Information
1 min read

কোন গ্রেডে কত বেতন

কোন গ্রেডে কত বেতন ২০২২

কোন গ্রেডে কত বেতন

সরকারি চাকরির বেতন ও ভাতা ও অন্যান্য সকল সুযোগ সুবিধা কোন গ্রেডে কত বেতন  সম্প্রতি সরকারি চাকরির পাশাপাশি বেসরকারি চাকুরির ক্ষেত্রেও প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। সরকারি চাকরির লিখিত পরীক্ষা দিতে গেলে দেখা যায় যে কি পরিমাণ শিক্ষিত বেকার রয়েছে। চাকরির পরীক্ষায় প্রতিটি পদের বিপরীতে এখন শত নয় হাজার খানেক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে থাকেন। সরকারি চাকরি সোনার হরিন হয়ে গেছে। দেশে শিক্ষিত বেকার বাড়ার পাশাপাশি বেড়েছে একক প্রতি চাকরির ক্ষেত্রে অসম প্রতিযোগিতা। চাকরির পরীক্ষায় এমন সব প্রশ্ন করে যেন আপনাকে সবই জানতে হবে। তাই চলুন সরকারি চাকরি সম্পর্কেও কিছু তথ্য জেনে নেই।

সরকারি চাকরির কোন গ্রেডে কত বেতন  বা ক্রম কি?

পূর্বে মূলত ১৯৭৩ সালে ১০ টি গ্রেড ঘোষনা করা হলেও পরবর্তী পে স্কেলেই ২০ টি গ্রেড কার্যকর করা হয়।  ‘গ্রেড’  অর্থ হলো শ্রেণি বা ধাপ। সরকারি বেসরকারি প্রত্যেকটি চাকরির পদে অনুযায়ী বেশ কিছু ধাপ বা গ্রেড রয়েছে। যার সাহায্যে বোঝা যায় একজন চাকরিজীবীর বেতন ভাতাদি ঠিক কোন পর্যায়ে আছে। সরকারি চাকরির এমন ২০টি পর্যায় বা বেতন ক্রম রয়েছে যাদের বলা হয়ে থাকে গ্রেড। মূলত একজন চাকরিজীবীর বেতন থেকে শুরু করে অবস্থান, ক্ষমতা, দায়িত্ব ও অন্যান্য সকল সুযোগ-সুবিধাসমূহ এই গ্রেডের ভিত্তিতেই বিবেচনা করা হয়।

তাই আপনি যদি সরকারি চাকরির প্রস্তুতি নিয়ে থাকেন বা সরকারি চাকরি করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার এর গ্রেড সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকা প্রয়োজন। তাছাড়া চাকরি হওয়ার পর যদি আপনি গ্রেড সম্পর্কে ধারণা গ্রহণ করেন তবে পন্ডশ্রমও হয়ে যেতে পারে। তাই শিক্ষাগতযোগ্যতা অনুসারে গ্রেড বাছাই করে চাকরির জন্য আবেদন করুন। পদ ও গ্রেড ভিত্তিক বেতন ও শিক্ষাগত যোগ্যতা দেখে নিন কোন গ্রেডে কত বেতন সরকারি চাকরির বেতন কত, সরকারি চাকরির বেতন হিসাব, সরকারি চাকরির বেতন গ্রেড হিসেবে কেমন হয়।

সরকারি চাকরি বেতন | সরকারি চাকরি বেতন স্কেল | government job salaryআসসালামুয়ালাইকুম প্রিয় বন্ধুরা কেমন আছেন আপনারা সবাই আশা করছি আপনারা সবাই ভাল আছেন আমিও ভাল আছি আজকে আপনাদের মাঝে নিয়ে আসলাম কোন গ্রেডে কত বেতন , সরকারি চাকরি বেতন স্কেল, সরকারি চাকরি বেতন হিসাব, সরকারি চাকরি বেতন গ্রেড, সরকারি চাকরি বেতন বৃদ্ধি, সরকারি চাকরি বেতন কাঠামাে, সরকারি চাকরি বেতন, সরকারি চাকরি বেতন ভাতা, সরকারি চাকরি বেতন বাড়বে, সরকারি চাকরি বেতন কত এই  সম্পর্কের। আশা করছি আপনাদের অনেক কাজে লাগবে।

সরকারি চাকরির কোন গ্রেডে কত বেতন

সরকারি চাকরির গ্রেড , আগে ছিল ৪8 শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত। এখন ২০ গ্রেডে চারটি শ্রেণিতে বিভক্ত।

  • ১. আগের প্রথম শ্রেণি > বর্তমানে সেটা ১ম থেকে ৯ম গ্রেড
  • ২. আগের দ্বিতীয় শ্রেণি > বর্তমানে শুধু ১০ম গ্রেড.
  • ৩. আগের তৃতীয় শ্রেণি > বর্তমানে ১১-১৬ তম গ্রেড
  • ৪. আগের চতুর্থ শ্রেণি > বর্তমানে ১৭-২০ তম গ্রেড

