Data শব্দটি ল্যাটিন শব্দ Datum শব্দের বহুবচন। Datum অর্থ হচ্ছে তথ্যের উপাদান। তথ্যের অন্তর্গত ক্ষুদ্রতর অংশসমূহ হচ্ছে ডেটা বা উপাত্ত। প্রক্রিয়াকরণের পর সুনির্দিষ্ট ফলাফল পাওয়ার জন্য ব্যবহৃত ইনপুটসমূহকে উপাত্ত বা ডেটা বলে। সংক্ষেপে বলা যায়, প্রাথমিকভাবে সংগৃহীত অসংঘবদ্ধ তথ্যকে ডেটা বলে। ডেটা বর্ণ, সংখ্যা ও চিহ্নের সমন্বয়ে গঠিত হয়।

ডেটা প্রধানত তিন প্রকার। যথাঃ
ক) নিউমেরিক ডেটা
খ) নন-নিউমেরিক ডেটা
গ) বুলিয়ান ডেটা।

ক) নিউমেরিক ডেটাঃ যে সব ডেটা শুধু সংখ্যা প্রকাশ করে বা শুধু সংখ্যা দ্বারা গঠিত তাদেরকে নিউমেরিক ডেটা বলে। যেমন- ৫, ১০, ১৫ ইত্যাদি। নিউমেরিক ডেটাকে আবার দুভাগে ভাগ করা যায় । যথাঃ ইন্টিজার ও ফ্লোটিং পয়েন্ট।

খ) নন-নিউমেরিক ডেটাঃ যেসব ডেটা কোনাে সংখ্যা প্রকাশ না করে কোনাে অক্ষর বা স্ট্রিং প্রকাশ করে তাদেরকে নন-নিউমেরিক ডেটা বলে। যেমন- জামী, সামী ইত্যাদি নাম। নন – নিউমেরিক ডেটাকে আবার তিনভাগে ভাগ করা যায়। যথাঃ ক্যারেক্টার, স্ট্রিং ও অবজেক্ট।

গ) বুলিয়ান ডেটাঃ যে সকল ডেটার মান শুধুমাত্র দুটি অবস্থায় থাকতে পারে, যেমন- সত্য বা মিথ্যা, হ্যা বা না, ০ অথবা ১ ইত্যাদি সে সকল ডেটাকে বুলিয়ান বা লজিক্যাল ডেটা বলা হয়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x