যে জৈবিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে দেহে বিপাক ক্রিয়ায় উৎপন্ন নাইট্রোজেনঘটিত ক্ষতিকর বর্জ্য পদার্থগুলো নিস্কাশিত হয় তাকে রেচন বলে। দেহের এসব বর্জ্য পদার্থ শরীরে কোনো কারণে জমতে থাকলে দেহে নানারকমের অসুখ দেখা দেয় এবং পরবর্তীতে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

নেফ্রন ও নিউরোন এর মধ্যে পার্থক্য কি?

নেফ্রন ও নিউরোন এর মধ্যে পার্থক্য নিচে দেওয়া হলোঃ

নেফ্রন

  • বৃক্কের গঠনগত ও কার্যগত একককে নেফ্রন বলে।
  • এটি ভ্রূণীয় মেসোডার্ম থেকে উৎপত্তি হয়।
  • এটি কেবল বৃক্কে পাওয়া যায়।
  • এটি রেনাল করপাসল ও রেনাল টিউব্যুল নিয়ে গঠিত।
  • নেফ্রন তিন প্রকার- সুপার কর্টিকাল, মিডকর্টিকাল ও ডাক্সটামেডুলারি।
  • এটি রক্তশোধন করে নাইট্রোজেনঘটিত বর্জ্যসহ মূত্র তৈরি করা।
নিউরোন
  • স্নায়ুতন্ত্রের গঠনগত ও কার্যগত একককে নিউরোন বলে।
  • এটি ভ্রূণীয় এক্টোডার্ম থেকে উৎপত্তি হয়।
  • এটি সমগ্র দেহে পাওয়া যায়।
  • এটি সোমা, অ্যাক্সন ও ডেনড্রাইট নিয়ে গঠিত।
  • নিউরোন পাঁচ প্রকার- অ্যাপোলোর, ইউনিপোলার, সিউডো-ইউনিপোলার, বাইপোলার ও মাল্টিপোলার।
  • এটি স্নায়ু উদ্দীপনা গ্রহণ, প্রেরণ ও প্রতিবেদন সৃষ্টি করা।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x