International
1 min read

জাতিসংঘ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে জাতিসংঘ গঠিত হয়। এটি এমন একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন, যা আন্তর্জাতিক আইন কানুন, বিভিন্ন দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন, সার্বিক নিরাপত্তা বিধান, এবং সর্বপরি মানবাধিকার রক্ষার মত ইত্যাদি বিষয়ে পারস্পরিক সহযোগিতা করে। আজকের আলোচনায় জাতিসংঘ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সন্নিবেশিত করা হল।

জাতিসংঘের নামকরণ

১৯৪২ সালের ১ জানুয়ারি, আটলান্টিক সনদে জাতিসংঘ নামটি ঘোষণা করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট।

জাতিসংঘের পতাকা ও প্রতিক

১৯৪৬ সালে সর্বপ্রথম জাতিসংঘের প্রতীক অনুমোদিত হয়। পরের বছর অর্থাৎ ১৯৪৭ সালে জাতিসংঘের পতাকা গৃহীত হয়। পতাকার রঙ হচ্ছে হালকা নীল ও সাদা। হালকা নীল ও সাদা রংয়ের মাঝখানে একটি বৃত্ত। বৃত্তের মধ্যখানে রয়েছে জাতিসংঘের প্রতিক। পতাকায় জলপাই গাছের পাতা ব্যবহার করা হয়েছে কারণ জলপাই গাছ শান্তির প্রতিক।

জাতিসংঘ সনদ

১১১ টি ধারা এবং ১৯ টি অধ্যায়। সনদের রচয়িতা মার্কিন কবি ও সাহিত্যিক আর্কিবল্ড ম্যাকলিয়েশ(Archibald Macliesh)। এটি প্রথম স্বাক্ষরিত হয় ২৬ জুন, ১৯৪৫ এবং অনুমোদিত হয় ২৬ জুলাই। জাতিসংঘ সনদ ১৯৪৫ সালের ২৪ অক্টোবর সবার সম্মতিক্রমে কার্যকর হয়। ফলে ২৪ অক্টোবরকে জাতিসংঘ দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

জাতিসংঘের সদর দপ্তর

আমেরিকার বিখ্যাত শহর নিউইয়র্ক শহরের ইস্ট রিভার তীরে অবস্থিত। সদর দপ্তরের স্থপতি ছিলেন ডব্লিউ হ্যারিসন। জাতিসংঘ সদর দপ্তরের প্রথম ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব ট্রিগভেলি। তবে জাতিসংঘের ইউরোপীয় সদর দপ্তর সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে অবস্থিত।
দাপ্তরিক বা অফিসিয়াল ভাষা
সর্বমোট ৬ টি ভাষা জাতিসংঘের অফিসিয়াল ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। ইংরেজি, ফরাসি, চীন, স্প্যানিস, রুশ, এবং আরবি ভাষা অন্যতম। তবে, ইংরেজি ও ফরাসি ভাষা মূলত জাতিসংঘের কার্যকরী ভাষা।

জাতিসংঘের মূল সংস্থা

৬ টি মূল সংস্থা নিয়ে জাতিসংঘ গঠিত হয়। সংস্থাগুলো হচ্ছে নিরাপত্তা পরিষদ, সাধারণ পরিষদ, অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ, আন্তর্জাতিক আদালত, সচিবালয়, এবং অছি পরিষদ।

জাতিসংঘের  সদস্য দেশ সমূহ

জাতিসংঘের মোট সদস্য রাষ্ট্র ১৯৩ টি। সর্বশেষ ৯৩ তম দেশ হিসেবে সদস্যপদ লাভ কের দক্ষিণ সুদান। দক্ষিণ সুদান ১৪ জুলাই, ২০১১ সালে জাতিসংঘের সদস্য দেশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়। জাতিসংঘের সদস্য হতে হলে অবশ্যই যেকোন দেশ স্বাধীন হতে হবে। কিন্তু ভ্যাটিক্যান ও কসোভা স্বাধীন দেশ হলেও তারা জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করেনি। তাইওয়ান একসময় জাতিসংঘের মূল সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে ছিল। তবে, গণ চীনের ভেটোর মুখে তাইওয়ানকে ১৯৭১ সালে বহিষ্কার করতে বাধ্য হয়।
জাতিসংঘের সদস্য দেশ সমূহের মধ্যে আয়তনে বড় দেশ হচ্ছে রাশিয়া এবং আয়তনে সবচেয়ে ছোট দেশ মোনাকো। কিন্তু জনসংখ্যার ভিত্তিতে সবচেয়ে বড় দেশ চীন এবং ছোট দেশ টুভ্যালু। বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর, জাতিসংঘের ২৯ তম সাধারণ পরিষদ সম্মেলনে ১৩৬ তম দেশ হিসেবে সদস্যপদ লাভ করে। একই তারিখে গ্রানাডা ও গিনি বিসাউ বাংলাদেশের সাথে সদস্যপদ গ্রহণ করে।

