Health
1 min read

সরিষার তেলের উপকারিতা

সরিষার তেলের উপকারিতা

সরিষার তেলের উপকারিতা

আসসালামু আলাইকুম আজকে আলোচনা করব সরিষার তেলের উপকারিতা সম্পর্কে। বর্তমান যুগে বিশেষজ্ঞরা বলে দিয়েছেন যে করোনার মহামারীর সমস্যার কারনে স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য সঠিক খাবার খাওয়ার জন্য সকল বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছেন যে সরিষার তেল খেতে হবে। সরিষার তেল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো।

সরিষার তেল আপনার গ্যাস্ট্রিক দূর করতে সাহায্য করবে ক্যান্সার আলসার ডায়াবেটিস শরীরের বাড়তি ওজন ইত্যাদি এসব রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন সরিষার তেলের উপকারিতা  পেয়ে পেয়ে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর শর্টকাট কোনো রাস্তা নেই এমনটাই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

এটি গড়ে তোলা বিষয়। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যে রান্না ওভারি যেকোনো খাবার তৈরিতে আপনারা সরিষার তেল ব্যবহার করুন। সরিষার তেল আপনার শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকেন। সরিষার তেল বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি করে। তাই সরিষা তেলের উপকারিতা অনেক।

সরিষার তেলের ব্যবহার আদি যুগ থেকে চলে এসেছে। সরিষার তেল স্বাস্থ্যগত সুবিধা রক্ষা করতে সাহায্য করে থাকেন। সরিষারতেলটি মনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড (এমইউএফএ) দিয়ে বোঝাই যা দেহে স্বাস্থ্যকর কোলেস্টেরল ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয়।

আলফা-লিনোলেনিক অ্যাসিড সমৃদ্ধ, যা আমাদের কার্ডিওভাসকুলার স্বাস্থ্যকে রক্ষা করে। সরিষার তেলের অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য রয়েছে এবং এটি ক্ষতিকারক সংক্রমণ থেকে হজমশক্তিকে রক্ষা করে।

সরিষার তেলের রয়েছে ওমেগা থ্রি ওমেগা 5 ফ্যাটি এসিড। সরিষার তেলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন। সরিষার তেল আপনার শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে সাহায্য করে। সরিষার তেলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ্ সরিষার তেলের উপকারিতা  অনেক । সরিষার তেল সরাসরি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থেকে মুক্তি করতে সাহায্য করে।

সরিষার তেল ইমিউনিটি বুস্টার ঃ

সরিষার তেল সর্দি কাশির জন্য খুবই কার্যকরী। অল্প পরিমাণে সরিষার তেল নিয়ে এর সঙ্গে রসুন ও লবঙ্গ নিয়ে তারপর তেল গরম করুন। হাতে পায়ে এবং বুকে মালিশ করলে সর্দি কাশি থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

লোহিত রক্তকণিকা শক্তিশালী করে ঃ

প্লাজমা, কোষের লিপিডস এবং কোষের ঝিল্লির উপাদান হিসাবে বিভিন্ন জৈবিক ক্রিয়াকলাপ সম্পাদনের জন্য আমাদের শরীরের প্রয়োজনীয় চর্বিগুলোর একটি প্রধান উৎস সরিষার তেল। এই তেল কোলেস্টেরল কমাতে সহায়তা করে এবং লোহিত রক্তকণিকার ঝিল্লি গঠনের উন্নতি করে।

কার্ডিওপ্রোটেক্টিভঃ

প্রভাব গবেষণায় দেখা গেছে যে, সরিষার তেল খেলে অ্যারিথমিয়াস, হার্ট ফেইলিও এবং এনজাইনা হ্রাস পেয়েছে। কার্ডিওভাসকুলার ডিজঅর্ডারে আক্রান্তদের জন্য সরিষার তেল স্বাস্থ্যকর হিসাবে বিবেচিত হয়। এটি ট্রাইগ্লিসারাইড, রক্তচাপ এবং প্রদাহ কমাতেও সহায়তা করে।

সর্দি-কাশি হাস করতে সহায়তা করেন সরিষার তেলঃ

সরিষার তেলের উপকারিতা প্রাচীনকাল থেকে চলে এসেছে। সরিষার তেল দিয়ে সর্দি কাশি দূর করা যায় খুব সহজেই। সরিষার তেল শ্বাসকষ্ট অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে সেগুলো দূর করে ফেলে। সরিষার তেল সাইনোসাইটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের উপরও ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।সরিষার তেল দিয়ে স্টিম নিলে তা শ্লেষ্মা পরিষ্কার করতে সাহায্য করে।

বাত ব্যথা ও জয়েন্টে ব্যথা মুক্তি করে সরিষার তেলঃ

সরিষার তেলের উপকারিতা অনেক। অল্প সরিষার তেল নিয়ে  এর সঙ্গে একটু রসুন গরম করে তারপর ওই যে জায়গায় ব্যথা সে জায়গায় লাগিয়ে দিন এবং বাত ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন এই উপকরণগুলো দিয়ে। সরিষার তেল ওমেগা ৩ আর্থ্রাইটিসের কারণে সৃষ্ট কঠোরতা এবং ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকেন।

উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো তে ইতিমধ্যে আমরা জানতে পেরেছি যে সরিষার তেলের উপকারিতা সম্পর্কে। সরিষার তেলের উপকারিতা কোন তুলনা নেই সরিষার তেলের উপকারিতা অনেক অনেক। সরিষার তেলের উপকারিতা জানার জন্য আমাদের এই পোষ্টের সঙ্গে থাকুন।

Rate this post