Lifestyle

শরীরের লোম বেশি হয় কেন

0 min read

শরীরের লোম বেশি হয় কেন

শরীরের লোম বেশি হয় কেন

আসসালামু আলাইকুম আজকে আলোচনা করবো  শরীরের লোম বেশি হয় কেন।  শরীরের লোম কমবেশি সবারই হয়ে থাকে। শরীরের লোম কারও বেশি আবার কারও কম, হাতে পায়ে বুকে গলায় ঘাড়ে গানে কব্জির পিছনে ইত্যাদি লোম দেখা যায়। আবার অনেকের শরীরের কোন অংশ দেখা যায় না। আজকের আলোচনাটি আমরা আলোচনা করব অতিরিক্ত লোম হয় কেন।

চলুন তাহলে জেনে নেই  শরীরের লোম বেশি হয় কেন।

সূচিপত্রঃ

  • শরীরের লোম কি জেনে নিন
  • লোমের প্রয়োজনীয় কি
  • শরীরের লোম বেশি হওয়ার কারণ কি
  • শরীরের লোম বেশি হওয়ার উপায় কি জানুন

লোম কিঃ

কুসুমের সঙ্গে ধর্মের কোন সম্পর্ক নেই। এক কথায় বলা যায় যে ও পশম দেহের একটি বাহিক অংশ। শরীরের চামড়ার উপরে লম্বা পশম পুরুষ বা মহিলাদের সবারই কমবেশি থাকে। শরীরের লম্বা পশম আমরা সাধারণত চুলের মুঠি ধরে নিতে পারি।

পশম বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে কালো ঘন কোঁকড়ানো ইত্যাদি। চুলের মত বলার কারণ হচ্ছে ঘন লম্বা কোঁকড়ানো কাল ইত্যাদি চুলের মতোই তাই চুলের সঙ্গে তুলনা করা হয়। শুধু যে মানুষের শরীরের পশম বা লোম  থাকে এটা ভুল ধারণা। কারণ পশুপাখির শরীরের লোম থাকে।

 শরীরের লোম বেশি হয় কেনি এবং লোমের প্রয়োজনীয়তা কিঃ

কারো কারো শরীরের লোম বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে যেমন কারো কম কারো বেশি কারো শরীরের রং কালো আবার কারো শরীরের লোম লাল ইত্যাদি রকমের হয়ে থাকে। পশম লোমআমাদের শরীরের যতটা প্রয়োজন এবং কতটা উপকারী তা আমরা উপলব্ধি করতে পারিনা।

নিচে উল্লেখিত বিষয়গুলোতে শরীরের পশম বা লোমের কিছু উপকারিতা রয়েছে জেনে নিনঃ

মাথার চুল রাখার কারণ হচ্ছে মাথার চামড়ায় বাতোকে কোন প্রকারের ধুলাবালি লাগতে পারে না। মাথার চুল আপনার মাথা কি খুবই সুরক্ষিত রাখবে কারণ মাথার ত্বকের নানান ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। রোগ জীবাণু বাসা বেঁধে আপনার অনেক ক্ষতি করে দিতে পারে।

চোখের উপরের লম্বা পশম থাকার কারণ হচ্ছে আমাদের কপাল দিয়ে ঘাম বা পানি সরাসরি চোখে ঢুকে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এজন্য চোখের উপরে  পশম বালম রয়েছে যেন সরাসরি চোখে পানি ঢুকে যেন না যায়।

নাকি পশম থাকার কারণ হচ্ছে বিভিন্ন ক্ষতিকর ধুলাবালু সরাসরি নাকে ঢুকে যেতে পারে এ জন্য নাকি পশম রয়েছে ।যাতে করে আপনার দেহের কোন ক্ষতি না হয়।

মুখে দাড়ি রয়েছে এজন্য যে মুখে দাড়ি থাকলে তখন কিন্তু রাখতে সাহায্য করে। রোদের ক্ষতিকর প্রশ্নের সরাসরি ত্বকের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে না। এজন্য মুখে দাড়ি রয়েছে।

হাতে পায়ে লোম থাকার কারণ হচ্ছে আপনার দেহে ময়লা লেগে থাকবে না।

বুকে যদি লম্বা পশম থাকে সে ক্ষেত্রে বুকে আকৃষ্ট করে। বুকের লোম থাকা একজন পরিপক্ষ ব্যক্তিত্বের পরিচয় দেয়।

