অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ করার জন্য যে নেটওয়ার্ক তৈরি করা হয় তাকে ইন্ট্রানেট (Intranet) বলে। বড় বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন দপ্তর ভৌগলিকভাবে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে। এসব ক্ষেত্রে নিজেদের মধ্যে সংস্থাপিত ইন্ট্রানেট ব্যবহৃত হয়। এটি শুধুমাত্র তাদের প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী/কর্মকর্তা ব্যবহার করতে পারেন। বর্তমানে এটি বহুল ব্যবহৃত হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আইসিটির ভূমিকা ব্যাখ্যা করো।

মানুষ সামাজিক জীব। বর্তমানে সমাজে চলাফেরা ও বিকাশের জন্য মানুষে মানুষে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে পরিচালিত ভার্চুয়াল জগৎ। এই ভার্চুয়াল জগতের মানুষ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে একে অপরের সাথে যোগাযোগ ও ভাব প্রকাশ, বিনিময় কিংবা আদান-প্রদান করে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিকাশের ফলে বর্তমানে এই যোগাযোগ হয়ে পড়েছে সহজ, সাশ্রয়ী এবং অনেক ক্ষেত্রে নিরাপদ। বর্তমানে মানুষের সাথে মানুষের যোগাযোগের অন্যতম প্রধান মাধ্যমে পরিণত হয়েছে এই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম সমূহ।

ইন্টারনেট ব্যবহার, ই-মেইল, মোবাইল ফোন ও ম্যাসেজিং, ব্লগিং এবং ফেসবুক ও টুইটারের মত সামাজিক যোগাযোগ প্লাটফর্মসমূহ ব্যবহার করে বর্তমানে আইসিটি ভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ এখন অনেকাংশে সহজ ও আনন্দদায়ক।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x