Health
1 min read

অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয়

অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয়

অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয়

আজকের আলোচনা রয়েছে অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয় ।আমরা সাধারণত অলিভ অয়েল মাথায় ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু অলিভ অয়েলের ব্যবহারে আরও কিছু দিক রয়েছে সেগুলো হচ্ছে অলিভ অয়েল  মুখে লাগাতে পারেন। অলিভ অয়েলে রয়েছে ভিটামিন ফ্যাটি এসিড আপনার দেহের জন্য খুবই কার্যকরী। অলিভ অয়েল ত্বকের জন্য খুব কার্যকারী। অলিভ অয়েল চুলের পুষ্টি গুণ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে অলিভ অয়েল। অলিভ অয়েলে রয়েছে ভিটামিন এ ধঅলিভ অয়েল আপনার তরুণ ধরে রাখতে সাহায্য করবে। অলিভ অয়েল মুখের জন্য খুব কার্যকারী।

অলিভ অয়েল মুখের জন্য খুবই কার্যকরী অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয় সকল বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। চলুন জেনে নেই অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয় সে সম্পর্কে।

ময়েশচারাইজারঃ

সর্বপ্রথম একটি কাজ করবেন সেটা হচ্ছে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ভালো ভাবে ধুয়ে নেবেন এরপর তোলা নিয়ে তাতে সামান্য অলিভওয়েল লাগিয়ে তারপর   ত্বকের মধ্যে মেসেজ করতে থাকুন। 12 থেকে 13 মিনিট পর কুসুম গরম পানিতে তোয়ালে ভিজিয়ে তারপর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর  শুকনো তোয়ালে দিয়ে ভালো করে মুছে নিন। গোসল করার পর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে তারপর অলিভ অয়েল মুখে হালকা করে লাগিয়ে নিন। গোসল করার পর অলিভ অয়েল আপনি আপনার শরীরে মেসেজ করতে পারেন। অলিভ অয়েল খুবই কার্যকরী।

 মাক্সঃ

পরিমাণমতো অলিভওয়েল নিয়ে এর সঙ্গে  একটি ডিমের কুসুম  ও লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এরপর মুখে লাগিয়ে রাখুন ছয় থেকে সাত মিনিটের জন্য। তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো করে মুখ ধুয়ে ফেলুন। নরমাল  বা  শুরু  তোকে এই মাক্স আবদ্ধ বজায় রাখবে  সে সঙ্গে নরম ও কোমল করতে সাহায্য করবে।

সান প্রোটেকশন: অভিল অয়েলে ভিটামিন এ এবং ই আছে সেই সঙ্গে ৩ রকমের antioxidants আছে, যা আপানাকে সূর্যের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করবে। তাই যদি বাইরে যাওয়ার আগে অলিভ অয়েলের প্রলেপ দিয়ে বের হন তবে সান্ টান থেকে অনেকটাই মুক্তি লাভ করবেন।:

অলিভ অয়েল প্রতিরোধ করে থাকেনঃ

অলিভ অয়েল তেল মুখে ব্রনের জন্য খুব কার্যকারী। আপনার মুখে যদি * দেখা দেয় সে ক্ষেত্রে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। মুখের  ব্রণ  ধ্বংস করার জন্য অলিভ অয়েল এর সাহায্যে মুখের ব্রণ দূর  করে ফেলুন। 3 টেবিল-চামচ লবণ এর সঙ্গে 4 টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করে নিন। এরপর এই  পেস্ট  দুই থেকে তিন মিনিট মুখে মেসেজ করতে থাকুন।

এই একই নিয়মে এক সপ্তাহ ব্যবহার করুন। এই মিশ্রণটি ব্যবহার করার ফলে আপনি ভালো একটি পরিবর্তন দেখতে পাবেন তকে। লবণ এক্সফোলিয়েশন করে পোর পরিষ্কার করে আর অলিভ অয়েল মুখের আর্দ্রতা ধরে রাখে।

আশা করছি আপনি বুঝতে পেরেছেন অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয় ।  যদি  অলিভ অয়েল মুখে দিলে কি হয় এ সম্পর্কে আরও কিছু জানার প্রয়োজন মনে করেন তাহলে নিচে কমেন্টে আমাদেরকে জানাতে পারেন।

Rate this post