আজকে আমরা আলোচনা করব কিভাবে দারাজ থেকে আয় করা যায়। অনলাইন থেকে আয়ের কথা শুনলে প্রথমেই মাথায় আপওয়ার্ক কিংবা অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোতে ক্লায়েন্ট ভিত্তিক কাজের কথা আসে।

অনেকে আবার কাজের দক্ষতার অভাবে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে বিজ্ঞাপনকে ভেবে বসে।

এসব নিয়মে আয় করতে ব্যর্থ হয়ে অনেকেই প্রচুর হতাশায় ভোগেন। কারণ বাংলাদেশ থেকে বর্তমানে আপওয়ার্ক বা অন্যান্য মার্কেটপ্লেসগুলিতে অ্যাকাউন্ট করা মোটামুটি কঠিন।

অন্যদিকে বিজ্ঞাপন থেকে উপার্জন করা সম্ভব হলেও তাকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার কোন যুক্তি নেই। আমাদের সকলেরই এটি বুঝে নেওয়া দরকার যে, অনলাইন থেকে আয়ের জন্য নির্ধারিত কোন নিয়ম নেই।

আপনি আপনার যে কোন কাজের বিনিময়েই অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। আজকের পোষ্টে আমরা দারাজ ডট কম থেকে ইনকাম করার উপায় নিয়ে কথা বলব যা সম্প্রতি বাংলাদেশে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

দারাজ ডট কম (Daraz.com) থেকে আয়

বাংলাদেশে ই-কমার্স ইন্ডাস্ট্রি খুব দ্রুত লাভ করে চলেছে। দারাজ মূলত একটি ই-কমার্স স্টোর। যা 20+ রও বেশি ক্যাটাগরিতে 10 মিলিয়নেরও বেশি পণ্য সরবরাহ করে।

বৈদ্যুতিন ডিভাইস থেকে শুরু করে হোম অ্যাপ্লায়েন্সস, স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য থেকে গ্রোসারি এবং শিশুর পণ্য ইত্যাদি – যা তাদের অনলাইন স্টোরে পাওয়া যায়। স্টোরটি প্রতি মাসে 2 মিলিয়ন প্যাকেজ সরবরাহ করে এবং শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মায়ানমার, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানে এর শাখা রয়েছে।

দ্রুত বিতরণ, ঝামেলা-মুক্ত রিটার্ন এবং ফেরত, গ্রাহক সমর্থন এবং আরও অনেক বিষয়ে তাদের গ্রাহককেন্দ্রিক নীতিগুলি দারাজকে অনেক গ্রাহকের পছন্দের অনলাইন শপিং গন্তব্যে পরিণত করেছে।

বর্তমানে মানুষ তার চাহিদার সকল প্রোডাক্টই অনলাইন থেকে ক্রয় করতে পছন্দ করে। বাংলাদেশের প্রায় সবাই এখন দারাজ ডট কমের সাথে পরিচিত। তাই আপনি সহজেই দারাজ থেকে আয় করতে পারবেন।

বাংলাদেশের ই-কমার্স ইন্ডাস্ট্রিতে Daraz.com তাদের সাফল্যের মাইলফলক স্থাপন করেছে। বাংলাদেশে প্রতিদিন তাদের হাজার হাজার প্রোডাক্ট বিক্রি হচ্ছে। আপনি চাইলেই খুব সহজে দারাজ ডট কম থেকে আয় করতে পারবেন।

যেভাবে আয় হবে

দারাজ থেকে আয় করার জন্য রয়েছে দারাজের অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রাম, যা ওয়েবসাইট / ব্লগের মালিকদের ট্রাফিক বাড়িয়ে দিতে পারে। দারাজের অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রাম এর সদস্য হয়ে দারাজের বিক্রির পণ্যের উপর আপনি ৯% পর্যন্ত কমিশন পেতে পারেন।

যারা অ্যাফিলিয়েশন সম্পর্কে জানেন না তাদের বলতে চাই, অ্যাফিলিয়েশন হল এক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং।

আপনার মাধ্যমে কোন ক্রেতা যদি দারাজ ডট কম থেকে কোন প্রোডাক্ট ক্রয় করে তাহলে দারাজ ডট কম আপনাকে বিক্রিত প্রোডাক্টের উপর নির্ধারিত কিছু অংশ কমিশন দিবে।

আপনি পণ্যটি তৈরি করেন নি কিন্তু আপনি পণ্যটি বিক্রি করতে দারাজ ডট কমকে সাহায্য করেছেন। তাই দারাজ ডট কম থেকে আপনাকে পুরস্কিত করবে।

আপনার যা করণীয়

দারাজ থেকে আয় করার জন্য আপনার একটি ওয়েবসাই বা ব্লগ থাকতে হবে। তারপর আপনাকে দারাজ ডট কমের অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রামের সদস্য হতে হবে।অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রামের সদস্য হতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন –

https://partner.daraz.com

দারাজ অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামের সদস্য হওয়ার পর আপনাকে আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগটির বিষয়ের সাথে মিল রেখে দারাজ থেকে বিভিন্ন প্রোডাক্ট সিলেক্ট করতে হবে।

