তড়িৎচুম্বকীয় তরঙ্গের উৎস ও দর্শকের (বা পর্যবেক্ষণের যন্ত্রের) পরস্পর থেকে দূরে সরে যাবার কারণে উক্ত তরঙ্গের তরঙ্গদৈর্ঘ্য বৃদ্ধির ঘটনাকে লোহিত সরণ বলে।

লাল দানব তারা কীভাবে সৃষ্টি হয়?
তারার কেন্দ্রভাগের সব হাইড্রোজেন যখন হিলিয়ামে পরিণত হয়, তখন নতুন কোনো জ্বালানি না থাকায় তারাটি সংকুচিত হতে শুরু করে। এতে কেন্দ্রের তাপমাত্রা বাড়তে থাকে এবং কেন্দ্রের হিলিয়াম ফিউশন প্রক্রিয়ায় হলে অপেক্ষাকৃত ভারী মৌলে পরিণত হতে শুরু করে। সৃষ্ট তাপের দরুন তারা বহির্ভাগের হাইড্রোজেনের দহনও শুরু হয়। এ সময় তারাটির বাইরের আবরণ ফুলে উঠতে থাকে অর্থাৎ তার ভারসাম্য বিঘ্নিত হয়। এই সময় এটিকে পরিবর্তনশীল তারা হিসেবে গণ্য করা হয়। এই ফেঁপে ওঠা অবস্থায় তারাটির বাইরের তাপমাত্রা কমে যায় ও আয়তন বিপুলভাবে বেড়ে একশ থেকে এক হাজার গুণ বড় হয়ে ওঠে। তারাটির সামগ্রিক শক্তি বর্ধিত বিশাল উপরিতলে ছড়িয়ে পড়ার দরুণ সেটির তাপমাত্রা কমে গিয়ে ক্ষীণাভ অর্থাৎ লালচে বর্ণের হয়ে ওঠে। তারাটিকে এই অবস্থায় বলা হয় লাল দানব তারা (red giant star)।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x