পড়াশোনা
1 min read

নবম অধ্যায় : বর্তনী ও চলবিদ্যুৎ, অষ্টম শ্রেণির বিজ্ঞান

প্রশ্ন-১। কোনটি ফিউজের বৈশিষ্ট্য?
উত্তরঃ সংকর ধাতুর তৈরি।
প্রশ্ন-২। রোধের একক কি?
উত্তরঃ ওহম।
প্রশ্ন-৩। তড়িৎ প্রবাহের একক কী?
উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহের একক অ্যাম্পিয়ার।
প্রশ্ন-৪। প্রেসার কুকারে রান্না করলে শতকরা কত ভাগ বিদ্যুৎ সাশ্রয় হয়?
উত্তরঃ ২৫।
প্রশ্ন-৫। ইস্ত্রির জন্য কত অ্যাম্পিয়ারের ফিউজ ব্যবহার করা হয়?
উত্তরঃ ১৫ অ্যাম্পিয়ার।
১০০ ভোল্টের একটি বাল্ব ৫ অ্যাম্পিয়ার তড়িৎ প্রবাহের বর্তনীতে সংযুক্ত করা হলো। বর্তনীর রোধ কত?
উত্তরঃ ২০ ও’ম।
কোনটির মধ্যে অপর্যায়বৃত্ত প্রবাহের সৃষ্টি হয়?
উত্তরঃ ডিসি জেনারেটর ও ব্যাটারি।
৫ ওহম রোধের মধ্য দিয়ে ৩ অ্যাম্পিয়ার তড়িৎ প্রবাহিত হলে বিভব পার্থক্য কত?
উত্তরঃ ১৫ ভোল্ট।
১০ ভোল্ট বিভব পার্থক্যবিশিষ্ট কোনো পরিবাহকের মধ্য দিয়ে ৫ অ্যাম্পিয়ার বিদ্যুৎ প্রবাহিত হলে, ঐ পরিবাহীর রোধ কত হবে?
উত্তরঃ ২ ওহম।
বাংলাদেশে পর্যাবৃত্ত প্রবাহ প্রতি সেকেন্ডে কত বার দিক পরিবর্তন করে?
উত্তরঃ ৫০ বার।
১০ ভোল্ট বিভব পার্থক্যে রাখা ৫ ওহম রোধের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত তড়িৎ প্রবাহের মান কত?
উত্তরঃ ২ অ্যাম্পিয়ার।
কোন মৌল দুটির সাহায্যে ফিউজ প্রস্তুত করা হয়?
উত্তরঃ সীসা ও টিন।
প্রশ্ন-৬। বিদ্যুৎ প্রবাহ কাকে বলে?
উত্তরঃ কোনো পরিবাহকের যেকোনো প্রস্থচ্ছেদের মধ্য দিয়ে একক সময়ে যে পরিমাণ আধান প্রবাহিত হয় তাকে বিদ্যুৎ প্রবাহ বলে।
প্রশ্ন-৭। রোধ কাকে বলে?
উত্তরঃ পরিবাহীর যে ধর্মের জন্য এর মধ্য দিয়ে বিদ্যুৎ চলাচল বাধাগ্রস্ত হয় তাকে ঐ পরিবাহীর রোধ বলে।
প্রশ্ন-৮। তড়িৎ প্রবাহ কাকে বলে?
উত্তরঃ কোনো পরিবাহকের যে কোনো প্রস্থচ্ছেদের মধ্য দিয়ে একক সময়ে যে পরিমাণ আধান প্রবাহিত হয় তাকে তড়িৎ প্রবাহ বলে।
প্রশ্ন-৯। পর্যাবৃত্ত প্রবাহ কাকে বলে?
উত্তরঃ যখন নির্দিষ্ট সময় পরপর তড়িৎ প্রবাহের দিক পরিবর্তিত হয় তখন সেই তড়িৎ প্রবাহকে পর্যাবৃত্ত প্রবাহ বলে।
প্রশ্ন-১০। ভোল্টমিটার কাকে বলে?
উত্তরঃ যে যন্ত্রের সাহায্যে বর্তনীর যেকোনো দুই বিন্দুর মধ্যকার বিভব পার্থক্য সরাসরি ভোল্ট এককে পরিমাপ করা যায় তাকে ভোল্টমিটার বলে।
প্রশ্ন-১১। ওহমের সূত্রটি লিখ।
উত্তরঃ তাপমাত্রা স্থির থাকলে কোনো নির্দিষ্ট পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ প্রবাহের মান পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্যের মানের সমানুপাতিক।
প্রশ্ন-১২। এসি প্রবাহ কাকে বলে?
উত্তরঃ যে তড়িৎ প্রবাহের ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর তড়িৎ প্রবাহের দিক পরিবর্তিত হয় সেই তড়িৎ প্রবাহকে এসি প্রবাহ বলে।
প্রশ্ন-১৩। তড়িৎ বর্তনী কাকে বলে?
উত্তরঃ তড়িৎ প্রবাহ চলার সম্পূর্ণ পথকে তড়িৎ বর্তনী বলে।
প্রশ্ন-১৪। ফিউজ কি?
উত্তরঃ ফিউজ হলো সংকর ধাতুর তৈরি ছোট সরু তার, যাতে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ প্রবাহিত হবার সঙ্গে সঙ্গে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে।
প্রশ্ন-১৫। ফিউজের তারের মানের পরিবর্তনে কী সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে? ব্যাখ্যা করো।
উত্তরঃ ফিউজের তারের মানের পরিবর্তনে যেসব সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে, তা নিচে ব্যাখ্যা করা হলো।
১. প্রয়োজনের তুলনায় বেশি মানের ফিউজ ব্যবহার করলে—
  • বর্তনীর মধ্য দিয়ে অধিক পরিমাণে  বিদ্যুৎ প্রবাহিত হবে।
  • অধিক পরিমাণে বিদ্যুৎ প্রবাহিত হয়ে বিভিন্ন বৈদ্যুতিক উপকরণ নষ্ট হয়ে যাবে।
  • বর্তনীতে আগুন লেগে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।
  • মানুষের শক খাওয়ার আশঙ্কা থাকে।
২. প্রয়োজনের তুলনায় কম মানের ফিউজ ব্যবহার করলে—
  • ফিউজটি বারবার পুড়ে গিয়ে অসুবিধার সৃষ্টি করবে।
Rate this post