সরকারি চাকরি কোন গ্রেডে কত বেতন বৃদ্ধি

এদের নিয়ােগের সময়, সরকারি গেজেট বা বিজ্ঞপ্তি বের হয়, স্বয়ং প্রেসিডেন্ট এদের নিয়ােগ দিয়ে থাকেন। সামগ্রিক দিক বিবেচনায় মান-মর্যাদা, দায়িত্ব-কর্তব্যের পরিধি এবং সুযোগ সুবিধার দিক দিয়ে প্রথম শ্রেণির গেজেটেড অফিসারগণ তুলনামূলক ভালাে। অবস্থানে থাকেন। তার উপরে আছে সচিব/মূখ্য সচিব।

সরকারি চাকরি কোন গ্রেডে কত বেতন  কাঠামাে | government job salary scale

পিএসসি কর্তৃক নিয়ােগকৃত ২৭ ধরণের চাকরিকে ক্যাডার এবং পিএসসি কর্তৃক নিয়ােগকৃত অন্যান্য সরকারি চাকরিকে নন-ক্যাডার জব বলা হয়। নন-ক্যাডার জব গ্রেড ৯ হলে ১ম শ্রেণি এবং গ্রেড ১০ হলে ২য় শ্রেণি বলা হয়। ক্যাডার আর নন-ক্যাডার জব এর মধ্যে মূল পার্থক্য:

  • ১// ক্যাডারগণ প্রমােশন পেয়ে নীতিনির্ধারক পর্যায়ে যেতে পারেন।
  • ২// নন-ক্যাডারগণ প্রমােশন যেতে পারেন না অর্থাৎ ননক্যাডার একটি ব্লক পােস্ট।

নন ক্যাডার চাকরির খবর | ক্যাডারের চাকরির খবর  সরকারি যে কোন অফিসে ৪ ধরনের স্টাফ থাকে।

** ১ম স্তরে > ক্যাডার (গেজেটেড কর্মকর্তা

** ২য় স্তরে > কর্মকর্তা (গেজেটেড কর্মকর্তা )

** ৩য় স্তরে > কর্মকর্তা

** ৪র্থ স্তরে > কর্মচারী

government job salary list | সরকারি চাকরির লিস্ট

# প্রথম শ্রেণি মানেই নূন্যতম ৯ম গ্রেড:

সকল ডিপার্টমেন্টের সহকারী পরিচালক (Assistant Director) প্রথম শ্রেণির । শুধু বাংলাদেশ ব্যাংকের এডি না, সব এডিই প্রথম শ্রেণির

# দ্বিতীয় শ্রেণি কেবল ১০ম গ্রেড: পুলিশের এসআই দ্বিতীয় শ্রেণির এবং প্রাইমারি প্রধান শিক্ষক দ্বিতীয় শ্রেণির। সরকারি হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক দ্বিতীয় শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত।

# তৃতীয় শ্রেণি কেবল ১১-১৬ তম গ্রেড : প্রাইমারি সহকারী শিক্ষক তৃতীয় শ্রেণির এবং সকল ডিপার্টমেন্টের অফিস সহকারী, কম্পিটার অপারেটর/ সাঁট মুদ্রাক্ষরিক তৃতীয় শ্রেণির।

# চতুর্থ শ্রেণি কেবল ১৭-২০ তম গ্রেড:

অফিস সহায়ক চতুর্থ শ্রেণির যার স্কেল ৮,২৫০টাকা, যেমন প্রাইমারি স্কুলের পিওন।

সরকারি চাকরির গ্রেডভেদে বেতন ও ভাতা | সরকারি চাকরি বেতন ভাতা

সর্বোচ্চ মূল বেতন ৭৮ হাজার টাকা হলেও বেতন ভাতাসহ ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা হয়ে যায়।।

# বাড়িভাড়া মূল বেতনের ৫০ শতাংশ = 8০ হাজার টাকা।

# চিকিৎসা ভাতা ১ হাজার ৫০০ টাকা, ডােমেস্টিক এইড ভাতা ৩ হাজার টাকা,

# উৎসবভাতা ১৩ হাজার ৩৩ টাকা,

# আপ্যায়নভাতা ৩ হাজার টাকা

# শিক্ষাভাতা ২ হাজার টাকা করা হয়েছে। এবং অন্যান্য সকল কিছু নিয়ে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা হয়ে যায়। সরকারি চাকরি বেতন বাড়বে | সরকারি চাকরি বেতন কত

# সর্বনিম্ন মূল বেতন ৮ হাজার ২৫০ টাকা

# সর্বনিম্ন বেতন স্কেল ৮ হাজার ২৫০ টাকা হলেও সব মিলে দাঁড়াবে ২০ হাজার ১০ টাকা। স্থানভেদে আছে আরও অন্যান্য ভাতা ও সুবিধাদি> যেমনঃ

# গাড়ির সুবিধা # টিফিন ভাতা

# শ্রান্তি বিনােদন ভাতা # কার্যভার ভাতা # গৃহকর্মী ভাতা # পােশাক পরিচ্ছদ সুবিধা # পাহাড়ি ও দুর্গম ভাতা # আপ্যায়ন-ভাতা

# ভ্রমণ-ভাতা

# বদলিজনিত ভ্রমণ ভাতা (এককালীন) এছাড়া গবেষণা কাজে নিয়ােজিত বিশেষায়িত চাকরিজীবীদের জন্য বেতন কাঠামাে আলাদা রাখা হয়।

নিম্ন গ্রেডের কর্মচারীদের বেতন কত বৃদ্ধি পায়

১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীদের বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি মূল বেতনে ৫০০ টাকার মত হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে ৫০০-৮০০ টাকার কমও হয়। ধরি ১৯ নম্বর গ্রেডের একজন কর্মচারীর মূল বেতন ১২০০০ টাকা, তার চলতি বছরে বেতন বৃদ্ধি পেয়ে মূল বেতন দাড়াবে ১২৬০০ টাকা। গ্রেড-১৯> ৮৫০০ -৮৯৩০ – ৯৩৮০ – ৯৮৫০- ১০৩৫০ – ১০৮৭০ – ১১৪২০- ১২০০০- ১২৬০০ – ১৩২৩০ – ১৩৯০০ -১৪৬০০- ১৫৩৩০- ১৬১০০- ১৬৯১০ -১৭৭৬০ -১৮৬৫০-  ১৯৫৯০ -২০৫৭০।

সাময়িক বরখাস্তকালে কি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হয়?

একজন কর্মচারী বা কর্মকর্তা সাময়িক বরাখাস্ত হয় বিভিন্ন প্রকার অসদাচরণের কারণে। সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ লঙ্গন করলে একজন কর্মচারিকে সাময়িক বরাখাস্ত করা হয়। সাময়িক বরখাস্তকালে শুধুমাত্র খোরাকি ভাতা পাবেন। বাড়ি ভাড়া, শিক্ষা ভাতা অন্যান্য হারে সকল সুবিধা বহাল থাকবে। খোরাকি ভাতা বলতে অর্ধ হারে মূল বেতন প্রাপ্য হবে। এসময় কোন বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্র্রাপ্য হবেন না।

ধরি, কোন কর্মচারী সালের ডিসেম্বর মাসে সাময়িক বরাখাস্ত হলেন তাহলে তিনি কি ১ জুলাইসালে বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি বা ইনক্রিমেন্ট পাবেন? না কোন ইনক্রিমেন্ট প্রাপ্য হবেনা না। তবে সাময়িক বরখাস্ত কাল যদি চাকরি কাল হিসাবে গণনা করা হয় তাকে যদি ইনক্রিমেন্ট স্থাগিতাদেশ না দেওয়া হয়। তবে সাসপেনশন প্রত্যাহার হলে তিনি বকেয়া হিসেবে ইনক্রিমেন্ট পাবেন। যখনই তার সাময়িক বরখাস্ত স্থগিত করা হবে পূর্ববর্তী সকল বকেয়া প্রাপ্য হবেন।

বিনা বেতনে ছুটি বা অসাধারণ ছুটি মঞ্জুরকালে কি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি হয়। কোন কর্মচারীর যদি ছুটি জমা না থাকে বা শাস্তি হিসাবে অনুপস্থিতকাল বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হয় তবে উক্ত সময় তিনি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন না। শুধু তাই নয়, যদি দিন তাকে বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হবে উক্ত দিন পরে তিনি বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন। যেমন ধরি কোন কর্মচারি সালে দুই মাস বিনা বেতনে ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছে। তিনি সালে জুলাই মাসে ইনক্রিমেন্ট পাবেন না। তিনি সেপ্টেম্বর মাসে গিয়ে ইনক্রিমেন্ট বা বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি পাবেন।

যদি কেউ অবসর উত্তর ছুটিতে থাকে তবে কি তিনি বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট পাবেন

না। ৫৯ বছর চাকরি পূর্তিতে অথবা স্বেচ্ছায় যেভাবেই হোক না কেন তিনি যদি পিআরএল বা অবসর উত্তর ছুটি ভোগ করতে থাকেন উক্ত সময় তিনি কোন বেতন বৃদ্ধি প্রাপ্ত হবেন না। বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি শুধুমাত্র চাকরি কালে পাবেন। তবে হ্যাঁ পিআরএল শেষে তার পেনশন নির্ধারণের জন্য তিনি একটি ইনক্রিমেন্ট পাবেন সেটি কিন্তু কোন ভাবেই বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট নয়। মোট কথা বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি সুবিধা পেতে হলে সফল ভাবে এক বছর চাকরি সম্পন্ন করতে হবে তবেই তিনি বার্ষিক বেতন।

Rate this post