ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় সম্পত্তি ও উৎপাদনের উপকরণসমূহের ওপর ব্যক্তিমালিকানা প্রতিষ্ঠিত হয়। পক্ষান্তরে, সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় সম্পদ ও উৎপাদনের উপকরণগুলোর মালিকানা রাষ্ট্রের ওপর ন্যস্ত থাকে। এছাড়া, ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় উৎপাদনের ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত উদ্যোগ স্বীকৃত। কিন্তু সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় উৎপাদনের ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত উদ্যোগের কোনো স্বীকৃতি নেই। সেখানে উৎপাদনের সকল উদ্যোগ রাষ্ট্রই গ্রহণ করে। ধনতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় ক্রেতা ও বিক্রেতাদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বাজার দাম নির্ধারিত হয়। কিন্তু সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় অবাধ দামব্যবস্থার পরিবর্তে নিয়ন্ত্রিত দামব্যবস্থা তথা আরোপিত দামব্যবস্থা প্রচলিত থাকে। অন্যদিকে, ধনতান্ত্রিক অর্থনীতিতে সম্পদের ওপর ব্যক্তিগত মালিকানা বজায় থাকায় আয় বণ্টনে বৈষম্য দেখা যায়। কিন্তু সমাজতান্ত্রিক অর্থব্যবস্থায় সম্পদ ও উৎপাদনের উপকরণগুলোর ওপর সামাজিক মালিকানা কায়েম থাকে। তাই আয় বণ্টনে অসমতা দেখা দেয় না।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x