায়।

প্রশিক্ষণ হলো কোনো বিষয়ে বাস্তব শিক্ষা নেওয়া। এর মাধ্যমে কাজের নতুন কৌশল ও দক্ষতা অর্জন করা যায়। ফলে কর্মীরা সঠিকভাবে নিজেদের কাজ সম্পন্ন করতে পারে। এছাড়াও প্রশিক্ষিত কর্মী কম সময়ে বেশি কাজ করতে পারে। এতে সময় বাঁচে এবং অপচয় কমে যায়। তাই, প্রশিক্ষণ কর্মীর দক্ষতা বাড়ানোর মাধ্যমে দুর্ঘটনা ও অপচয় কমায়।

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment