প্রশ্ন-১. পৃথিবীর সকল শক্তির উৎস কী?

উত্তর : পৃথিবীর সকল শক্তির উৎস সূর্য।

প্রশ্ন-২. ব্রাইন কাকে বলে?

উত্তর : সোডিয়াম ক্লোরাইডের সম্পৃক্ত দ্রবণকে ব্রাইন বলে। ব্রাইনকে অ্যামোনিয়া দ্বারা সম্পৃক্ত করা হয়।

প্রশ্ন-৩. বিদ্যুৎ পরিবহনের কৌশলের উপর ভিত্তি করে পরিবাহী কত প্রকার?

উত্তর : দুই।

প্রশ্ন-৪. ব্যাটারি কি? (What is a battery?)

উত্তর : ব্যাটারি এক ধরনের তড়িৎ রাসায়নিক কোষ।

প্রশ্ন-৫. ফসিল ফুয়েল কাকে বলে?

উত্তর : খনিতে যে জ্বালানি পাওয়া যায় তাকে ফসিল ফুয়েল বা জীবাশ্ম জ্বালানি বলে।

প্রশ্ন-৬. অবিশুদ্ধ জ্বালানি কাকে বলে?

উত্তর : যে সকল জ্বালানির দহনে স্বাস্থ্য ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক পদার্থ তৈরি হয় তাকে অবিশুদ্ধ জ্বালানি বলে।

প্রশ্ন-৮. খনিজমল কী?

উত্তর : বিভিন্ন ধাতুর খনিজে ঐ ধাতু ছাড়াও যে বিভিন্ন অপদ্রব্য মিশ্রিত থাকে তাই খনিজমল।

প্রশ্ন-৯. pH কী? (What is the pH?)

উত্তর : কোন দ্রবণের হাইড্রোজেন আয়নের (H+) মােলার ঘনমাত্রার ঋণাত্মক লগারিদমকে ঐ দ্রবণের pH বলে।

প্রশ্ন-১০. লবণ সেতু কাকে বলে?

উত্তর : দুটি তড়িৎদ্বারের মধ্যে পরােক্ষ সংযােগের জন্য বাঁকা কাঁচনলে লবণের দ্রবণ পূর্ণ যে ব্যবস্থা করা হয় তাকে লবণ সেতু বলে।

প্রশ্ন-১১. গাঁজন কাকে বলে?

উত্তর : যে প্রক্রিয়ায় এনজাইমের উপস্থিতিতে জটিল জৈব যৌগকে ভেঙ্গে ক্ষুদ্রতম জৈব অণুতে পরিণত করা হয় তাকে গাঁজন বলে।

প্রশ্ন-১২. পেট্রোলিয়াম কাকে বলে?

উত্তর : খনিতে তরল জ্বালানি হিসেবে যে পদার্থ পাওয়া যায় তাকে পেট্রোলিয়াম বলে।

প্রশ্ন-১৩. গোল্ড প্লেটিং কাকে বলে?

উত্তর : ধাতুর তৈরি কোনো বস্তুর উপর তড়িৎ বিশ্লেষণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গোল্ড তথা সোনার প্রলেপ দেওয়াকে গোল্ড প্লেটিং (Gold Plating) বলে।

প্রশ্ন-১৪. ক্যাথোড তড়িৎদ্বার কী?

উত্তর : তড়িৎ রাসায়নিক কোষের যে তড়িৎদ্বারে বিজারণ বিক্রিয়া সম্পন্ন হয় তাকে ক্যাথোড তড়িৎদ্বার বলে।

প্রশ্ন-১৫. গ্যালভানিক কোষ কাকে বলে?

উত্তর : যে তড়িৎ রাসায়নিক কোষে বিক্রিয়া সংগঠনের জন্য বাহির থেকে শক্তির দরকার হয় না, এর রাসায়নিক শক্তি বিদ্যুৎ শক্তিতে পরিণত হয় তাকে গ্যালভানিক কোষ বলে।

প্রশ্ন-১৬. নিরাপদ জ্বালানি বলতে কী বোঝ?

উত্তর : যে সকল জ্বালানি ব্যবহার করলে পরিবেশের ও জীবজগতের কোন ক্ষতি হয় না তাকে নিরাপদ জ্বালানি বলে।

প্রশ্ন-১৭. নিউক্লিয়ার ফিসন বিক্রিয়া কাকে বলে?

উত্তর : যে নিউক্লিয়ার বিক্রিয়ায় দ্রুত গতিশীল ও উচ্চ শক্তিসম্পন্ন কোন কণার আঘাতে একটি বৃহদাকার নিউক্লিয়াস ভেঙে একাধিক কাছাকাছি ভরের ক্ষুদ্রতর নিউক্লিয়াসে পরিণত হয়, তাকে নিউক্লিয়ার ফিসন বিক্রিয়া বলে।

ইলেকট্রোপ্লেটিং এর প্রয়োজনীয়তা লিখ।

উত্তর : কোন ধাতু বা ধাতুর তৈরি জিনিসপত্র মরিচা রোধ করতে ইলেকট্রোপ্লেটিং করা হয়।

 

  • ইলেকট্রোপ্লেটিং করার ফলে লোহার তৈরি জিনিসপত্র ক্ষয়প্রাপ্ত হয় না।
  • এর ফলে ধাতুর তৈরি বস্তুটি উজ্জ্বল ও চকচকে দেখায়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x