পড়াশোনা
1 min read

একাদশ অধ্যায় : জীবের প্রজনন, নবম-দশম শ্রেণির জীববিজ্ঞান

প্রশ্ন-১। প্রজনন কাকে বলে?
উত্তরঃ যে প্রক্রিয়ায় কোনো জীব তার বংশধর সৃষ্টি করে তাকেই প্রজনন বলে।

প্রশ্ন-২। প্রজনন কত প্রকার ও কি কি?
উত্তরঃ প্রজনন প্রধানত দুই প্রকার। যথা- যৌন ও অযৌন।

প্রশ্ন-৩। ফুল কাকে বলে?
উত্তরঃ প্রজননের জন্য রূপান্তরিত বিশেষ ধরনের বিটপকে ফুল বলে।

প্রশ্ন-৪। সম্পূর্ণ ফুল কাকে বলে?
উত্তরঃ যে ফুলে পাঁচটি অংশ উপস্থিত থাকে তাকে সম্পূর্ণ ফুল বলে।

প্রশ্ন-৫। সবৃন্তক ও অবৃন্তক ফুল কাকে বলে?
উত্তরঃ বৃন্তযুক্ত ফুলকে সবৃন্তক এবং বৃন্তহীন ফুলকে অবৃন্তক ফুল বলে।

প্রশ্ন-৬। বৃতি কাকে বলে?
উত্তরঃ ফুলের বাহিরের স্তবককে বৃতি বলে।

প্রশ্ন-৭। যুক্তবৃতি ও বিযুক্তবৃতি কাকে বলে?
উত্তরঃ বৃতি খণ্ডিত না হলে তাকে যুক্তবৃতি এবং খণ্ডিত হলে তাকে বিযুক্তবৃতি বলে।

প্রশ্ন-৮। পুষ্পমঞ্জরি কাকে বলে?
উত্তরঃ গাছের ছোট একটি শাখায় ফুলগুলো বিশেষ একটি নিয়মে সাজানো থাকে। ফুলসহ এই শাখাকে পুষ্পমঞ্জরি বলে।

প্রশ্ন-৯। HIV কী?
উত্তরঃ Human Immune Deficiency Virus কে সংক্ষেপে HIV বলে।

প্রশ্ন-১০। AIDS এর পূর্ণরূপ কী?
উত্তরঃ AIDS এর পূর্ণরূপ হলো- Acquired Immune Deficiency Syndrome.

প্রশ্ন-১১। হরমোন কাকে বলে?
উত্তরঃ নালীহীন গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত এক ধরনের জৈব রাসায়নিক পদার্থকে হরমোন বলে।

প্রশ্ন-১২। বহিঃনিষেক কী?
উত্তরঃ যে নিষেক ক্রিয়া প্রাণীদেহের বাইরে সংঘটিত হয় তাকে বহিঃনিষেক বলে।

প্রশ্ন-১৩। ক্লীভেজ কী?
উত্তরঃ নিষিক্ত ডিম্বাণু বা জাইগোটের কোষ বিভাজনকে ক্লীভেজ বলে।

প্রশ্ন-১৪। প্রতিপাদ কোষ কী?
উত্তরঃ ভ্রূণ থলির গর্ভযন্ত্রের বিপরীত দিকের কোষ তিনটিকে প্রতিপাদ কোষ বলে।

প্রশ্ন-১৫। ভিন্নবাসী উদ্ভিদ কী?
উত্তরঃ কোন উদ্ভিদ প্রজাতিতে যদি পুং ও স্ত্রীজননকোষ আলাদা দেহে সৃষ্টি হয় তবে তাকে ভিন্নবাসী উদ্ভিদ বলে।

প্রশ্ন-১৬। স্পোরোফাইটের প্রথম কোষ কি?
উত্তরঃ জাইগোট

প্রশ্ন-১৭। গর্ভযন্ত্রের মাঝের কোষটিকে কী বলে?
উত্তরঃ গর্ভযন্ত্রের মাঝের কোষটিকে ডিম্বাণু বলে।

প্রশ্ন-১৮। পরপরাগায়ন কী?
উত্তরঃ একই প্রজাতির দুটি ভিন্ন উদ্ভিদের ফুলের মধ্যে যখন পরাগ সংযোগ হয় তখন তাকে পরপরাগায়ন বলে।

প্রশ্ন-১৯। স্বপরাগায়ন কাকে বলে?
উত্তরঃ একই ফুলে বা একই গাছের ভিন্ন দুটি ফুলের মধ্যে যখন পরাগায়ন হয় তখন তাকে স্বপরাগায়ন বলে।

প্রশ্ন-২০। মঞ্জরি দণ্ড কী?
উত্তরঃ উদ্ভিদের যে শাখায় ফুলগুলো সজ্জিত থাকে সেই শাখাই হলো মঞ্জরি দণ্ড।

প্রশ্ন-২১। পরাগথলি কী?
উত্তরঃ পুংকেশরের দণ্ডের মাথায় থলের মতো অংশকে বলা হয় পরাগথলি।

প্রশ্ন-২২। ফিটাস কী?

উত্তরঃ ভ্রূণ থলিতে অবস্থিত প্রায় ৮ সপ্তাহ পরের ভ্রূণই হলো ফিটাস।

প্রশ্ন-২৩। উভলিঙ্গ ফুল কাকে বলে?

উত্তরঃ যখন কোনো ফুলে পুংস্তবক ও স্ত্রীস্তবক দুটোই উপস্থিত থাকে তখন তাকে উভলিঙ্গ ফুল বলে।

প্রশ্ন-২৪। মেনোপজ কী?

উত্তরঃ সাধারণত ৪০-৫০ বছরের পর নারীদের ঋতুস্রাব চিরদিনের জন্য বন্ধ হয়ে যাওয়াকে মেনোপজ বলে।

প্রশ্ন-২৫। নিষেক কাকে বলে?

উত্তরঃ যৌন প্রজননে ডিম্বাণু ও শুক্রাণুর মিলনকে নিষেক বলে।

প্রশ্ন-২৬। এপিক্যাল কোষ কাকে বলে?

উত্তরঃ জাইগোট বিভাজনের সময় ভ্রুণথলির কেন্দ্রের দিকের কোষটিকে এপিক্যাল কোষ বলে।

প্রশ্ন-২৭। সস্য কোষ কাকে বলে?

উত্তরঃ পুংজননকোষ যখন গৌণ কেন্দ্রিকার সাথে ট্রিপ্লয়েড কোষ তৈরি করে তখন তাকে সস্য কোষ বলে।

প্রশ্ন-২৮। ভিত্তি কোষ কাকে বলে?

উত্তরঃ জাইগোট বিভাজনের সময় ডিম্বকরন্ধ্রের দিকের কোষকে ভিত্তি কোষ বলে।

Rate this post