পড়াশোনা
1 min read

অধ্যায়-১৩: প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং দূষণ, সপ্তম শ্রেণির বিজ্ঞান

পানি দূষণের জন্য প্রধানত দায়ী কে?

উত্তরঃ পানি দূষণের জন্য প্রধানত দায়ী মানুষ।

দূষণ কী?

উত্তর : পরিবেশের যেকোনো অস্বাভাবিক অবস্থা, যা পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করে তাই দূষণ।

শব্দ দূষণ কী?

উত্তর : যেসব উচ্চ শব্দের কারণে আমাদের কানের স্বাভাবিক শ্রবণ ক্ষমতা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাই শব্দ দূষণ। যেমন—মাইকের উচ্চশব্দ, গাড়ির তীক্ষ্ণ হর্ন, জেনারেটরের আওয়াজ ইত্যাদি।

বায়ুদূষণ কী?

উত্তর : বায়ুর স্বাভাবিক গঠন পরিবর্তন এবং বায়ুতে ক্ষতিকর ও বিষাক্ত পদার্থের সংমিশ্রণ ঘটলে তাকে বায়ুদূষণ বলে।

পানি দূষণের অন্যতম কারণ কী?

উত্তরঃ পানি দূষণের অন্যতম কারণ হলো শিল্পকলকারখানার বর্জ্য, খাদ্যের উচ্ছিষ্ট ময়লা-আবর্জনা, জীবজন্তুর মৃতদেহ, মানুষ ও পশুপাখির মলমূত্র, কীটনাশক ইত্যাদি পানিতে ফেলা।

পানি দূষণ কেন ক্ষতিকর?

উত্তরঃ দূষিত পানি পান করলে আমাশয়, ডায়রিয়া, কলেরা, জণ্ডিস, টাইফয়েড ইত্যাদি বিভিন্ন রোগ হয়। এ ছাড়া পানি দূষণের কারণে মাছ ও অন্যান্য জলজ প্রাণীর জীবনও হুমকির সম্মুখীন হয়, ফলে যেখানে পানির অপর নাম জীবন, সেখানে পানি দূষণের কারণে পানির অপর নাম মরণ বলে বিবেচিত হয়। তাই পানি দূষণ ক্ষতিকর।

বায়ু দূষণ কেন মানুষের জন্য ক্ষতিকর?

উত্তরঃ বায়ু দূষণের ফলে বায়ুতে বিভিন্ন বিষাক্ত গ্যাসের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়, এর ফলে মানুষের নানারকম মারাত্মক রোগের সৃষ্টি হয়। যেমন— বায়ুতে কার্বন মনোক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় মানুষের শ্বাসকষ্টজনিত রোগ থেকে শুরু করে ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগ হতে পারে। এছাড়াও শিল্পকারখানা থেকে নির্গত ধোঁয়া বায়ুতে মিশে গিয়ে এসিড বৃষ্টির সৃষ্টি করে, যা শুধু মানুষেরই নয়, জলজ প্রাণীরও ক্ষতি করে।

বায়ুমণ্ডলের কোন স্তরে মেঘ বা কুয়াশা সৃষ্টি হয়?

উত্তর : ট্রপোমণ্ডল স্তরে মেঘ বা কুয়াশা সৃষ্টি হয়।

পরিবেশের প্রধান উপাদান কয়টি?

উত্তর : পরিবেশের প্রধান উপাদান ২টি। জীব ও জড় উপাদান।

প্রাকৃতিক পরিবেশ কী?

উত্তর : আমাদের চারপাশের জড় ও জীবকে নিয়ে তৈরি হওয়া পরিবেশই প্রাকৃতিক পরিবেশ।

অ্যালুমিনিয়ামের মাটির সঙ্গে মিশতে কত সময় লাগে?

উত্তর : অ্যালুমিনিয়ামের মাটির সঙ্গে মিশতে ১০০ বছর সময় লাগে।

জৈব পদার্থ কাকে বলে?

উত্তর : উদ্ভিদ ও প্রাণীর মৃতদেহ বিশ্লিষ্ট হয়ে ইউরিয়া ও হিউমাস তৈরি করাকে জৈব পদার্থ বলে।

মাটিদূষণের অন্যতম কারণ কী?

