পদার্থ বিজ্ঞান
0 min read

ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয়?

Updated On :

ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয়?

দুটি তলের অমসৃণতার দরুণ ঘর্ষণ বল উৎপন্ন হয়।

একটি বস্তু যখন অন্য একটি বস্তুর সংস্পর্শ থেকে একের ওপর দিয়ে অপরটি চলতে চেষ্টা করে বা চলতে থাকে তখন বস্তুদ্বয়ের স্পর্শতলে গতির একটি বাধার উৎপত্তি হয়, এ বাধাকে ঘর্ষণ বলে। আর এই বাধাদানকারী বলকে ঘর্ষণ বল বলে। দুটি তলের অনিয়মিত প্রকৃতির কারণে ঘর্ষণ বল উৎপন্ন হয়। যখন একটি বস্তু অন্য বস্তুর ওপর দিয়ে গতিশীল হয়, তখন উভয় বস্তুর স্পর্শতলের খাঁজগুলো একটির ভেতর আরেকটি ঢুকে যায়। যার ফলে ঘর্ষণ বল উৎপন্ন হয়।

ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয় তা নিয়ে বিস্তারিত জানবো এখানে। ঘর্ষণ বল হচ্ছে এমন একটি বল যা একে অপরের সংস্পর্শে থাকা দুটি বস্তুর পৃষ্ঠের মধ্যে আপেক্ষিক গতির বাঁধা দেয়। ঘর্ষণ একটি সাধারণ ঘটনা যা আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনুভব করি। এটি বিভিন্ন জিনিসের পরিবহন, উৎপাদন এবং খেলাধুলা সহ আমাদের জীবনের অনেক ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

মূলত পরস্পর সংস্পর্শে থাকা দুটি পৃষ্ঠের মধ্যে মিথস্ক্রিয়ার ফলে ঘর্ষণ বল তৈরি হয়। যখন দুটি বস্তুর পৃষ্ঠদ্বয় পরস্পর সংস্পর্শে আসে, তখন পৃষ্ঠে থাকা অনেক ছোট ছোট উঁচুনিচু বা অসমান অংশগুলো একে অপরের সাথে মিশে থাকে। এই অমসৃণ অংশগুলি অ্যাস্পেরিটিস নামেও পরিচিত। যখন একটি পৃষ্ঠ অন্যটির উপর স্লাইড করার চেষ্টা করে / পিছলে যাওয়ার চেষ্টা করে তখন অমসৃণ অংশগুলি প্রতিরোধের সৃষ্টি করে। যার ফলে একটি বল তৈরি হয় যা পৃষ্ঠগুলির আপেক্ষিক গতির বিরোধিতা করে। এই বলকে ঘর্ষণ বল বলে।

ঘর্ষণ বল বস্তু দুটোর পৃষ্ঠতলের মধ্যবর্তী স্বাভাবিক বলের সমানুপাতিক। ঘর্ষণ বল বস্তুদ্বয়য়ের পৃষ্ঠের প্রকৃতি, পৃষ্ঠের রুক্ষতা এবং পৃষ্ঠতলের মধ্যে কোনো লুব্রিকেন্ট বা পিচ্ছিল পদার্থের উপস্থিতি দ্বারাও প্রভাবিত হয়।

ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয়

মনে রাখতে হবে, ঘর্ষণ বল দৈনন্দিন জীবনে একটি প্রয়োজনীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। ঘর্ষণ বল ছাড়া হাঁটা, গাড়ি চালানো বা এমনকি কোথাও কোনো বস্তুকে রাখাও কঠিন। ঘর্ষণ আমাদের না পিছলে হাঁটতে দেয়, এই কারণেই আমরা একটি ভাল গ্রিপ যুক্ত জুতা পরি। ঘর্ষণ বল গাড়ির টায়ার এবং রাস্তার পৃষ্ঠের মধ্যে ট্র্যাকশন প্রদান করে আমাদের গাড়িগুলিকে নিরাপদে চালাতে সক্ষম করে। ঘর্ষণ ছাড়া গাড়ির চাকা রাস্তায় পিছলে যায় এবং গাড়ি চালানো বা থামানো অসম্ভব হয় তখন।

ঘর্ষণ নির্দিষ্ট পরিস্থিতিতে বাঁধা দিতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, বিভিন্ন যন্ত্রপাতিতে চলমান অংশগুলির মধ্যে ঘর্ষণ বলের প্রভাবে সেগুলো ক্ষয় হয়ে যেতে পারে। ফলে যন্ত্রপাতির কার্যকারিতা হ্রাস পায় এবং শেষ পর্যন্ত সেগুলো নষ্ট হয়। এক্ষেত্রে যন্ত্রপাতিতে চলন্ত অংশগুলির মধ্যে ঘর্ষণ কমাতে এবং ক্ষয় কমাতে লুব্রিকেন্ট বা পিচ্ছিল পদার্থ ব্যবহার করা হয়।

ঘর্ষণ বল অনেক ধরণের ক্ষতির কারণ হতে পারে, যা অকল্পনীয়। উদাহরণস্বরূপ, খেলাধুলায় ক্রীড়াবিদরা দ্রুত দৌড়ানোর জন্য তাদের জুতা এবং মাটির মধ্যে ঘর্ষণ কমাতে চান। ট্র্যাক এবং ফিল্ডের মতো খেলাধুলায় কম ঘর্ষণ যুক্ত বিশেষ জুতা ঘর্ষণের কারণে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তখন খেলোয়াররা ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারেন।

তাই ঘর্ষণ এমন একটি ঘটনা যা আমাদের জীবনের অনেক ক্ষেত্রে অপরিহার্য। ঘর্ষণ বলের প্রকৃতি বোঝা এবং কিভাবে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে তা নিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং ও পদার্থবিদ্যায় অনেক গবেষণার কাজ চলছে। ঘর্ষণ বল নিয়ন্ত্রণ করে আমরা অনেক কিছু উন্নত করতে পারি এবং অনেক কাজে শক্তির ক্ষয় কমাতে পারি। তাহলে আমরা ইতোমধ্যে বুঝে ফেলেছি ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয়।

শেষ কথা:
আশা করি আপনাদের এই আর্টিকেলটি পছন্দ হয়েছে। আমি সর্বদা চেষ্টা করি যেন আপনারা সঠিক তথ্যটি খুজে পান। যদি আপনাদের এই “ঘর্ষণ বল কেন উৎপন্ন হয়?” আর্টিকেলটি পছন্দ হয়ে থাকলে, অবশ্যই ৫ স্টার রেটিং দিবেন।
5/5 - (41 votes)