b

অ্যাবাকাস কি? What is Abacus?

অ্যাবাকাস সবচেয়ে প্রচীন গণনাযন্ত্র, যার মধ্যে গুটি (Beads) ব্যবহৃত হয়। গুটিগুলাে একটি ফ্রেমের উপর বসানাে তারের মধ্যে লাগানাে থাকে। এখনও পৃথিবীর অনেক জায়গায় অ্যাবাকাস ব্যবহার করা হয়। অ্যাবাকাস কখন কোন দেশে প্রথম চালু হয় তা সঠিকভাবে জানা যায়নি। তবে খ্রীষ্টপূর্ব পাঁচশত অব্দে চিনে অ্যাবাকাসের প্রচলন ছিল বলে অনেকে মনে করেন। প্রাচীন গ্রীসেও এই যন্ত্রের ব্যবহার ছিল। যদিও চিনে অ্যাবাকাসের প্রথম প্রচলন ছিল বলে মনে করাে হয়, তবুও ত্রয়ােদশ শতাব্দির আগে এটা চিন দেশে খুব ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়নি। পঞ্চদশ শতাব্দিতে এটা জাপানে প্রবর্তিত হয় এবং তার একটি পরিমার্জিত সংস্করণ উনবিংশ শতাব্দিতেও ব্যবহৃত হত। চিনে অ্যাবাকাসকে বলা হয় সুয়ান পান (Suan-pan), জাপানে একে বলা হয় সরােবান (Soroban) এবং রাশিয়াতে বলা হয় স্কেটিয়া (Sketia)।

অ্যাবাকাস কি? What is Abacus?

চিনা অ্যাবাকাস যন্ত্রে ৭টি দন্ড থাকে। প্রত্যেক দন্ডের উপরের অংশে দুইটি এবং নিচের অংশে পাঁচটি করে গুটি থাকে। আড়াআড়ি একটি ফ্রেমের সাহায্যে উপরের ও নিচের অংশ আলাদা করা থাকে। উপরের প্রতিটি গুটির মান পাঁচ এবং নিচের প্রতিটি গুটির মান এক। উপরের গুটিগুলাে উপরের ফ্রেমের দিকে এবং নিচের গুটিগুলাে নিচের ফ্রেমের দিকে থাকে। গণনার সময় উপরের গুটিগুলাে মাঝখানের ফ্রেমের দিকে নামিয়ে আনতে হয় এবং নিচের গুটিগুলাে মাঝখানের ফ্রেমের দিকে উঠিয়ে নিতে হয়। এরপর উপরের ও নিচের গুটির মান অনুযায়ী সংখ্যা ধরে গণনার কাজ সম্পন্ন করা হয়।
জাপানি সরােবান চিনা অ্যাবাকাসের মতই। এখানে প্রতিটি দন্ডে গুটির সংখ্যা মােট পাঁচটি। তারমধ্যে উপরের অংশে একটি এবং নিচের অংশে চারটি। উপরের প্রতিটি গুটির মান পাঁচ এবং নিচের প্রতিটি গুটির মান এক। গণনা পদ্ধতি একই।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x