পড়াশোনা
1 min read

HSC পদার্থবিজ্ঞান ২য় পত্র অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর

অধ্যায়-১: তাপগতিবিদ্যা
প্রশ্ন-১. কার্নো চক্র কাকে বলে?
উত্তর : ফরাসি বিজ্ঞানী সাদি কার্নো সকল দোষ ত্রুটি মুক্ত একটি ইঞ্জিনের পরিকল্পনা করেন। এ ইঞ্জিনের চার ঘাতবিশিষ্ট যে চক্রের মাধ্যমে কার্য সম্পাদন হয় তাকে কার্নো চক্র বলে।

প্রশ্ন-২. তাপ ইঞ্জিন কী?
উত্তর : তাপশক্তিকে কাজে পরিণত করার জন্য একটি যন্ত্রের বা যান্ত্রিক ব্যবস্থার প্রয়ােজন হয়। এ যন্ত্র বা যান্ত্রিক ব্যবস্থাকে তাপীয় ইঞ্জিন বা তাপ ইঞ্জিন বলে। অর্থাৎ যে যন্ত্র দ্বারা তাপশক্তিকে যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তর করা যায় তাকে তাপীয় ইঞ্জিন বলে। যেমন বাষ্পীয় ইঞ্জিন, পেট্রোল ইঞ্জিন, ডিজেল ইঞ্জিন ইত্যাদি।

প্রশ্ন-৩. পরমশূন্য তাপমাত্রা কী?
উত্তর : যে তাপমাত্রায় তত্ত্বীয়ভাবে সকল গ্যাসের আয়তন শূন্য হয়, তাকে পরমশূন্য তাপমাত্রা বলে।

প্রশ্ন-৪. সমোষ্ণ প্রক্রিয়া কী?
উত্তর : যে তাপগতীয় প্রক্রিয়ায় তাপমাত্রা ধ্রুব থাকে তাকে সমোষ্ণ প্রক্রিয়া বলে।

প্রশ্ন-৫. উন্মুক্ত সিস্টেম কী?
উত্তর : যে সিস্টেম পরিবেশের সাথে ভর ও শক্তি উভয়ই বিনিময় করতে পারে তাকে উন্মুক্ত সিস্টেম বলে।

প্রশ্ন-৬. তাপের যান্ত্রিক তুল্যাঙ্ক 4.2J cal-1 বলতে কী বুঝায়?
উত্তর : তাপের যান্ত্রিক তুল্যাঙ্ক 4.2J cal-1 বলতে বুঝায় 1 ক্যালরি তাপ উৎপন্ন করতে 4.2J কাজ করতে হবে বা, 1 ক্যালরি তাপ দ্বারা 4.2J কাজ করা যাবে।

অধ্যায়-৮ : আধুনিক পদার্থবিজ্ঞানের সূচনা
প্রশ্ন-১. দৈর্ঘ্য সংকোচন কাকে বলে?
উত্তর : স্থির পর্যবেক্ষকের সাপেক্ষে গতিশীল বস্তুর দৈর্ঘ্য এটির গতিঅভিমুখে সংকুচিত হবার ঘটনাকে দৈর্ঘ্য সংকোচন বলে।

 

 

প্রশ্ন-২. কাল দীর্ঘায়ন বলতে কী বুঝ?

উত্তরঃ ধ্রুববেগে গতিশীল কাঠামোতে পরিমাপকৃত সময় ব্যবধানের তুলনায় স্থির কাঠামোতে পরিমাপকৃত সময় ব্যবধান বেশি। এ বিষয়টি কাল দীর্ঘায়ন নামে পরিচিত।

অধ্যায়-৯: পরমাণু মডেল ও নিউক্লিয়ার পদার্থবিজ্ঞান

প্রশ্ন-১. পরমাণু মডেল কাকে বলে?

 

উত্তর :পরমাণুর অভ্যন্তরে মূল কণিকাসমূহের অবস্থান সম্পর্কে পরীক্ষালব্ধ ও যুক্তিনির্ভর সমাবেশ চিত্রকে পরমাণু মডেল বলে।

প্রশ্ন-২. বন্ধন শক্তি কাকে বলে?

উত্তর : প্রোটন ও নিউট্রনগুলোকে নিউক্লিয়াসে একসাথে বেঁধে রাখতে যে শক্তির প্রয়োজন হয় তাকে নিউক্লিয়াসের বন্ধন শক্তি বলে।

প্রশ্ন-৩. অর্ধায়ু কাকে বলে?

উত্তর : যে সময়ে কোনো তেজস্ক্রিয় নমুনায় মোট পরমাণুর ঠিক অর্ধেক পরিমাণ ক্ষয়প্রাপ্ত হয় তাকে ঐ তেজস্ক্রিয় মৌলের অর্ধায়ু বলে।

অধ্যায়-১০: সেমিকন্ডাক্টর ও ইলেকট্রনিক্স

প্রশ্ন-১. ডোপিং কি?

উত্তর : তড়িৎ পরিবাহিতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে চতুর্যোজী অর্ধপরিবাহীর মধ্যে পঞ্জযোজী বা ত্রিযোজী পদার্থের পরমাণু মেশানোর প্রক্রিয়া হলো ডোপিং।

প্রশ্ন-২. সার্বজনীন গেট কাকে বলে?

উত্তর : যে গেট দিয়ে মৌলিক গেটগুলো বাস্তবায়ন করা যায় তাকে সার্বজনীন গেট বলে।

প্রশ্ন-৩. জেনার বিভব কাকে বলে?

উত্তর : p-n জাংশন ডায়োডে পশ্চাৎমুখী বায়াস ক্রমশ বাড়াতে থাকলে যে বিশেষ ভোল্টেজে তড়িৎ প্রবাহ হঠাৎ খুব বেশি বৃদ্ধি পায় তাকে জেনার বিভব বলে।

প্রশ্ন-৪. বিটা কণা কি?

উত্তর :বিটা কণা হলো এক ধরনের ঋণাত্মক আধানযুক্ত কণা, এটির ভর ইলেকট্রনের ভরের সমান।

NAND কে সার্বজনীন গেট বলা হয় কেন?

উত্তর : একাধিক NAND গেট ব্যবহার করে অন্য যেকোনো গেট তৈরি করা সম্ভব। শুধু NAND গেট ব্যবহার করে দুই বা ততোধিক ইনপুট এর AND, OR, NOT মৌলিক অপারেশনগুলো করা সম্ভব। তাই NAND কে সার্বজনীন গেট বলা হয়।

Rate this post