ব্যবস্থাপনা

পরিকল্পনা কি | পরিকল্পনা কাকে বলে

1 min read

পরিকল্পনা কি

কোনকিছু করার আগেই পরিকল্পনা করতে হয়। সমগ্র ভূমণ্ডল সৃষ্টি করার পূর্বে মহান সৃষ্টিকর্তা ভূমণ্ডল সৃষ্টির জন্য যেমন পরিকল্পনা করেছিলেনতেমনি ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রেও পরিকল্পনা করতে হয়। এটি ব্যবস্থাপনার প্রথম  গুরুত্বপূর্ণ মৌলিক কাজ। পরিকল্পনা এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে ব্যবস্থাপক ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নির্ধারণ করেন। পরিকল্পনা হল কোন কাজ করার আগে কিছু ভাবা, না ভেবে কাজ করলে কাজের ক্ষতি হতে পারে। তাই তো বলা হয়ে থাকে

“ভাবিয়া করিও কাজ

করিয়া ভাবিও না”

তাই ভবিষ্যতে কি করা হবে সে সম্পর্কে পূর্ব চিন্তাভাবনা করে করণীয় কাজ ঠিক করা হয়।

পরিকল্পনা কাকে বলে

ভবিষ্যৎ কার্যক্রমের অগ্রিম কল্পিত চিত্রকেই পরিকল্পনা বলে। আরও স্পষ্টভাবে বলা যায় যে, ভবিষ্যতের অগ্রিম সিদ্ধান্ত গ্রহণই হচ্ছে পরিকল্পনা। মূলত পরিকল্পনা হচ্ছে একটি চিন্তনীয় কাজ। পরিকল্পনার উপর প্রতিষ্ঠানের সফলতা বা ব্যর্থতা নির্ভরশীল। সুনির্দিষ্ট কার্যক্রমে পরিকল্পনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

পরিকল্পনা সম্পর্কে বিভিন্ন মনীষী তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেছেন। নিম্নে তাঁদের কতিপয়
মতামত তুলে ধরা হল।

কুঞ্জ এবং আইরিচ (Koontz & Weihrich) বলেছেন, “কি করতে হবে এবং কার দ্বারা করতে হবে বিবিধ বিকল্প কার্যক্রমের মধ্য থেকে তা বেছে নেওয়ার বা স্থির করার নামই হল পরিকল্পনা।

অধ্যাপক নিউম্যান (Prof. Newman) বলেছেন, “ভবিষ্যতে কি করতে হবে, তার অগ্রিম সিদ্ধান্তকেই পরিকল্পনা বলে।” (Planning is deciding in advance what is to be done that is a plan is a projected course of action.)

‘ও’ ডোনেল (O’ Donnell) এর মতে, “কোনদিন, কোথায়, কোন কার্য, কার দ্বারা, কিভাবে সম্পন্ন হবে তা স্থির করাই পরিকল্পনার উদ্দেশ্য।

রিকি ডব্লিউ. গ্রিফিন (Ricky W. Griffin) এর মতে, “পরিকল্পনার অর্থ হচ্ছে সংগঠনের উদ্দেশ্য প্রতিষ্ঠা করা এবং কিভাবে সবচেয়ে উত্তম উদ্দেশ্য অর্জন করা যায় তার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা।” (Planning means setting an organizational goals and deciding how best to achieve them.)

এল. এ. অ্যালেন (L. A. Allen) বলেছেন, “পরিকল্পনা হল ভবিষ্যৎকে আয়ত্বে আনার ফাঁদ।” (Planning is trap to capture the future.)

জর্জ আর, টেরী (George R. Terry) বলেছেন, “পরিকল্পনা হল ভবিষ্যৎ প্রয়োজনের গঠনমূলক কর্মসূচি, যাতে বর্তমান কার্যক্রমের সাথে প্রত্যাশিত উদ্দেশ্যের সামঞ্জস্য বিধান করা হয়।” তিনি আরও বলেছেন, “এটি একটি মানসিক পূর্ব ধারণা, যার দ্বারা কর্মসূচি ও কর্মপন্থা প্রস্তুত করা হয় এবং প্রত্যাশিত লক্ষ্যে পৌঁছানো যায়।

এস. চাটার্জি (S. Chatterjee) এর ভাষায়, “ভবিষ্যতে একটি প্রতিষ্ঠানে যে সকল কর্মকাণ্ড ঘটতে পারে তার পূর্ব থেকেই মানসিকভাবে চিন্তার পূর্ণাঙ্গ রূপরেখা প্রণয়নকে পরিকল্পনা বলে।” (Planning sketches a complete mental picture of things yet to happen in the enterprise through the process of looking ahead.)

উপরিউক্ত আলোচনার আলোকে বলা যায় যে, কোন দৈব শক্তি বা নিয়তির উপর নির্ভর না করে প্রত্যাশিত কার্যফল ও ভবিষ্যৎ কার্যক্রম সম্পর্কে পূর্ব চিত্র নির্ধারণকে পরিকল্পনা বলে। সাধারণত অতীত অভিজ্ঞতা, পারিপার্শ্বিক অবস্থা এবং প্রতিষ্ঠানের উপায়-উপাদানের সামর্থ্য ইত্যাদি বিষয় বিবেচনা করে একাধিক বিকল্পের মধ্য হতে সঠিক বিকল্পটি পরিকল্পনা হিসেবে গৃহীত হয়। এটি একটি অবিরাম প্রক্রিয়া।

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

x