Islamic
1 min read

ঈদের রাতে ও আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন

ঈদের রাতে ও  আগের রাতে   স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন
ঈদের রাতেবা আগের রাতে  স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা নিয়ে আজকের আলোচনা । আমরা অনেকেই ঈদের রাতে বা আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কি না তা জানতে চাই।  তাই আজকে আমাদের এই আলোচনাতে আপনি জানতে পারবেন ঈদের রাতে ও আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা।  কি না যারা কিনা যারা এই জানার ইচ্ছা রয়েছে আজকে আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের জন্য।  আজকের আলোচনা রয়েছে এদের রাতেও আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন। 
 তাহলে চলুন দেখে নেই বা পড়ে নেই ঈদের রাতে বা আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা এই বিষয়ে আলোচনা করব।
ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা /  ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা
  1.  ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন
  2.  ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন
  3.  ঈদের রাতের ফজিলত জেনে নিন
  4.  ঈদের রাতের আমল সমূহ জেনে নিন
  5.  শেষ কথাঃ  ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা /  ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা

 ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন

স্ত্রী সহবাস ও সদকা এক হাদীসে আবু যার (রাঃ) থেকে বর্ণিত হয়েছে। তারা বলেছিলেন, ইয়া রাসুল আল্লাহ যদি কেউ স্ত্রী সহবাস করে সেটাতেও কি সব পাওয়া যাবে? উত্তরে তিনি বলেছিলেন, তোমরা কি মনে করো সে কামাচার যদি হারাম পথে হয় তারপরও কি তার গুনাহ হবে না? অবশ্যই হবে। তবে সে কামাচার যদি হালাল পথে হয় তবে সে সওয়াব পাবে।
পিরিয়ডের কত দিন পর সহবাস নামাজ ,রোজা, যাকাত ,কুরআন, পড়া যাবে না
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম বলেছেন, এরপর যদি কেউ স্বামী-স্ত্রীর মাঝে কোন ফল দেওয়া হয় বা বাচ্চা পয়দা করা হয়, তাহলে শয়তান  স্পর্শ করতে পারবেনা। এবং কোন ভাবেই শয়তান ক্ষতি করতে পারবেনা। এক্ষেত্রে অনেকেরই মনে অনেক ধরনের প্রশ্ন আসে ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা।  বা ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস  করলে কোন গুনাহ হবে নাকি। তিনি উত্তরে বললেন ঈদের রাতে বা দিনে স্ত্রী সহবাস করলে তা বৈধ।
 সে ক্ষেত্রে তোমরা তোমাদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস করার পর আবার যদি সহবাস করতে হয় তখন এর মাঝখানে তাদের অযু করে নেয়া উচিত।  কারণ দ্বিতীয়বারের জন্য এটা অধিক প্রশান্তিদায়ক। তোমরা শুধুমাত্র রমজান মাসে দিনের বেলাতেই সহবাস করতে পারবেন।  এটা হারাম করা হয়েছে ।  তাছাড়া হজ ও ওমরার ইহরাম অবস্থায় তা হারাম।  হায়েজ নেফাস অবস্থায় মহিলারা থাকলে তা হারাম।

 ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা তা জেনে নিন

ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা এ সম্পর্কে ইসলামে কি বলেছেন তা জেনে নিন। ইসলামে বলেছেন তোমরা রাত্রি দ্বি-প্রহরের আগে সহবাস করবে না।  কোন ফল বান  গাছের নিচে ও স্ত্রী সহবাস করবে না।  সহবাস করার আগ মুহূর্তে দোয়া পড়ে নিতে হবে। এটা হল স্ত্রী সহবাসের দোয়া। এরপরে ধীরে ধীরে আলিঙ্গন করতে হবে। তবে আপনাকে জানতে হবে  স্ত্রীর ইচ্ছা হয়েছে কিনা এর পরে আপনি আদর সোহাগ ভালোবাসা দিতে পারবেন।  চুম্বন করবেন। তখন সহবাস করার ইচ্ছা মনে জাগবে।
 রোজা অবস্থায় স্বপ্নদোষ হলে গোসলের নিয়ম জেনে নিন
স্ত্রীর সহবাস শুরু করবেন বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম বলে। স্ত্রী সহবাসে যখন করবেন তখন নিজের স্ত্রীর রূপ দেখবেন ও শরীর স্পর্শ করবেন সহবাসের  সুফলের দিকে মনোনিবেশ করা ছাড়া পরের সুন্দরীর স্ত্রীর বা কোনা সুন্দরীর বালিকার রুপের কথা মনে করবেন না।
স্ত্রী সহবাস সময় স্ত্রীর দিকে মনোযোগ দিতে হবে এবং স্ত্রীকে স্পর্শ করতে হবে।  স্ত্রী সহবাস অন্য কোন সুন্দরী বা মেয়ে জাতীয় কোন লোককে আপনি মনে করতে পারবেন না। এর কারণ হলো স্ত্রী সহবাসের সময় সুখের কোন বাজে চিন্তা থাকবে না। এবং স্ত্রীদেরকেও এমনই করা উচিত।  ঈদের আগের রাতে ও ঈদের রাতে সহবাস করা বৈধ। রমজান মাসে দিনের বেলায় স্ত্রী সহবাস করা হারাম করে দিয়েছেন।

 ঈদের রাতের ফজিলত জেনে নিন

 বিশ্বের সকল মুসলিমদের জন্য  এক বছরের মধ্যে  দুইটা দিন খুব আনন্দের দিন।   আনন্দের দিন হল ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা।  ঈদুল ফিতর রোজার ঈদ ও ঈদুল আযাহা হল কোরবানির ঈদ।  নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাই সালাম বলেছেন প্রত্যেকটা গোষ্ঠীর উৎসব রয়েছে।  এই দুই ঈদ হল আমাদের ধর্মীয় উৎসব।  মুসলমান দুটি আনন্দ হল ঈদুল ফিতর ঈদুল আযহা ধর্মীয় উৎসব।
ঈদের রাতে আনন্দের কিছু তার সাথে আল্লাহর নৈকট্য অর্জন এর ওরাত এটি।   ঈদের রাতের ফজিলত ও ঈদের রাতে ইবাদত বন্দেগী করার গুরুত্ব ও মর্যাদা অনেক বেশি।  তাই  আমাদেরকে ঈদের রাতে ইবাদত বন্দেগী ও ঈদের রাতের ফজিলত খুব গুরুত্ব সহকারে পালন করা।
এই বিষয়ে হাদিসে রয়েছে,  ঈদের রাতের ফজিলত এই রাতে কোন দোয়া করলে সেটা ফিরিয়ে দেওয়া হয় না।  সাথে সাথে  কবুল হয়ে যায়।  এর অর্থ হলো ঈদের রাতে ইবাদত বন্দেগী করলে মহান আল্লাহতালার কাছে সরাসরি পৌঁছে কবুল হয়ে যায়।  আমরা যারা ইবাদত বন্দেগী করে মহান আল্লাহতালার কাছে যা চাইবো  সবই আমাদের কবুল হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। তাই আমাদের আল্লাহ খুশি  রাখতে হবে। তাই ঈদের রাতের এবাদত বন্দেগিতে ফজিলত অপরিসীম।

 ঈদের রাতের আমল সমূহ জেনে নিন

মুসলমানদের জন্য ঈদ মানেই হচ্ছে খুশি ঈদ মানে আনন্দ।  একটি বছর দুইটি আমরা মুসলমানরা পালন করে থাকি।  মুসলমানরা টানা এক মাস রোজা রেখে পরিশুদ্ধ হয় পরিবার ও সমাজ গঠনে আত্মীয়-স্বজন পাড়া-প্রতিবেশী সবাই মিলে ঈদের আনন্দ করে থাকি।  আত্মীয়-স্বজন বন্ধু-বান্ধব মা-বাবা ভাই-বোন ইত্যাদি ।
সকলকে একে অপরকে বুকে জড়িয়ে ধরার মানে হচ্ছে ঈদ আনন্দ।  রমজান মাসে লাভের আশায় নানা ত্যাগ-তিতিক্ষা সিয়াম সাধনার পর বহু অপেক্ষার শেষে চলে আসে আমাদের ঈদ উল-ফিতর।  30 টা রোযা হয়ে যাওয়ার পর আমাদের ঈদুল ফিতর ঈদ শুরু হয়।  তাই এই 30 আমরা মুসলিম অপেক্ষা ঈদের জন্য।  তাই মুসলিমদের ঈদ হচ্ছে একটি আনন্দ উৎসব।
ঈদের এই আনন্দ আমাদের পরকালীন জীবনের জন্য মুক্তি ও শান্তি লাভের অন্যান্য এক অনুভূতি।
রহমত মাগফিরাত নাজাতের মাহে রমজানের রোজা শেষ করে আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখার পর প্রতিটি রোজাদারের দেহ ও মনের খুশি আনন্দ জোয়ার উঠে যায়।  মুসলমানদের ঈদে ধনী-গরীব ছোট-বড় সবার মাঝে ঈদের আনন্দে ভরে উঠে।
প্রত্যেকটি মুসলমানদের মনে আনন্দের দোলনা দোলে এই ঈদের সময়। ঈদের দিন বিশেষ কিছু আমল রয়েছে। ঈদের রাতের আমল খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং খুব কার্যকারী একটি আমল।
ঈদের রাতের আমল এর মত ঈদের আগের রাত্রে ও বিশেষ কিছু আমল রয়েছে।
 ঈদের আগের রাতের কিছু আমল উল্লেখ করা হলোঃ 
  1. ঈদের আগে অবশ্যই ফিতরা আদায় করতে হবে
  2.  নতুন চাঁদ দেখার দোয়া পড়া
  3.  ঈদের রাতে নফল ইবাদত
করে বিস্তারিত আলোচনার মধ্যেই আমলগুলো  সদকাতুল ফিতরা আদায় করা অন্য একটি ইবাদত।  রমজান রোজা ভুল গুলো  পরিপূর্ণ সদকাতুল ফিতরা অবশ্যই রাখা উচিত।  নামাজে সিজদা সাহু সেজদারত হলো সদকাতুল ফিতরা।  নামাজ বিচিত্র হলে যেমন সিজদা সিজদায়ে সাহু পূর্ণ দেয় ঠিক তেমনি রোজার কোন ভুল ত্রুটি হলে সদকাতুল ফিতরা দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।  এটা প্রতিকার করা হয়।
 শেষ কথাঃ ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা /  ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা
ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা ও ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা।  এসব বিষয়ে জানতে চাইলে আমাদের আজকের আলোচনার আপনি পড়ালেখা করেন।  ঈদের আগের রাতে ও ঈদের রাতে সহবাস করা যাবে কিনা এই বিষয়ে জানার জন্য  সর্বপ্রথম আমাদের সাথে থাকুন। ঈদের আগের রাত্রে ও ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা পুরো আর্টিকেলটার আমাদের এই পোস্টে পড়ে নিন।
আমাদের আজকের এই আলোচনা ছিল ঈদের আগের রাত্রে ও ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা এ সম্পর্কে আমরা আপনাদেরকে অনেক কিছু  আমাদের এই পোস্টটিতে হয়েছে আপনি চাইলে দেখে নিতে পারেন।  ঈদের আগের রাতে ও ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা এ নিয়ে আপনি যদি জানতে চান তাহলে আমাদের এই  কমেন্ট বক্সে জানিয়ে রাখবেন।
  আশা করব আমরা ঠিকঠাক ভাবে আপনাকে প্রশ্নের উত্তর দিতে পারব ইনশাআল্লাহ।  আজকের আলোচনাতে রয়েছিল ঈদের আগের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা ও ঈদের রাতে স্ত্রী সহবাস করা যাবে কিনা আমাদের এই পোস্টটিতে আলোচনা করা হয়েছে।  আপনাদের কাছে যদি একটু ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টে জানাবেন।
Rate this post