জাতিসংঘের মহাসচিবৃন্দ

১৯৪৫ সালে জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখন পর্যন্ত ৯ জন জাতিসংঘের মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে। প্রথম মহাসচিব ছিলেন নরওয়ের ট্রিগভেলি। তিনি ১৯৪৬ সাল থেকে ১৯৫৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। দ্বিতীয় মহাসচিব ছিলেন সুইডেনের নাগরিক দ্যাগ হ্যামারশেল্ড। তিনি ১৯৬১ সালে একটি বিমান দূর্ঘটনায় মারা যান। বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কাজ করায় তাঁকে মরনোত্তর নোবেল পুরষ্কারে  ভূষিত করা হয়।
জাতিসংঘের তৃতীয় মহাসচিবের দায়িত্ব গ্রহণ করেন মিয়ানমারের নাগরিক উ থান্ট। তিনি ছিলে প্রথম এশিয়া মহাদেশের মহাসচিব। তিনি বিশেষভাবে মিস্টার এশিয়া নামে পরিচিত ছিল। তিনি ১৯৬১-১৯৭১ সাল পর্যন্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন। চতুর্থ মহাসচিব ছিলেন অস্ট্রিয়ার কুট ওয়াল্ডহেইম। ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত দুই মেয়াদে তিনি দায়িত্বে ছিলেন। তিনি জাতিসংঘের প্রথম মহাসচিব হিসেবে সর্বপ্রথম বাংলাদেশে ভ্রমণ করেছিলেন।
জ্যাভিয়ার পেরেজ দ্য কুয়েলার ছিলেন জাতিসংঘের ৫ম মহাসচিব। তিনি ছিলেন পেরুর নাগরিক। তাঁর মেয়াদকাল ছিল ১৯৮২- ১৯৯১ সাল পর্যন্ত। পেরেজ দ্য কুয়েলার ছিলেন প্রথম দক্ষিণ আমেরিকার মহাসচিব। তিনি দ্বিতীয় মহাসচিব হিসেবে বাংলাদেশ সফর করেন। জাতিসংঘের ৬ষ্ঠ মহাসচিব ছিলেন মিশরের ড. বুট্রোস ঘালি। তিনি ছিলেন আফ্রিকা মহাদেশের প্রথম মহাসচিব।
কপি আনান ছিলেন জাতিসংঘের সপ্তম মহাসচিব। তিনি ছিলেন ঘানার নাগরিক। একমাত্র মুসলিম মহাসচিব হিসেবে তিনি ২০০১ সালে নোবেল পুরষ্কার লাভ করেন। ১৯৯৭ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন। অস্টম মহাসচিব  ছিলেন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক বান কি মুন। তিনি ছিলেন এশিয়ার দ্বিতীয় মহাসচিব, মিয়ানমারের উ থান্টের পর। বান কি মুন ২০০৭ থেকে ২০১৬ সাল নাগাত দায়িত্ব পালন করেন। জাতিসংঘের নবম এবং বর্তমান মহাসচিব হচ্ছে অ্যান্তোনিও গুতেরাস। তিনি একজন পর্তুগালের নাগরিক এবং সাবেক ১৪তম প্রধানমন্ত্রি।

জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল

১৯৪৬ সালে জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিটি গঠিত হয়। এই কমিটি ১৯৪৮ সালের ১০ ডিসেম্বর, সর্বজনীন মানবাধিকার ঘোষণাপত্র জারি করে। ফলে ১০ ডিসেম্বর প্রতিবছর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস হিসেবে পালিত হয়। মানবাধিকার ঘোষণাপত্রে মোট অনুচ্ছেদ রয়েছে ৩০ টি। ২০১৬ সালে এই কমিটির নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় মানবাধিকার কাউন্সিল।

জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয়

সর্বপ্রথম জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব করেন তৎকালীন মহাসচিব উ থান্ট। ১৯৭২ সালে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য ১৯৭৩ সালে একটি রেজুলেশন পাস করা হয়। সবশেষে ২০ জানয়ারী, ১৯৭৫ সালে, জাপানের রাজধানী টোকিওতে জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক  যাত্রা শুরু হয়।

জাতিসংঘের বিভিন্ন বিশেষায়িত সংস্থা

  • আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (International Labour Organization)
  • খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (Food and Agriculture Organization)
  • আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (International Monetary Fund)
  • বিশ্ব ব্যাংক ( World bank)
  • বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (World Health Organization)
  • জাতিসংঘ শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থা বা ইউনেস্কো
  • আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থা
  • আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন সংস্থা (International Fund for Agricultural Development)
  • আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়ন (International Telecommuunication Union)
  • বিশ্ব ডাক ইউনিয়ন (Universal Postal Union)
  • বিশ্ব মেধা সম্পদ সংস্থা (World Intellectual Property Organization)
  • বিশ্ব পর্যটন সংস্থা (World Tourism Organization)
  • বিশ্ব আবহাওয়া  সংস্থা (World Meterological Organization)
  • জাতিসংঘ শিল্পোন্নায়ন সংস্থা (United Nation Industrial Development)
5/5 - (32 votes)