পড়াশোনা

ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেম কি? এর সুবিধা ও অসুবিধা (Open source operating system)

1 min read

ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেম বলতে ওই সমস্ত অপারেটিং সিস্টেমকে বােঝায় যাদের সাের্স কোড উন্মুক্ত থাকে এবং যার ফলে যে কেউ চাইলে ওই অপারেটিং সিস্টেমটি নিয়ে যেকোনাে গবেষণা, এর কোনাে উন্নয়ন, পরিবর্ধন, পরিমার্জন এর কাজগুলাে করতে পারেন। একটি সফটওয়্যার লাইসেন্সের অধীনে (GPL/LGPL, BSD, BSD/CDDL, APSL প্রভৃতি) এর কপিরাইটসহ অন্যান্য অধিকারগুলাে সংরক্ষিত হয়। ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেমগুলাে সাধারণত বিনামূল্যে ও নির্দিষ্ট শর্তাধীনে ব্যক্তিগত ও বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করা যায়। ইন্টারনেট থেকে এগুলাে খুব সহজেই ডাউনলােড করে ব্যবহার করা যায়। ওপেন সাের্স ভিত্তিক কিছু অপারেটিং সিস্টেম আবার বাণিজ্যিকভাবে বাজারে কিনতেও পাওয়া যায়। তবে এগুলাের দাম অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমের চাইতে অনেক কম হয়ে থাকে।

বিনামূল্যে কিংবা স্বল্পমূল্যের হওয়ার কারণে আজ বিশ্বজুড়ে ওপেন সাের্সভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেমগুলাের ব্যবহার ক্রমশ বেড়ে চলেছে। অসংখ্য উদ্দ্যমী প্রােগ্রামার কিংবা কোনাে প্রােগ্রামার গ্রুপের নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে প্রতিনিয়ত এসব অপারেটিং সিস্টেমের উন্নয়ন সাধিত হওয়ায় নানা সুবিধা ও বৈশিষ্ট্য এগুলােতে যােগ হচ্ছে এবং ফলশ্রুতিতে এগুলাে আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তা লাভ করছে। জনপ্রিয় ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে রয়েছে উবুন্ট লিনাক্স (Ubuntu Linux), লিনাক্স মিন্ট (Linux Mint), গুগল ক্রোম ওএস (Google Chrome OS), ডেবিয়ান লিনাক্স, ফেডােরা লিনাক্স, রেডহ্যাট এন্টারপ্রাইজ লিনাক্স, ফ্রিবিডিএস, ওপেনবিডিএস, ওপেনসােলারিস, মিনিক্স প্রভৃতি অন্যতম।

কম্পিউটারের পাশাপাশি স্মার্টফোনগুলাের বেশিরভাগ অপারেটিং সিস্টেমই ওপেন সাের্সভিত্তিক। এগুলাের মধ্যে অ্যাকসেস লিনাক্স প্লাটফর্ম, অ্যানড্রয়েড, বাডা, ওপেনমােকো লিনাক্স, ওফোন, মিগো, মােবিলিনাক্স, লিমাে প্লাটফর্ম, ওয়েবওএস প্রভৃতি অন্যতম।

ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেম এর সুবিধা
 

  • বিনামূল্যে বা স্বল্পমূল্যে পাওয়া যায়।
  • নিরাপত্তা ব্যবস্থা শক্তিশালী।
  • ব্যবহারকারী তার প্রয়ােজন মতাে সহজে কাস্টমাইজ করতে পারেন।
  • ভেন্ডরদের কাছে ব্যবহারকারীরা কম নির্ভরশীল।

ওপেন সাের্স অপারেটিং সিস্টেম এর অসুবিধা

  • সাধারণত বাণিজ্যিকভাবে এ ধরণের সফটওয়্যার তৈরি করা হয় না বিধায় এর বড় কোন উন্নয়ন হওয়ার নিশ্চয়তা থাকে না।
  • প্রতিযােগিতা থাকে না বিধায় ব্যবহারকারীদের জন্য সমৃদ্ধ অনেক ফীচার অন্তর্ভুক্ত থাকে না।
  • ট্রাবলশুটিং করার জন্য সুনিশ্চিত সার্ভিস কম পাওয়া যায়।
  • কপিরাইট থাকে না বিধায় একজনের উন্নয়ন করা অংশের দাবিদার আরেকজন হতে পারে। আইপি (ইনটেলুকচুয়াল প্রােপার্টি) ব্যবস্থাপনায় সমস্যা দেখা দিতে পারে।
Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment