পড়াশোনা
1 min read

জীববিজ্ঞান প্রশ্ন ও উত্তর (পর্ব-১৪)

প্রশ্ন-১। জীববিজ্ঞান বলতে কি বুঝায়?
উত্তরঃ জীববিজ্ঞান হচ্ছে বিজ্ঞানের একটি শাখা, যেখানে জীবের গঠন, জৈবনিক ক্রিয়া এবং জীবন ধারণ সম্পর্কে সম্যক বৈজ্ঞানিক জ্ঞান পাওয়া যায়।

প্রশ্ন-২। সংকরায়ন কি?
উত্তরঃ সংকরায়ন হচ্ছে জিনগত বৈশিষ্ট্যে ভিন্ন দুই বা ততোধিক উদ্ভিদের মধ্যে ক্রস ঘটিয়ে নতুন উন্নত জাত সৃষ্টির প্রক্রিয়া।

প্রশ্ন-৩। ট্রান্সফার RNA কাকে বলে?
উত্তরঃ যে সব RNA জেনেটিক কোড অনুযায়ী একেকটি অ্যামিনো অ্যাসিডকে mRNA অণুতে স্থানান্তর করে প্রোটিন সংশ্লেষণে সাহায্য করে সেগুলোকে ট্রান্সফার RNA বলে।

প্রশ্ন-৪। মাছের তেলের উপকারিতা কি?
উত্তরঃ মাছের তেলের উপকারিতা হলো–
১. রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।
২. রক্ত জমাট বাঁধতে বাঁধা প্রদান করে।
৩. ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ করে।

প্রশ্ন-৫। মেলানিন কি?
উত্তরঃ মেলানিন হলো এক প্রকার রঞ্জক পদার্থ। এটি মানুষের ত্বকের নিচে অবস্থান করে এবং মানুষের গায়ের রং নির্ধারণ করে। মেলানিন বেশি পরিমাণে থাকলে গায়ের রং কালো হয় এবং কম পরিমাণে থাকলে রং ফর্সা হয়। রোদ থেকে দূরে থাকলে শরীরে মেলানিনের পরিমাণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

প্রশ্ন-৬। অ্যান্টিজেন (Antigen) কি?
উত্তরঃ অ্যান্টিজেন হচ্ছে এমন পদার্থ, যা শরীরে প্রবেশ করলে রোগ সৃষ্টি হয়। যেমন- ব্যাকটেরিয়া, ব্যাকটেরিয়া নিঃসৃত টক্সিন, এক গ্রুপের রক্ত অন্য গ্রুপের কাউকে দেয়া ইত্যাদি।

প্রশ্ন-৭। মাশরুম কি?
উত্তরঃ মাশরুম এক প্রকার ছত্রাক। মানুষ এটি সবজি হিসাবে খায়৷ এটি অত্যন্ত পুষ্টিকর, প্রোটিনসমৃদ্ধ ও অসংখ্য রোগের জন্য একটি উপকারী খাদ্য। পৃথিবীতে গ্রিক ও রোমান সভ্যতার সময় থেকে মাশরুমের চাষ শুরু হয়েছে।

প্রশ্ন-৮। জেনেটিক ডিস অর্ডার কি?
উত্তরঃ জিন বা ক্রোমোসোম এর অস্বাভাবিকতার জন্য যে সকল রোগ সৃষ্টি হয় সেগুলোকে জেনেটিক ডিস অর্ডার বলে। যেমন: হানটিংটনস ডাউন সিনড্রোস ইত্যাদি রোগ জেনেটিক ডিস অর্ডারের কারণে হয়ে থাকে।

প্রশ্ন-৯। মানবদেহে ক্যালসিয়ামের কাজ কি?
উত্তরঃ মানবদেহে ক্যালসিয়ামের কাজগুলো হলো–
১. হাড় ও দাঁত গঠনে ভূমিকা রাখে।
২. রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে।
৩. স্নায়ু ও পেশীর উত্তেজনা হ্রাস করে।
৪. মাতৃ দুগ্ধক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করে।

প্রশ্ন-১০। সিস্ট্রোন কি?
উত্তরঃ সিস্ট্রোন হচ্ছে জিনের কার্যকরী একক। সাধারণ অর্থে সিস্ট্রোনকেই জিন বলা হয়। সিস্ট্রোন এর দৈর্ঘ্য কোনো কোনো ক্ষেত্রে ৩০,০০০ নিউক্লিওটাইডের সমান হতে পারে।

প্রশ্ন-১১। রেকন কাকে বলে?
উত্তরঃ DNA এর যে ক্ষুদ্রতম অংশের মধ্যে ক্রসিং ওভার সম্পন্ন হয়, তাকে রেকন বলে। একে পুনঃসংযোগের চরম একক বলা হয়।

প্রশ্ন-১২। মিউটন কি?
উত্তরঃ মিউটন হচ্ছে জিনের একটি ক্ষুদ্রতম অংশ। DNA অণুর ক্ষুদ্রতম যে অংশে পরিব্যপ্তি অর্থাৎ মিউটেশন ঘটে তাকে মিউটন বলে।

প্রশ্ন-১৩। কোলেস্টেরল কি? কোলেস্টেরল হৃৎপিন্ডে কীভাবে ক্ষতি করে?
উত্তরঃ কোলেস্টেরল একজাতীয় স্টেরয়েড অ্যালকোহল। এটি পানিতে অদ্রবণীয় এবং চর্বিতে দ্রবণীয় বলে স্নেহজাতীয় পদার্থের অন্তর্ভুক্ত। কোলেস্টেরলের উৎপত্তি এসিডেই।

রক্তে কোলেস্টেরল বেশি হলে রক্ত বহনকারী ধমনীর গায়ে আঠার মতো প্রলেপ পড়ে রক্ত চলাচলের পথ সরু হয়ে যায়। ফলে অক্সিজেন বহনকালে রক্ত ধমনী দিয়ে হৃৎপিণ্ডে পৌছতে বাধাগ্রস্ত হওয়ায় অনেক সময় হৃৎপিণ্ডে সমস্যার সৃষ্টি করে।

প্রশ্ন-১৪। ইইজি কি?
উত্তরঃ ইইজি-এর পূর্ণরূপ হচ্ছে ইলেকট্রো এনসেফালোগ্রাফি। মানুষসহ অন্যান্য প্রাণীর মস্তিষ্ক থেকে উৎপন্ন সূক্ষ্ম বিদ্যুৎপ্রবাহ রেকর্ড করার বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতির নাম ইলেকট্রো এনসেফালোগ্রাফি।

প্রশ্ন-১৫। রাইবােসােমাল RNA (rRNA) কাকে বলে?
উত্তরঃ যে সব RNA রাইবােসােমের প্রধান গাঠনিক উপাদান হিসাবে কাজ করে, তাকে রাইবােসােম RNA (rRNA) বলে। রাইবােসােমাল জিন থেকে এদের সংশ্লেষণ ঘটে। রাইবােসােমের গঠন প্রকৃতি অনুযায়ী r-RNA ও বিভিন্ন ধরনের হতে পারে।

প্রশ্ন-১৬। সূচনাকারী কোডন কি?
উত্তরঃ যে কোডনটি প্রােটিন সংশ্লেষণের সময় অ্যামিনাে এসিড তথা পলিপেপটাইড চেইন সংশ্লেষণের শুরু করার সংকেত প্রদান করে, তাকে সূচনাকারী কোডন বলে। যেমন- AUG একটি সূচনাকারী কোডন।

প্রশ্ন-১৭। জেনেটিক ফুডের সুবিধা ও অসুবিধা লিখ।
উত্তরঃ জেনেটিক ফুডের সুবিধা ও অসুবিধা নিচে দেওয়া হলোঃ

জেনেটিক ফুডের সুবিধা

  • নতুন নতুন শস্য উৎপন্ন হয়।
  • রোগ ও কীটপতঙ্গ প্রতিরোধী
  • পুষ্টিমান ভালো, ফলন বেশি হয়।
  • কম সময়ে পরিণতি লাভ করে।
  • স্বাদ ও গুণগত মান বেশি।

 

জেনেটিক ফুডের অসুবিধা

  • দেশীয় জাতীয় শস্য হারিয়ে যেতে পারে।
  • এর কারণে পেস্টিসাইড প্রতিরোধী পতঙ্গ উৎপন্ন হয় না।
  • অনেক সময় এলার্জি হতে পারে।
  • এতে থাকা অপ্রত্যাশিত প্রোটিন মানবদেহের ক্ষতি করতে পারে।

প্রশ্ন-১৮। কোনটিকে মস্তিষ্কের যোজক বলা হয়?
উত্তরঃ পন্স।

প্রশ্ন-১৯। Microorganism বলতে কী বুঝ?
উত্তরঃ Microorganism এর বাংলা অর্থ হলো অণুজীব। ইংরেজী Microorganism শব্দটি দুটি গ্রীক শব্দ micro ও organism হতে উৎপত্তি লাভ করেছে। গ্রীক micro অর্থ ছােট বা ক্ষুদ্র (যাদের খালি চোখে দেখা যায় না) এবং organism শব্দের অর্থ জীব। সুতরাং Microorganism শব্দের অর্থ অতিক্ষুদ্র জীব।

প্রশ্ন-২০। পেরিস্টালসিস কাকে বলে?
উত্তরঃ পাকস্থলীর ছন্দবদ্ধ আন্দোলন বা ঢেউকে পেরিস্টালসিস বলে। এই ঢেউ ফান্ডাসের দিক থেকে পাইলোরিক দিকে শেষ হয়

Rate this post