বল কি? বলের একক, প্রকারভেদ, প্রভাব এবং বৈশিষ্ট্য। What is Force?

admin
5 Min Read
বল (Force) হলো​ এমন একটি বাহ্যিক প্রভাব, যা স্থির বস্তুর উপর ক্রিয়া করে স্থির বস্তুকে গতিশীল করে বা করতে চায় এবং যা গতিশীল বস্তুর উপর ক্রিয়া করে তার গতির পরিবর্তন করে বা করতে চায়। যেমন : একটি ফুটবল একজন খেলোয়াড় হতে অন্য খেলোয়াড়ের নিকট এমনিতেই যায় না। ফুটবলের উপর বল প্রয়োগের ফলেই সেটা ঘটে। আবার গোল করার লক্ষ্যে ফুটবলটিকে ছুড়ে দিলে গোলকিপার তা ধরে ফেলে এক্ষেত্রেও তাকে বল প্রয়োগ করতে হয়েছে।
 

বলের একক (Unit of Force)
M.K.S পদ্ধতিতে বলের একক Newton (নিউটন)
C.G.S পদ্ধতিতে বলের একক Dyne (ডাইন)
F.P.S পদ্ধতিতে বলের একক Poundal (পাউন্ডাল)

বলের প্রকারভেদ (Types of Force)

উৎস বা প্রয়োগ ক্ষেত্রের উপর ভিত্তি করে বলকে বিভিন্ন নামে নামকরণ করা হয়েছে। যেমন: টান, চাপ, ঠেলা, ঘর্ষণ, আকর্ষণ, বিকর্ষণ, ওজন ইত্যাদি।
টান (Tension) : কোনো বস্তুকে একটি সরু রশি বা তার দ্বারা টানা হলে ঐ রশি বা তার বরাবর বস্তুটির উপর যে বল ক্রিয়া করে তাকে টান বলে।
চাপ (Pressure) : যখন একটি বস্তুকে অপর একটি বস্তুর উপর রাখা হয়, তখন প্রথম বস্তুটি দ্বিতীয় বস্তুর উপর যে বল প্রয়োগ করে তাকে চাপ বলে।
ঠেলা (Thrust) : অনেক সময় দেখা যায় বাস (বা অন্য কোনো গাড়ী) কোনো স্থানে রাখা ছিল, এখন স্টার্ট দেওয়ার সময় স্টার্ট নিচ্ছে না। এমন অবস্থায় বাসটিকে কতকগুলি লোক বল প্রয়োগ করে সামনে বা পিছনে সরানোর চেষ্টা করে এবং গড়ালেই ড্রাইভার স্টার্ট করতে সক্ষম হন। এই ক্ষেত্রে যে বল প্রয়োগ করে গাড়িকে গড়ানো হয় তাকে ঠেলা বা ধাক্কা বল বলে।
ঘর্ষণ (Friction) : একটি বস্তু অপর একটি বস্তুর উপর দিয়ে (স্পর্শ করে) চলতে গেলে বাধাপ্রাপ্ত হয়। যেমন- তুমি যদি একটি ফুটবলে শট দাও তবে তা কিছুক্ষণ ভূমিতে গড়ানোর পরে থেমে যাবে। ফুটবলটি নিশ্চয়ই কোনো বাধার কারণে থেমে গেছে। এখানে ভূমির স্পর্শে গড়ানোর কারণে যে বল বাধা হিসেবে কাজ করে তাকে ঘর্ষণ বল বা সংক্ষেপে ঘর্ষণ এবং যে বিন্দুতে স্পর্শ করে ঐ বিন্দুকে ঘর্ষণ বিন্দু বলা হয়।
আকর্ষণ (Attraction) : বাহ্যিক কোনো বল (যেমন- চাপ, ঠেলা, ধাক্কা) প্রয়োগ ছাড়াই একে অপরকে স্পর্শ করেনি এরূপ দুইটি বস্তু যে বলের ক্রিয়ার কারণে একে অপরের দিকে অথবা যে কোন একটি অপরটির দিকে অগ্রসর হয় বা হওয়ার প্রবণতা সৃষ্টি হয় তাকে আকর্ষণ বল বা সংক্ষেপে আকর্ষণ বলে। যেমন, একটি লৌহ খণ্ড চুম্বকের আকর্ষণে চুম্বকের দিকে অগ্রসর হয়, পৃথিবীর আকর্ষণে বৃন্তচ্যুত ফল মাটিতে পড়ে।

বিকর্ষণ (Reputation) : বাহ্যিক কোনো বল প্রয়োগ ব্যতিরেকে একে অপরকে স্পর্শ করেনি এরূপ দুইটি বস্তু যে বলের ক্রিয়ার ফলে একটি অন্যটি থেকে সরে যায়, তাকে বিকর্ষণ বল বা সংক্ষেপে বিকর্ষণ বলে।
চুম্বকের সমজাতীয় দুই মেরু কাছাকাছি আনলে চুম্বকদ্বয় পরস্পর হতে দূরে সরে যাবে। এই বলটিই বিকর্ষণ বল।
ওজন (Weight) : কোনো বস্তুকে পৃথিবী তার কেন্দ্রের দিকে যে পরিমাণ আকর্ষণ বল দ্বারা টানে তাকে ঐ বস্তুর ওজন বলা হয়।
বস্তুর ওজন সর্বদা বস্তুর ওপরস্থ একটি নির্দিষ্ট বিন্দু দিয়ে খাড়া নিচের দিকে ক্রিয়াশীল। ঐ নির্দিষ্ট বিন্দুটিকে বস্তুর ভারকেন্দ্র (Centre of gravity) বলা হয়।

বলের প্রভাব (Effects of Force)
বল নিচের ঘটনাগুলো ঘটাতে পারে:
১. বল একটি স্থির বস্তুকে গতিশীল এবং গতিশীল বস্তুকে স্থির করতে পারে।
২. বল একটি বস্তুর গতির দিক পরিবর্তন করতে পারে।
৩. বল একটি গতিশীল বস্তুর বেগ কমাতে বা বাড়াতে পারে।
৪. বল একটি বস্তুর আকৃতি পরিবর্তন করতে পারে।

বলের বৈশিষ্ট্য (Characteristics of Force)

  • বল প্রয়োগে কোন বস্তুর জড়তার পরিবর্তন হয় বা হওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়।
  • বল সর্বদা জোড়ায় জোড়ায় ক্রিয়া করে। অর্থাৎ কোন বস্তুর উপর বল প্রয়োগ করলে প্রযুক্ত বলের বিপরীত দিকে আরেকটি বল ক্রিয়া করে। একারণে বলের ক্রিয়াকে Interaction বা মিথস্ক্রিয়াও বলে। যেমন যখন কোন বস্তুকে দড়িতে বেধে টানা হয় তখন প্রযুক্ত বলের বিপরীত দিকে দড়িতে যে একটা বল ক্রিয়া করে তাকে টান বল বলে।
  • যতক্ষণ লব্ধ বল ক্রিয়াশীল থাকে ততক্ষণ উক্ত বস্তুতে ত্বরণ সৃষ্টি হয়। মূলত কোন পদার্থের ভর স্থির হলে প্রযুক্ত বল বস্তুটির গতির অবস্থার পরিবর্তন ঘটায় বা ত্বরণ সৃষ্টি করে।
  • বল কোন বস্তুকে বিকৃত করতে পারে বা তার ভৌত ধর্মের পরিবর্তন করতে পারে।
  • বল একটি ভেক্টর রাশি। কারণ এর মান ও দিক আছে।
এখানে যা শিখলাম–
বল কি?; বলের একক কি?; বলের উদাহরণ; বল কত প্রকার ও কি কি?; টান বল কাকে বলে?; চাপ কাকে বলে?; ঠেলা কাকে বলে?; ঘর্ষণ কাকে বলে?; আকর্ষণ কাকে বলে?; বলের প্রভাব; বলের বৈশিষ্ট্য কি কি?
Share this Article
Leave a comment
x