মনে করুন আপনার ওয়েবসাইটটি যদি মোবাইলের বিষয় নিয়ে হয়ে থাকে তাহলে আপনি বিভিন্ন মোবাইল , ব্যাটারি, চার্জার, হেডফোন, ব্লুটুথ, ফোনের কভার ইত্যাদি প্রোডাক্ট সিলেক্ট করতে পারেন।

বা রান্না বান্না বিষয়ক হয়ে থাকলে রান্নার বিভিন্ন উপাদন বা কিচেনে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রোডাক্ট যেমন-পেশার কুকার, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার, স্যুপ সেট, ডিনার সেট ইত্যাদি প্রোডাক্ট সিলেক্ট করতে পারেন। এরপর ওই প্রোডাক্টটি নিয়ে আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে সুন্দরভাবে কিছু আর্টিকেল তৈরি করুন।

আপনি যদি একটি মোবাইল ফোন সিলেক্ট করে থাকেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে সে মোবাইল ফোনের বিভিন্ন ভালো দিক, কেন সেটি দারাজ ডট কম থেকে ক্রয় করলে ক্রেতা লাভবান হবে ইত্যাদি বিষয় নিয়ে লিখুন।

লিখা শেষে আপনার অ্যাফিলিয়েট লিংকটি দিয়ে দিন। যদি ক্রেতা প্রোডাক্টটি সম্পর্কে জানতে বা কিনতে আগ্রহী হয়ে থাকে তাহলে সে অবশ্যই লিংকে ক্লিক করবে এবং দারাজ ডট কম থেকে ক্রয় করবে।

আপনি যেহেতু প্রোডাক্টটি বিক্রি করতে সহায়তা করেছেন তাই প্রোডাক্টটি বিক্রি হয়ে গেলেই আপনি আপনার কমিশন পেয়ে যাবেন।

পেমেন্ট প্রসেস ও অন্যান্য সুবিধা

Daraz.com কম থেকে ইনকাম করার জন্য অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রামে যোগ দিলে যে সকল সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায় তার মধ্যে অন্যতম হলো:

  • বিক্রিত পণ্যের উপর শতকরা ৯% কমিশন পাওয়া যায়। এর অর্থ হলো, আপনি যদি এমন কোন প্রোডাক্ট সিলেক্ট করেন যার মূল্য ১০০০ টাকা এবং কমিশন ৯% । তাহলে কোন ক্রেতা যদি আপনার ওয়েবসাইটের লিঙ্কে প্রবেশ করে সেটি ক্রয় করে,তাহলে প্রতিবার বিক্রি করার সময় আপনি ৯০ টাকা করে কমিশন লাভ পাবেন ।
  • যদি কোন গ্রাহক আপনার লিংক থেকে দারাজ ডট কমে যায় তাহলে উক্ত গ্রাহক তার পরবর্তী ৩০ দিনের মধ্যেও যদি সরাসরি দারাজ ডট কমে যেয়ে প্রোডাক্টটি ক্রয় করে তাহলেও আপনি আপনার কমিশন পাবেন।
  • বাংলাদেশের যে কোন ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি আপনার কমিশন গ্রহণ করতে পারবেন।
  • আপনি অ্যাফিলিয়েশন প্রোগ্রামে যোগ দেন তবে আপনাকে সব সময় সহযোগীতা করার জন্য দারাজের রয়েছে একদল দক্ষ সাপোর্ট টিম।
  • আপনার ওয়েবসাইট থেকে আসা গ্রাহকদের বিভিন্ন তথ্য দেখার ও যাচাই করার শক্তিশালি ড্যাশবোর্ড রয়েছে।
  • তাছাড়া অ্যাফিলিয়েশনের পাশাপাশি আপনি তাদের অ্যাড পার্টনারশীপ প্রোগ্রাম পাবেন। যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে তাদের দেয়া বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখিয়ে আয় করতে পারবেন।

অ্যাফিলিয়েশন কনসেপ্ট অনলাইনে নতুন কোন বিষয় নয়। তবে ইংরেজী ভাষায় একটি ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাংক করাতে হলে অনেক পরিশ্রম এবং দক্ষতা প্রয়োজন।

তাছাড়া এভাবে কাজের জন্য অনেক বেশি বিনিয়োগও করতে হয়। কারণ ইংরেজী ভাষায় দক্ষতার অভাবের কারণে আমাদের সাধারণত বাইরের কোন ফ্রিল্যান্সারকে দিয়ে কন্টেন্ট লেখাতে হয় যা সাধারণত অনেক বেশি ব্যয়বহুল।

তার চেয়ে অনেক কম টাকা খরচ করে একটি বাংলা ওয়েবসাইট দাঁড় করিয়ে নিজের আর্টিকেল নিজে লিখে প্রোডাক্ট বিক্রির মাধ্যমে দারাজ ডট কম থেকে আয় করা সম্ভব।

তাহলে বন্ধুরা আজ এখানেই থাকল। কীভাবে দারাজ থেকে আয় করতে পারবেন আশা করি সে সম্পর্কে কিছুটা হলেও ধারণা দিতে পেরেছি। ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না কিন্তু। আর যদি কোন কিছু জানার বা অভিযোগ থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আমরা উওর দেওয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। ধন্যবাদ।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x