উত্তর : মাটিদূষণের অন্যতম কারণ হচ্ছে মাটিতে বর্জ্যের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া।

দূষিত পানি পান করলে কী কী রোগ হয়?

উত্তর : দূষিত পানি পান করলে আমাশয়, ডায়রিয়া, কলেরা, জন্ডিস, টাইফয়েড ইত্যাদি রোগ হয়।

ওজোন স্তর ক্ষতিগ্রস্তের জন্য দায়ী কে?

উত্তর : ওজোন স্তর ক্ষতিগ্রস্তের জন্য দায়ী ক্লোরোফ্লোরো কার্বন অর্থাৎ সিএফসি গ্যাস।

মাটিদূষণ কী?

উত্তর : মাটির স্বাভাবিক অবস্থার পরিবর্তনকেই মাটিদূষণ বলে।

মাটিদূষণের ফলে কী ঘটে?

উত্তর : মাটিদূষণের ফলে জমির উর্বরতা হ্রাস পায়।

এসিড বৃষ্টি কাকে বলে?

উত্তরঃ বায়ুতে কার্বন ডাইঅক্সাইড, কার্বন মনোক্সাইড, সালফার ডাইঅক্সাইড ইত্যাদি ক্ষতিকর গ্যাস মিশ্রিত এসিডযুক্ত পানি ভূপৃষ্ঠে বৃষ্টিরূপে পতিত হলে তাকে এসিড বৃষ্টি বলে।

প্লাস্টিক মাটির জন্য ক্ষতিকর কেন? ব্যাখ্যা কর।

উত্তরঃ প্লাস্টিক এমন একটি দ্রব্য, যা মাটিতে পচনশীল নয়। ফলে মাটিতে প্লাস্টিক ফেলার কারণে মাটির উর্বরতা শক্তি বিনষ্ট হয় ও মাটির পানিধারণ ক্ষমতায় বিরূপ প্রভাব পরিলক্ষিত হয়। ফলে উদ্ভিদের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়। তাই প্লাস্টিক মাটির জন্য ক্ষতিকর।

বায়ুতে কার্বন মনোক্সাইড বেড়ে গেলে কী ঘটে?

উত্তরঃ বায়ুতে কার্বন মনোক্সাইড বেড়ে গেলে মানুষের শ্বাসকষ্টজনিত রোগ থেকে শুরু করে ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগ হতে পারে।

বহুনির্বাচনি প্রশ্ন ও উত্তর

১. মানুষ প্রাকৃতিক পরিবেশকে বিভিন্নভাবে ব্যবহার করছে কেন?

ক. নিজের ইচ্ছা পূরণ করতে

খ. নিজের প্রয়োজন মেটাতে

গ. প্রকৃতিকে বুঝতে

ঘ. খামখেয়ালিপনার বশে

২. কোনটি জড় উপাদান?

ক. উদ্ভিদ

খ. মানুষ

গ. মাটি

ঘ. কীটপতঙ্গ

৩. গাছপালা কেটে ফেললে কী ঘটে?

ক. বিষাক্ত গ্যাসের পরিমাণ বেড়ে যায়

খ. পৃথিবীর তাপমাত্রা বেড়ে যায়

গ. ওজোন স্তর ক্ষতিগ্রস্ত হয়

ঘ. সবগুলো

৪. মাটি দূষণের ফলে কী হয়?

ক. মাটি শক্ত হয়ে যায়

খ. মাটি ক্ষয় হয়ে যায়

গ. মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি পায়

ঘ. মাটি উর্বর হয়

৫. আবর্জনা পচতে সাহায্য করে কে?

ক. ভাইরাস

খ. ব্যাকটেরিয়া

গ. জীবাণু

ঘ. পোকামাকড়

৬. মাটিতে পচে কোনটি?

ক. কাচ

খ. পলিথিন

গ. প্লাস্টিক

ঘ. আবর্জনা

৭. মাটি দূষণের উৎস কী?

