প্রশ্ন-১. সিকান্দার আবু জাফর কত সালে জন্মগ্রহণ করেন?

উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর ১৯১৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন।

প্রশ্ন-২. সিকান্দার আবু জাফর কত তারিখে মারা যান?

উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর ১৯৭৫ সালের ৫ই আগস্ট মারা যান।

প্রশ্ন-৩. লবণের ইজারাদার কে?

উত্তর : লবণের ইজারাদার কুঠিয়াল ইংরেজ।

 

প্রশ্ন-৪. ঘসেটি বেগম সম্পর্কে নবাবের কী হতেন?

উত্তর : ঘসেটি বেগম সম্পর্কে নবাবের খালা হতেন।

প্রশ্ন-৫. সিরাজউদ্দৌলা কোথায় বন্দি হয়েছিলেন?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা ভগবানগোলায় বন্দি হয়েছিলেন।

 

প্রশ্ন-৬. সিরাজউদ্দৌলা কোন সৈন্যদের হাতে বন্দি হয়েছিলেন?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা মির কাসেমের সৈন্যদের হাতে বন্দি হয়েছিলেন।

প্রশ্ন-৭. ‘গোলন্দাজ’ কারা?

উত্তর : গোলন্দাজ হলো কামান দাগিয়ে গোলা নিক্ষেপকারী সৈনিক।

প্রশ্ন-৮. কে ইংরেজদের এদেশে বাণিজ্য করার অনুমতি দিয়েছেন?

উত্তর : নবাব আলিবর্দি খাঁ ইংরেজদের এদেশে বাণিজ্য করার অনুমতি দিয়েছেন।

 

প্রশ্ন-৯. সিরাজউদ্দৌলার নানার নাম কী?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলার নানার নাম আলিবর্দি খাঁ।

প্রশ্ন-১০. পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের কামান ছিল কতটি?

উত্তর : পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে কামান ছিল দশটি।

প্রশ্ন-১১. পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে কামান ছিল কতটি?

উত্তর : পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে  কামান ছিল ৫৩ টি।

 

প্রশ্ন-১২. সিরাজউদ্দৌলার প্রধান গুপ্তচর কে?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলার প্রধান গুপ্তচর হলো নারান সিং।

প্রশ্ন-১৩. নবাব কাকে কোম্পানি ও প্রত্যেক ইংরেজের ব্যক্তিগত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন?

উত্তর : নবাব রায়দুর্লভকে কোম্পানি ও প্রত্যেক ইংরেজের ব্যক্তিগত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন।

প্রশ্ন-১৪. সিরাজউদ্দৌলা রায়দুর্লভকে কোথায় আগুন ধরিয়ে দিতে নির্দেশ দেন?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা রায়দুর্লভকে গোটা ফিরিঙ্গি পাড়ায় আগুন ধরিয়ে দিতে নির্দেশ দেন।

 

প্রশ্ন-১৫. সিকান্দার আবু জাফর কোন জেলায় জন্মগ্রহণ করেন?

উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর সাতক্ষীরা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন।

প্রশ্ন-১৬. কে কোম্পানির টাকার জন্যে ইংরেজদের হয়ে যুদ্ধ করেছেন?

উত্তর : ওয়ালি খান কোম্পানির টাকার জন্যে ইংরেজদের হয়ে যুদ্ধ করেছেন।

প্রশ্ন-১৭. কারা গঙ্গার দিকটার ফটক ভেঙে পালিয়ে গেছে?

উত্তর : একদল ডাচ সৈন্য গঙ্গার দিকটার ফটক ভেঙে পালিয়ে গেছে।

 

প্রশ্ন-১৮. ‘ব্রিটিশ সিংহ ভয়ে লেজ গুটিয়ে নিলেন– এ বড় লজ্জার কথা।’ এ সংলাপটি কার?

উত্তর : ‘ব্রিটিশ সিংহ ভয়ে লেজ গুটিয়ে নিলেন– এ বড় লজ্জার কথা।’ এ সংলাপটি উমিচাঁদের।

প্রশ্ন-১৯. নবাব সিরাজউদ্দৌলার সেনাধ্যক্ষ কে ছিলেন?

উত্তর : নবাব সিরাজউদ্দৌলার সেনাধ্যক্ষ ছিলেন রাজা মানিকচাঁদ।

 

 

প্রশ্ন-২০. নবাবের সৈন্যরা কোন ছাউনি ছারখার করে দিয়েছে?

উত্তর : নবাবের সৈন্যরা পেরিন্স পয়েন্টের ছাউনি ছারখার করে দিয়েছে।

প্রশ্ন-২১. সিরাজউদ্দৌলার ট্র্যাজিক ইতিহাস নিয়ে প্রথম নাটক রচনা করেন কে?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলার ট্র্যাজিক ইতিহাস নিয়ে প্রথম নাটক রচনা করেন গিরিশচন্দ্র ঘোষ।

প্রশ্ন-২২. নবাব কোথায় মসজিদ তৈরির নির্দেশ দেন?

উত্তর : নবাব নাসারার দুর্গে মসজিদ তৈরির নির্দেশ দেন।

 

প্রশ্ন-২৩. উমিচাঁদ কার মুক্তির জন্যে সিরাজউদ্দৌলার কাছে অনুরোধ করেন?

উত্তর : উমিচাঁদ কৃষ্ণবল্লভের মুক্তির জন্যে সিরাজউদ্দৌলার কাছে অনুরোধ করেন।

প্রশ্ন-২৪. সিরাজউদ্দৌলা কোথা থেকে ইংরেজদের বিতাড়িত করেন?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা কলকাতা থেকে ইংরেজদের বিতাড়িত করেন।

প্রশ্ন-২৫. পলাশি কোন নদীর তীরে অবস্থিত?

উত্তর : পলাশি গঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত।

 

প্রশ্ন-২৬. কিলপ্যাট্রিক কতজন সৈন্য নিয়ে জাহাজে হাজির হয়েছেন?

উত্তর : কিলপ্যাট্রিক ২৫০ জন সৈন্য নিয়ে জাহাজে হাজির হয়েছেন।

প্রশ্ন-২৭. কার হটকারিতার জন্যে ইংরেজ সৈন্যদের দুর্ভোগ?

উত্তর : ড্রেকের হটকারিতার জন্যে ইংরেজ সৈন্যদের দুর্ভোগ।

প্রশ্ন-২৮. কে নিজের স্বার্থ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিপদের ঝুঁকি নিতে নারাজ?

উত্তর : জগৎশেঠ নিজের স্বার্থ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিপদের ঝুঁকি নিতে নারাজ।

 

প্রশ্ন-২৯. কী অমান্য করা রাজদ্রোহিতার শামিল?

উত্তর : নবাবের হুকুম অমান্য করা রাজদ্রোহিতার শামিল।

প্রশ্ন-৩০. কে নবাবের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সেনাপতি ছিলেন?

উত্তর : মোহনলাল নবাবের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সেনাপতি ছিলেন।

প্রশ্ন-৩১. কলকাতায় ওয়াটস এবং ক্লাইভ কীসের সন্ধি গোপন করেছে?

উত্তর : কলকাতায় ওয়াটস এবং ক্লাইভ আলীনগরের সন্ধি গোপন করেছে।

 

প্রশ্ন-৩২. মিরজাফর কী ছুঁয়ে প্রতিজ্ঞা করেছিল?

উত্তর : মিরজাফর পবিত্র কোরআন শরীফ ছুঁয়ে প্রতিজ্ঞা করেছিল।

প্রশ্ন-৩৩. মানিকচাঁদ কত টাকা খেসারত দিয়ে মুক্তি পেয়েছিল?

উত্তর : মানিকচাঁদ দশ লক্ষ টাকা খেসারত দিয়ে মুক্তি পেয়েছিল।

প্রশ্ন-৩৪. কার একটি মাত্র দিন হলেও মসনদে বসার বড় আকাঙ্ক্ষা?

উত্তর : মিরজাফরের একটি মাত্র দিন হলেও মসনদে বসার বড় আকাঙ্ক্ষা।

 

প্রশ্ন-৩৫. চুক্তি অনুসারে সিরাজউদ্দৌলার পতন হলে কোম্পানি কত টাকা পাবে?

উত্তর : চুক্তি অনুসারে সিরাজউদ্দৌলার পতন হলে কোম্পানি এক কোটি টাকা পাবে।

প্রশ্ন-৩৬. সন্ধি অনুযায়ী মিরজাফর মসনদে বসলেও রাজ্য চালাবে কে?

উত্তর : সন্ধি অনুযায়ী মিরজাফর মসনদে বসলেও রাজ্য চালাবে কোম্পানি।

প্রশ্ন-৩৭. সিরাজউদ্দৌলা কার নিকট থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন?

উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা ঘসেটি বেগমের নিকট থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন।

 

প্রশ্ন-৩৮. পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?

উত্তর : পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে তিন হাজার সৈন্য ছিল।

প্রশ্ন-৩৯. পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?

উত্তর : পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে পঞ্চাশ হাজারের বৈশি সৈন্য ছিল।

By admin

3 thoughts on “সিরাজউদ্দৌলা নাটকের প্রশ্ন ও উত্তর”
  1. ১০ নং প্রশ্নের উত্তর ভুল ৷
    উত্তর হবে ৮টি ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x