Health

পেটের ডান পাশে ব্যথা দশটি কারণ জেনে নিন

1 min read

পেটের ডান পাশে ব্যথা দশটি কারণ জেনে নিন

আজকে আলোচনা করব পেটের ডান পাশে ব্যথার দশটি কারণ সম্পর্কে।পেটের ব্যাথা খুবই মারাত্মক যা আপনাকে অনেকটাই ক্লান্ত করে ফেলে।  পেটের ব্যথা ডানে বামে তলপেটের উপর পেতে যেকোনো জায়গায় ব্যথা হতে পারে কিন্তু এই পেটের ব্যথা খুবই মারাত্মক। গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার কারণে পেটে ব্যথা হতে পারে। 

পেটের মধ্যে অতিরিক্ত গ্যাস জমা খালি পেটে ব্যথা হলে। বদহজমের কারো হল পেট ব্যথা। পেশিতে টান টান হলে পেটে ব্যথা হতে পারে। কিডনিতে পাথর হলে পেটে ব্যথা হতে পারে। কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণ কারণে পেটে ব্যাথা হবে। ইত্যাদি অনেক সমস্যার কারণে পেটে ব্যথা অতিরিক্ত বেড়ে যায়।  আজকে আলোচনা  করব পেটের ডান পাশে ব্যথার  করণীয় সম্পর্কে।

পেটে ব্যথার কয়েকটি কারণজেনে নিন ‍

ভাজা পোড়া খাবার খাওয়ার জন্য পেটে ব্যথা হবে, অতিরিক্ত তেল জাতীয় খাবার খাওয়ার জন্য পেটে ব্যথা করে, অতিরিক্ত গ্যাস্ট্রিক এর কারণে পেটে ব্যথা হবে ,বদহজমের জন্য পেট ব্যথা করে, কোষ্ঠকাঠিন্য হলে পেট ব্যথা হয়,  কিডনিতে পাথর হলে পেট ব্যথা করবে,, পেটে গ্যাস জমে থাকলে পেট ব্যথা হয়, পানি কম খাওয়ার কারণে পেট ব্যথা হয়েছে, অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকার পর তারপর  পেট ভরে খাবার খেলে পেটে ব্যথা হবে।ঝাল জাতীয় খাবার খেলে পেটে ব্যথা হতে পারে ইত্যাদি।

চলুন নিচের বিষয়গুলো জেনে নেই  পেটের ডান পাশে ব্যথার দশটি কারণ সম্পর্কে।

বদহজমঃ

বদহজমের কারণে পেটের ডান পাশে ব্যথা হতে পারে। আপনার যদি পর কজন থাকে সেক্ষেত্রে আপনার ডান পাশে ব্যথা এবং জ্বালাপোড়া হতে পারে। বেশি পরিমাণে পাসপোর্ট খাবার কফি টমেটোর মত অ্যাসিড খাবার যে খাবারগুলো খেলে প্রচুর পরিমাণে গ্যাস্ট্রিক হয় সেই খাবারগুলো কি আপনার বদ হজম হবে না এর পরে পেটের ডান পাশে ব্যথা হলে।

বদহজম শুরু হবে আবার নিজে থেকে শেষ হয়ে যাবে কিন্তু ফেরতের উত্তেজিত হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

পেটে গ্যাসঃ

পাকিস্তানের অবস্থান হচ্ছে নাভির উপরে, গ্যাস জনিত ব্যথা পাকিস্তানের অবস্থায় বরাবর অথবা বাণী অনুভূতি হয়। কিন্তু মাঝে মাঝে এই ব্যথা পেটের ডান দিকে চলে যায়। ডা. ফিনকেলস্টোন। আপনি কি ডায়েটে পরিবর্তন এনেছেন? প্রচুর পরিমাণে এমন খাবার খেয়েছেন (যেমন- ব্রোকলি, ব্রাসেলস স্প্রাউটস ও ফুলকপির মতো ক্রুসিফেরাস সবজি, শিম বিচি বা বিনস) যা আপনাকে গ্যাসীয় করতে পারে? সময় পরিক্রমায় এ গ্যাস দূর হয়ে যায়। এসময় হাঁটলে উপকার পেতে পারেন।

 পেশিতে  টান  পড়েছেঃ

একটি কঠোর কার্ডিও সেশন আপনার পেটের ডানদিকে ব্যথার জন্য দায়ী হতে পারে: সচরাচরের চেয়ে দ্রুত দৌঁড়লে আপনার ডায়াফ্রাম সচরাচরের চেয়ে বেশি ব্যবহৃত হবে, যেখান থেকে মাসল স্পাজম তথা পেশি সংকোচন হতে পারে, বলেন ডা. ফিনকেলস্টোন।

তিনি আরো জানান, ‘আপনার বাহুগুলোকে ব্যথার স্থান থেকে দূরে মাথার উপরে স্ট্রেচ করলে স্বস্তি অনুভব করতে পারেন। পরবর্তীতে পেটে পেশি টান জনিত ব্যথা এড়াতে আপনার শ্বাসতন্ত্রকে প্রসারিত করতে হবে- এটা করতে জাম্পিং জ্যাক বা হালকা জগিংয়ের মতো ডায়ানামিক মুভমেন্টের ওয়ার্ম আপ করুন।’

কিডনিতে পাথরঃ

ডা. ফিনকেলস্টোন। লাল বলেছেন, ব্যথার অবস্থানে পরিবর্তনও আসতে পারে, যার মানে হচ্ছে মূত্রতন্ত্রে কিডনি পাথর একস্থান থেকে অন্যস্থানে সরে যাচ্ছে।’’ কিডনি পাথরের অন্যান্য উপসর্গ হচ্ছে মূত্রত্যাগের সময় ব্যথা, মূত্রে রক্তের উপস্থিতি, বমিভাব ও বমি, আমেরিকান কিডনি ফান্ডের তথ্যানুসারে।

কোষ্ঠকাঠিন্যঃ ডা. ফিনকেলস্টোন। কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণ মেয়েদের পেটের ডান পাশে ব্যথা হতে পারে। শরীরের অতিরিক্ত  মল জমার কারণে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দেখা দেবে। কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ খুবই মারাত্মক  একটি  রোগ। কোষ্ঠকাঠিন্য রোগের কারণ এই পেট ফাঁপা লাগার কারণে পেটের ডান পাশে ব্যথা হতে পারে।

পিত্তথলিতে পাথর হয়েছেঃ

আপনার পেটের ডানপাশে উপরিভাগে ব্যথা অনুভব করলে এর উৎপত্তি পিত্তপাথর থেকে হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে- বিশেষ করে খাবার বা চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়ার পর এ ব্যথা আরো বেড়ে গেলে। ডা. ফিনকেলস্টোন বলেন, ‘আমরা নারীদের পিত্তথলিতে এ পাথর বেশি খুঁজে পাই, বিশেষ করে ৩০ থেকে ৫০ বছর বয়সের নারীদের মধ্যে।’ পিত্তথলি হচ্ছে একটি অর্গান যা পিত্তরস নিঃসরণের মাধ্যমে খাবার হজমে সহায়তা করে।

আপনার শরীরে উচ্চ মাত্রায় রক্ত চর্বি ও ইস্ট্রোজেন থাকলে অথবা আপনি অতিরিক্ত স্থূল হলে পিত্তথলিতে পাথর বিকাশের ঝুঁকি বেশি। পিত্তপাথর যে কারণেই হোক না কেন, এ পাথর পিত্তনালীতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলে (গলব্লাডার অ্যাটাক) হঠাৎ পেটের ডানপাশে ব্যথা হতে পারে।

গলব্লাডার অ্যাটাকের একটি উল্লেখযোগ্য উপসর্গ হচ্ছে: পেটের ব্যথা উভয় শোল্ডার ব্লেডের মাঝখানে অথবা ডান কাঁধে ছড়াতে পারে। আপনার এরকম উপসর্গ থাকলে পিত্তথলি অপসারণ করতে সার্জারির প্রয়োজন হবে। এছাড়া পিত্তথলি অপসারণ না করেও মেডিক্যালি পিত্তপাথরের চিকিৎসা করা যায়।

পেশি ব্যথা ও হার্নিয়াঃ

অতিরিক্ত পেট ভরে খাবার খাওয়ার জন্য পেটের ডান পাশে ব্যথা হতে পারো । ভরা পেটে ব্যায়াম করলে পেটে দেখা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। খাবার খেয়ে যদি আপনি  দৌড়াদৌড়ি করেন সেক্ষেত্রে পেটে ব্যথা হবে।

আবার ব্যায়ামাগারে ভারী ওজন তোলা থেকে দেখা দিতে পারে ‘হার্নিয়া’। এই রোগে শরীরের অভ্যন্তরীন একটি অঙ্গ যে পেশির সাহায্যে শরীরের সঙ্গে যুক্ত থাকে সেই পেশির উৎপত্তিস্থল দিয়ে বাইরের দিকে বেরিয়ে আসে। তাই ভারী ব্যায়াম করার সময় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে সবসময়।

বৃক্কে পাথর: তলপেটের দুই পাশেই আছে বৃ্ক্ক। তাই বৃক্কে পাথর হলে পেটের ডানপাশে ব্যথা হবে। এছাড়াও একই কারণে ব্যথা হতে পারে পিঠের নিচের দিকে ও ‘গ্রোইন’ বা কুঁচকিতে। বৃক্কের এই পাথর মুত্রনালীর দিকে যেতে থাকলে ব্যথারও স্থান পরিবর্তন হয়। এসময় প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত আসতে পারে এবং বমিভাব হতে পারে। বৃক্কের পাথর ছোট হলে ওষুধের সাহায্যেই তা প্রস্রাবের সঙ্গে বের করে দেওয়া যায়।

Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment