পড়াশোনা
1 min read

ভিওআইপি (VOIP) কি? কিভাবে ভিওআইপি কাজ করে?

VOIP এর পূর্ণরূপ হলো- Voice Over Internet Protocol। এটি ইন্টারনেটের মাধ্যমে কথা বলার এক ধরণের মাধ্যম। ইন্টারনেট টেকনােলজি এবং মাল্টিমিডিয়া অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে ভয়েস, ডেটা ও ভিডিও আদান-প্রদান করার পদ্ধতিকে VoIP টেকনােলজি বলে। সংক্ষেপে VoIP হচ্ছে ডেটা নেটওয়ার্ক যেমন ইন্টারনেটের মাধ্যমে টেলিফোন কল আদান-প্রদান করার বিশেষ পদ্ধতি।
VoIP ইন্টারনেটের একটি চমকপ্রদ ব্যবহার। প্রচলিত টেলিফোনের মাধ্যমে আমরা যেমন কথা বলতে পারি তেমনি এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে কম্পিউটার দিয়ে এক দেশ থেকে আরেক দেশে ফোনে কথা বলা যায়। এতে খরচ অনেক কম পড়ে।
এ VoIP টেকনােলজি বর্তমানে টেলিযোগাযােগের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। VoIP তে ডেটা নেটওয়ার্ক, ইন্টারনেট বা IP নেটওয়ার্কের মাধ্যমে Real time ভয়েস ডেটা সিগন্যাল আদান-প্রদান করা যায়।
১৯৯৬ সালে আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন (ITU) ইন্টারনেট প্রটোকল ব্যবহার করে ভয়েস ডেটা পাঠানাের স্ট্যান্ডার্ড নির্ধারণ করে দেয়। বর্তমান ইন্টারনেটের হাই স্পীড ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে ডেটা এবং ভয়েস উভই একই কানেকশনের মাধ্যমে আদান প্রদান করা যায়। VoIP এর মাধ্যমে অনেক কম খরচে কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশন ব্যবহার করে পৃথিবীর যে কোন প্রান্তের মানুষের সাথে যতক্ষণ ইচ্ছা কথা বলা যাবে।

VOIP এর ব্যবহার

  • টেলিফোন (Telephone)
  • ফ্যাক্স (Fax)
  • পিএবিএক্স সিস্টেম (PABX System)
  • ডোর ইন্টারকম (Door Intercom)

VOIP অ্যাপ্লিকেশন

  • নেট টু ফোন (Net 2 Phone)
  • এমএসএন ম্যাসেঞ্জার (MSN Messenger)
  • নেটমিটিং (NetMeeting)
  • কুল টক (Cool Talk)
  • স্কাইপি (Skype)

ভিওআইপি কি পদ্ধতিতে কাজ করে?
প্রচলিত পদ্ধতির টেলিফোন Public switiched Telephone Network (PSTN) ব্যবস্থায় Circuit switching পদ্ধতি ব্যবহার করে ডেটা আদান-প্রদান করা হয়। প্রচলিত পদ্ধতির টেলিফোন পদ্ধতিতে সার্কিট সুইচিং ব্যবহার করা হয়। এতে ফোন লাইন ব্যস্ত থাকলে অন্য ব্যবহারকারীকে লাইন ফ্রি না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়।

কিন্তু VOIP টেলিফোনে এ অসুবিধা দূর করার জন্য Circuit switching-এর পরিবর্তে Packet switching পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। VOIP গেটওয়ে PSTN থেকে প্রাপ্ত ভয়েস ডেটাকে সংকুচিত করে প্যাকেট ডিজিটাল সিগন্যালে রূপান্তর করে। অতপর তা IP নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আদান-প্রদান করে। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্যাকেট আকারে ডেটা প্রেরণ করা হয় বলে একই সময় একই চ্যানেল ব্যবহার করে একাধিক কল আদান-প্রদান করা যায়। তাই এ পদ্ধতিতে একই সময়ে বেশি কল করা যায়।

বর্তমানে যে কেউ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী VOIP টেলিফোনের সুযােগ গ্রহণ করতে পারেন। একটি প্রি-ডেইড ফোন কার্ড কিনে নিতে পারেন কিংবা যাদের ক্রেডিট কার্ড আছে তা ব্যবহার করে অনলাইনে VoIP সার্ভারে এ্যাকাউন্ট খুলে এ সুযােগ গ্রহণ করতে পারেন। বিদেশে বন্ধু বান্ধব বা আত্মীয় স্বজনদের সাথে স্বল্প মূল্যে কথা বলতে পারেন। VOIP টেকনােলজির মাধ্যমে ব্যবহারকারী কম্পিউটার থেকে কম্পিউটার, কম্পিউটার থেকে টেলিফোন, টেলিফোন থেকে কম্পিউটার এবং টেলিফোন থেকে টেলিফোনে যােগাযােগ করতে পারবেন।

Rate this post