শরীরের লোম বেশি হয় কেন জেনে নিনঃ

হরমোনের কারণে আমাদেরকে নিয়ে কসম বল রং উৎপন্ন হয়। আমাদের দেহে  পশম বা লোন  যে হরমোনের ধারা প্রবাহিত হয় তাহলো টেস্টোস্টেরন হরমোন। যাদের  দেহে হরমোনের সমস্যা বেশি হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে তাদের শরীরের পশম ও লোম বেশি পরিমাণে হয়ে থাকে টেস্টোস্টেরন হরমোন কম থাকার ফলে দেহের লম্বা ফর্সা এর ঘাটতি হয়ে থাকে।

আপনার শরীরের যদি টেস্টোস্টেরন   হরমোন দেখা দেয় তাহলে শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পায় শরীর দুর্বল হতে থাকে চুল পড়া বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ডিপ্রেশনজনিত অনেক সমস্যা দেখা দিতে পারে শুধু হরমোনের কারণে।

সমস্যাগুলো যদি আপনার শরীরে দেখা দেয় সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই অবশ্যই  টেস্টোস্টেরন পরীক্ষা করাতে হবে। পরীক্ষা করার পর আপনি কি নিশ্চিত হয়ে তারপর চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে চিকিৎসা করানো দরকার।

শরীরের লোম বেশি করার উপায় কিঃ

শরীরের লোম বেশি করার কোন উপায় নেই।  টেস্টোস্টেরনহরমোনজনিত কারণে শরীরের লোমের আদিত্য ঘটতে পারে তাই টেস্টরেন হরমোন বৃদ্ধি করার বেশ কিছু উপায় রয়েছে সেগুলো জেনে নিন।

এখানেও লক্ষ্য করা রয়েছে বেশকিছু পুষ্টিবিদেরা এমন কিছু খাবারের নাম যা আমাদের দেহে টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি ঘটাতে সহায়তা করে থাকেন।

নিচে উল্লেখিত বিষয়গুলো তে এমন কিছু খাবারের নামের উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো চেনেনঃ

 কলাঃ কলাই রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ব্রোমেলেইন এনজাইম আপনার দেহের টেস্টোস্টেরন  হরমোন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে থাকে। কল আপনার শরীরের শক্তি সরবরাহ করবে। খেলোয়াড়রা খেলার সময় এজন্যই কলা খেয়ে থাকে।

কলার সঙ্গে আপনি বাঁধাকপি, ঝিনুক, গরুর মাংস, কাঠবাদাম ইত্যাদি। এবং  বিভিন্ন ধরনের ফল যা আপনার শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে এবং টেস্টরেন হরমোন বৃদ্ধিতে অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকেন।

মধুঃ মধুতে রয়েছে প্রাকৃতিক নিরাময়কারী উপাদান“বোরন” যা দেহের টেস্টোস্টেরন বাড়াতে খুবই খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকেন।

রসুনঃ প্রসূন আপনার দেহের টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।রসুনের গুরুত্বপূর্ণ আলিসিন যৌন মানসিক চাপের হরমোনের কর্টিক স্মরণ এর মাত্রা কমাতে বেশ কার্যকারী। ফলে দেহে হরমোনের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকেন ভালো ফল পেতে হলে প্রতিদিন কাঁচা রসুন খাওয়ার অভ্যাস করুন। কাঁচা রসুন হার্টের জন্য খুবই কার্যকরী।

শরিলে বেশি লম্বা কম লোক সবই মহান আল্লাহতালার সৃষ্টিকর্তার হুকুমে হয়ে থাকেন কিন্তু শরীরের লোম বেশি থাকলে বা কম থাকবে এর মাথায় সুন্দর আমাদের উচিত নিজেকে সবসময় আগ্রহ বর্তমান অসমর বৃদ্ধির পেছনে না ছুটে পর দেহকে সতেজ ও কর্মক্ষম রাখার জন্য টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধির সহায়ক খাবার গ্রহণ করা প্রয়োজন। নিয়মিত  ব্যায়াম করুন বং পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানোর চেষ্টা করুন। ঘুম আপনার শরীরের টেস্টোস্টেরন হরমোন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে রাখেন।

আজকের আলোচনা হয়েছিল শরীরের লোম বেশি হয় কেন সে সম্পর্কে। উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে শরীরের লোম বেশি হয় কেন। আমাদের এই পোস্টের সঙ্গে থেকে আপনারা মনোযোগ দিয়ে পোস্টটি পড়ে নি খুব অল্প সময়ের মধ্যে জেনে নিতে পারবেন শরীরের লোম বেশি হওয়ার কারণ সম্পর্কে।

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment