Admission

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি (D) ইউনিটের সকল তথ্য

1 min read

আমাদের দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটে পড়তে চাইলে তোমাকে অবশ্য জীববিজ্ঞানে ভালো হতে হবে।

আবেদন যোগ্যতাঃ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি(ঘ) ইউনিট ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চাইলে তোমাকে অবশ্যই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক উভয় পরীক্ষাতেই জিপিএ ৪ থাকতে হবে।

সাবজেক্ট কয়টা?

জাবির ডি(ঘ) ইউনিটে ৭ টি সাবজেক্ট রয়েছে।
১)ফার্মেসী
২)বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং
৩)মাইক্রোবায়োলজি
৪)পাবলিক হেলথ এন্ড ইনফরমেটিক্স
৫)উদ্ভিদ বিজ্ঞান
৬)প্রাণিবিদ্যা
৭)প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান

আসন সংখ্যা কত?

ডি ইউনিটের মোট আসন সংখ্যা ৩৭৪ টি।তার মধ্যে ১৯১ টি ছাত্রদের জন্য আর বাকি ১৮৩ টি ছাত্রীদের জন্য।
উদ্ভিদবিজ্ঞান সাবজেক্টের জন্য ছাত্রদের আসন রয়েছে ৩৫ টি।ছাত্রীদের জন্য রয়েছে ৩০ টি আসন।
মোট ৬৫ টি আসন রয়েছে উদ্ভিদ ডিপার্টমেন্টে।
ঘ ইউনিটের প্রাণিবিদ্যা সাবজেক্টের জন্য মোট আসন রয়েছে ৬০ টি।৩০ টি ছাত্রদের জন্য এবং ৩০ টি ছাত্রীদের জন্য।
ফার্মেসী ডিপার্টমেন্টেও ৬০ আসন রয়েছে। ৩০ টি ছাত্রদের এবং ৩০ টি ছাত্রীদের জন্য।

D ইউনিটের প্রাণ রসায়ন ও অণুপ্রাণ বিজ্ঞান সাবজেক্টের জন্য মোট ৬৬ টি আসন সংখ্যা রয়েছে।তার মধ্যে ৩৩ টি ছাত্রদের জন্য আর বাকি ৩৩ টি ছাত্রীদের জন্য বরাদ্দকৃত।
মাইক্রোবায়োলজি সাবজেক্টের মোট আসন রয়েছে ৪৪ টি।কিন্তি,২২ টি ছাত্রদের জন্য এবং ২২ টি ছাত্রীদের জন্য।
বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের মোট আসন সংখ্যা ২৬ টি।
১৩ টি ছাত্রদের এবং ১৩ টি ছাত্রীদের।
পাবলিক হেলথ এন্ড ইনফরমেটিক্স ডিপার্টমেন্টের মোট আসন সংখ্যা ৫৩ টি।এখানে ছেলেদের জন্য ৩ টি বেশি ২৮ টি আসন রয়েছে এবং মেয়েদের জন্য ২৫ টি আসন রয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষার মান বন্টনঃ

বাংলা ও ইংরেজি- ৮ নম্বর
রসায়ন – ২৪ নম্বর
উদ্ভিদবিজ্ঞান- ২২ নম্বর
প্রাণিবিদ্যা- ২২ নম্বর
বুদ্ধিমত্তা- ৪ নম্বর
এমসিকিউ এর ক্ষেত্রে পাশ মার্ক ৩৩ নম্বর।

তুমি যদি এবারের ভর্তি পরীক্ষার্থী হয়ে থাক তাহলে তাড়াতাড়ি আবেদন করে ফেল।জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আবেদনের শেষ সময় কিন্তু ৩১ জুলাই,২০২১ রাত ১১.৫৯ পর্যন্ত।
আর যদি এইচএসসি পরীক্ষার্থী হয়ে থাক তাহলে জেনে নাও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেও পছন্দের সাবজেক্ট পাওয়ার জন্য কেমন যোগ্যতা থাকতে হবে।
তোমার পছন্দ যদি ফার্মেসী সাবজেক্ট টি হয় তাহলে তোমার রেজাল্ট অবশ্যই রসায়ন,জীব এবং গণিতে A গ্রেড থাকতে হবে।
যদি উদ্ভিদবিজ্ঞান পেতে চাও তাহলে কিন্তু জীববিজ্ঞান/কৃষিবিজ্ঞানে A- গ্রেড থাকতে হবে।
প্রাণিবিদ্যার ক্ষেত্রেও জীববিজ্ঞান A- গ্রেড থাকতে হবে।
মাইক্রোবায়োলজির জন্য রসায়ন ও জীববিজ্ঞানে A+ থাকতে হবে।ইংরেজিতে অবশ্যই A- থাকতে হবে।
বায়োটেকনোলজির ক্ষেত্রে রসায়ন, পদার্থ, জীব এবং গণিতে A গ্রেড থাকতে হবে।এক্ষেত্রে আরও একটি শর্ত রয়েছে সেটা হলো ভর্তি পরীক্ষায় বিষয়ভিত্তিক অংশে পৃথকভাবে নূন্যতম ৫০% নম্বর পেতে হবে।
পাবলিক হেলথ সাবজেক্টটি পাওয়ার জন্য রসায়ন, জীববিজ্ঞান এবং গণিতে A গ্রেড থাকতে হবে।

তাই,জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বিবদ্যালয়ের ডি ইউনিটে চান্স পাওয়ার জন্য অবশ্যই এইচএসসি রেজাল্ট ভালো করতে হবে।
এই যোগ্যতাগুলো ২০২০-২১ সালের বিজ্ঞপ্তিতে দেওয়া হয়েছে। তোমাদের ধারণা দেওয়ার জন্য জানিয়ে দিলাম যেন এখন থেকেই ভালোভাবে প্রস্তুতি নিতে পারো।প্রতবছরই বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বিভিন্নরকম যোগ্যতা চেয়ে থাকে সেটা বর্তমানের চেয়ে ভবিষ্যতে আরও কঠিন হওয়ার সম্ভাবনা কিন্তু থেকেই যায়।জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটে পড়তে চাইলে যোগ্যতা অর্জন করো।

এই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিটে চান্স পাওয়ার জন্য অসংখ্য ছাত্র/ছাত্রী আবেদন করে থাকে।তাই,তোমার আসনটি নিশ্চিত করার জন্য সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে হবে।এছাড়াও যারা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছো তাদের জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ইউনিট সেকেন্ড বেস্ট অপশন।

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment

x