ক. রাসায়নিক সার

খ. কারখানার বর্জ্য

গ. কীটনাশক

ঘ. সবগুলো

৮. বর্তমানে পৃথিবীতে কোনটির অভাব রয়েছে?

ক. দূষিত পানি

খ. সুপেয় পানি

গ. পানি

ঘ. লোনা পানি

৯. বিভিন্ন বর্জ্য শেষ পর্যন্ত কোথায় পৌঁছায়?

ক. খালে

খ. পুকুরে

গ. নদীতে

ঘ. সাগরে

১০. প্রধানত কয়ভাবে বায়ু দূষিত হতে পারে?

ক. এক ভাবে

খ. দুই ভাবে

গ. তিন ভাবে

ঘ. চার ভাবে

১১. পানি দূষিত হলে যা ঘটে–

i. মাছ মরে যায়

ii. জলজ প্রাণীরা বাঁচতে পারে না

iii. পরিবেশে পানির ভারসাম্য নষ্ট হয়

নিচের কোনটি সঠিক?

ক. i ও ii

খ. ii ও iii

গ. i ও iii

ঘ. i, ii ও iii

১২. একটি পুকুরের পানি দিন দিন কালো হয়ে যাচ্ছে। এর কারণ হতে পারে–

i. পানিতে বাঁশ ও পাট ইত্যাদি ভিজিয়ে রাখা

ii. গরু-ছাগল গোসল করানো

iii. সাবান ও ডিটারজেন্ট

নিচের কোনটি সঠিক?

ক. i ও ii

খ. i ও iii

গ. ii ও iii

ঘ. i, ii ও iii

১৩. বায়ুদূষণ ঘটায়–

i. যানবাহনের কালো ধোঁয়া

ii. রান্নার গ্যাস

iii. সিগারেটের ধোঁয়া

নিচের কোনটি সঠিক?

ক. i ও ii

খ. i ও iii

গ. ii ও iii

ঘ. i, ii ও iii

১৪. কোনটি দূষক নয়?

ক. কীটনাশক

খ. জীব সার

গ. প্লাস্টিক

ঘ. ধোঁয়া

১৫. ময়লা আবর্জনা পচে কী উৎপন্ন হয়?

ক. ভাইরাস

খ. ব্যাকটেরিয়া

গ. জীবাণু

ঘ. রোগবালাই

১৬. এসিড বৃষ্টি কী করে?

ক. মানুষের ক্ষতি করে

খ. জলজ প্রাণীর ক্ষতি করে

গ. বনভূমি ধ্বংস করে

ঘ. সবগুলো

১৭. অ্যালুমিনিয়ামের মাটিতে মিশতে সময় লাগে–

ক. ১০ বছর

খ. ৫০ বছর

গ. ১০০ বছর

ঘ. ২০০ বছর

১৮. বায়ুদূষণের ফলে যা ঘটে–

i. বিষাক্ত উপাদানের পরিমাণ বায়ুতে বেড়ে যায়

ii. বিভিন্ন রোগবালাই সৃষ্টি হয়

iii. গাছপালা মরে যায়

নিচের কোনটি সঠিক?

ক. i      খ. i ও ii   গ. ii ও iii      ঘ. i, ii ও iii

১৯. বায়ুদূষণের ফলে পৃথিবীর তাপমাত্রায় কী ঘটে?

ক. হ্রাস পায়

খ. বৃদ্ধি পায়

গ. অপরিবর্তিত থাকে

ঘ. প্রথমে হ্রাস পায় পরে বৃদ্ধি পায়

২০. কোনটি নিয়ে প্রাকৃতিক পরিবেশ গঠিত?

ক. জীব ও পরিবেশ

খ. জীব ও জড়

গ. জড় ও পরিবেশ

ঘ. সবগুলো

উত্তরঃ–

১. খ ২. গ ৩. ঘ ৪. গ ৫. খ ৬. ঘ ৭. ঘ ৮. খ ৯. ঘ ১০. খ ১১. ঘ ১২. ঘ ১৩. ঘ ১৪. খ ১৫. গ ১৬. ঘ ১৭. গ ১৮. খ ১৯. ঘ ২০. খ

Rate this post