অন্যান্য
1 min read

তপশিলি জাতির ধারণা

তপশিলি জাতির (Scheduled Caste) ধারণা দাও


মানবসমাজের ক্রমবিন্যাসের সর্বনিম্ন স্তরে দলিত বা তপশিলি জাতি / উপজাতির অবস্থান। এই জাতি সাধারণত অস্পৃশ্য বা ‘Untouchables’ নামে অভিহিত। ব্রিটিশ ভারতে এদের ‘Exterior Castes’ বলা হত। 1935 খ্রিস্টাব্দে ভারতীয় আইনের ধারায় অস্পৃশ্যদের তপশিলভুক্ত করা হয়। ভারতীয় সংবিধানে এদের ‘তপশিলি জাতি’ বা Scheduled Caste’ (SC) বলে অভিহিত করা হয়। মাহাত্মা গান্ধি এদের ‘হরিজন’ বলতেন যার অর্থ হলো – the people of God.

সমাজতত্ত্ববিদ ডি এন মজুমদার Scheduled Castes বলতে অস্পৃশ্য জাতিকে বুঝিয়েছেন। তিনি বলেন- “The untouchable castes are those who suffer from various social and political disabilities many of which are traditionally prescribed and socially enforced by higher castes.”

বর্তমান ভারতবর্ষে জনসংখ্যার প্রায় 16 শতাংশ দলিত (নিপীড়িত)। তবে দলিতদের নিপীড়িত অবস্থানের জন্য তারা দায়ী নয়, অগ্রসর সমাজের নিপীড়নের শিকার হলো দলিত সমাজ।

পারিয়া, চামার, মাহার, ভাঙ্গি প্রভৃতি সকলকেই দলিত নামে অভিহিত করা হয়। ভারতের খ্রিস্টান জনসংখ্যার বেশিরভাগই দলিত। এরা সবাই শোষিত, বঞ্চিত ও অবহেলিত। তাই তারা ‘দলিত’ নাম নিয়ে মর্যাদা, সাম্য, ন্যায়বিচার এবং সম্মান রক্ষার সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।

তপশিলি জাতি, উপজাতি ও অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণিদের রক্ষা করা এবং তাদের জন্য রক্ষাকবচের বিধান দিয়েছে ভারতীয় সংবিধান, হয় বিশেষভাবে আর না হয় নাগরিক হিসেবে তাদের সাধারণ অধিকারগুলি প্রয়োগের মাধ্যমে, যাতে শিক্ষা এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে তারা এগিয়ে যেতে পারে এবং সামাজিক বৈষম্য দূর হয়। এই সামাজিক গোষ্ঠীগুলির জন্য তপশিলি জাতি ও উপজাতি জাতীয় কমিশনের (National Comission for SC and ST) মতো বিধিবদ্ধ সংস্থা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ তপশিলি জাতির স্বার্থ দেখভাল করার মূল মন্ত্রক হল সামাজিক ন্যায়বিচার ও ক্ষমতাবান মন্ত্রক। এই মন্ত্রকই তপশিলি জাতির উপ-যোজনা (SCSP) কার্যকর করে। তপশিলি জাতির উপকারের জন্য উন্নয়নের বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে যে আর্থিক ও অন্যান্য সুবিধা দেওয়া হয় তার রূপায়ণ সুনিশ্চিত করাই এই উপ-যোজনার লক্ষ্য।

কেন্দ্রীয় সরকারের সামাজিক ন্যায়বিচার ও ক্ষমতায়ন মন্ত্রকই হল তপশিলি জাতির স্বার্থ সুরক্ষার বিষয়টি দেখভাল করার নোডাল মন্ত্রক। যদিও তপশিলি জাতির উন্নয়নের প্রাথমিক দায়িত্ব সামগ্রিকভাবে বিভিন্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রক ও রাজ্য সরকারগুলির উপর বর্তায়, তবু গুরুত্বপূর্ণ কিছু ক্ষেত্রে বিশেষভাবে তৈরি সুনির্দিষ্ট প্রকল্পগুলি রূপায়নের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করে এই মন্ত্রক সম্পূরক হিসেবে কাজ করে। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারগুলি তপশিলি জাতির সুরক্ষা ও উন্নয়নের জন্য যেসব উদ্যোগ নেয় তাতে নজনদারি করার দায়িত্বও এই মন্ত্রকের।

Rate this post