টিস্যু বলতে কী বুঝ?

উত্তরঃ জীবের একই ভ্রূণীয় স্তর হতে উদ্ভূত এবং একই আকৃতির বা ভিন্ন আকৃতির কিছু কোষ সমষ্টিগতভাবে একই স্থানে অবস্থান করে একটি সাধারণ কাজে নিয়োজিত থাকলে ঐ কোষসমষ্ট এবং তাদের নিঃসৃত আন্তঃকোষীয় ধাত্র (matrix) পদার্থকে টিস্যু (tissue) বলা হয়। উদ্ভিদদেহে টিস্যুর অবস্থান, অন্তর্গত কোষগুলোর প্রকৃতি, কার্য, উৎপত্তি, বিভাজন ক্ষমতা ইত্যাদি বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে টিস্যুর শ্রেণিবিভাগ করা হয়।

টিস্যুতন্ত্র কাকে বলে?

উত্তরঃ বহুকোষী উন্নত উদ্ভিদ দেহ অসংখ্য কোষ দিয়ে গঠিত।  কোষগুলো সুনির্দিষ্ট কাজের জন্য মিলিত হয়ে টিস্যু গঠন করে। টিস্যুগুলো আবার উদ্ভিদ দেহে এক একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে অবস্থান করে বিভিন্ন প্রকার কাজ সম্পন্ন করে। এরূপ টিস্যু সমষ্টিকে টিস্যুতন্ত্র বলে। উদ্ভিদের কান্ড, মূল ও পাতায় বিভিন্ন ধরনের টিস্যুতন্ত্র দেখা যায়।

ক্যাম্বিয়াম কি? ক্যাম্বিয়ামের কাজ কি?

উত্তরঃ ক্যাম্বিয়াম হলো এক ধরনের ভাজক টিস্যু যা দ্বিবীজপত্রী উদ্ভিদের কাণ্ডের জাইলেম ও ফ্লোয়েম টিস্যুর মাঝে অবস্থান করে।

এ টিস্যুর প্রধান কাজ হলো সেকেন্ডারি জাইলেম ও সেকেন্ডারি ফ্লোয়েম টিস্যু সৃষ্টি করা। এছাড়া সেকেন্ডারি মজ্জা রশ্মি সৃষ্টি করাও এই টিস্যুর কাজ।

ভাজক টিস্যু কাকে বলে?

উত্তরঃ যে সব টিস্যুর কোষ বিভাজন ক্ষমতা রয়েছে সেগুলোকে ভাজক টিস্যু বলে।

বিভাজন ক্ষমতা অনুসারে টিস্যু প্রধানত কত রকম?

উত্তরঃ বিভাজন ক্ষমতা অনুসারে টিস্যু প্রধানত দুরকম। যথা- (ক) ভাজক টিস্যু ও (খ) স্থায়ী টিস্যু।

সরল টিস্যু কাকে বলে? সরল টিস্যু কত প্রকার ও কি কি?

উত্তরঃ যে স্থায়ী টিস্যুর প্রতিটি কোষ আকার, আকৃতি ও গঠনের দিক থেকে অভিন্ন তাকে সরল টিস্যু বলে। কোষের প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে সরল টিস্যুকে তিন ভাগে ভাগ করা যায়। যথা– (১) প্যারেনকাইমা, (২) কোলেনকাইমা ও (৩) স্ক্লেরেনকাইমা।

বাস্ট ফাইবার বলতে কি বোঝায়?

উত্তরঃ স্ক্লেরেনকাইমা কোষ সমন্বয়ে বাস্টফাইবার গঠিত হয়। এরা অত্যন্ত দীর্ঘ, পুরু প্রাচীরযুক্ত এবং দুই প্রান্ত সরু। তবে কখনো ভোঁতা হতে পারে। প্রাচীরের সাথে ছিদ্র থাকে, যাকে কুপ বলে। এগুলো এক প্রকার দীর্ঘ কোষ যাদের প্রান্তদেশ পরস্পরের সাথে যুক্ত থাকে।

প্রোটোডার্ম কি?

উত্তরঃ প্রোটোডার্ম হচ্ছে শীর্ষস্থ ভাজক টিস্যুর সবচেয়ে বাইরের স্তর।

প্রোক্যাম্বিয়াম কী?

উত্তরঃ শীর্ষস্থ ভাজক টিস্যুর যে অংশ থেকে ক্যাম্বিয়াম উৎপন্ন হয় তার নাম প্রোক্যাম্ব্রিয়াম।

গ্রাউন্ড মেরিস্টেম কী?

উত্তরঃ শীর্ষস্থ ভাজক টিস্যুর যে অংশ থেকে কর্টেক্স, পিথ ইত্যাদি তৈরি হয় তাকে গ্রাউন্ড মেরিস্টেম বলে।

হাইডাথোড কী?

উত্তরঃ হাইডাথোড হচ্ছে পাতার অগ্রপ্রান্তে বা কিনারার অবস্থিত পানি বহিঃক্ষরণকারী ছিদ্র পথ।

জাইলেম কী?

উত্তরঃ যে টিস্যুর মাধ্যমে শোষিত পানি ও খনিজ দ্রব্যের পরিবহন ঘটে তার নাম জাইলেম।

ফ্লোয়েম কাকে বলে?

উত্তরঃ উদ্ভিদের পাতায় উৎপন্ন খাদ্য যে টিস্যুর মাধ্যমে বিভিন্ন অংশে পরিবহন ঘটে তাকে ফ্লোয়েম বলে।

এপিথেলিয়াল টিস্যু কাকে বলে?

উত্তরঃ যে টিস্যু দেহের খোলা অংশ ঢেকে রাখে এবং দেহের ভিতরের আবরণ তৈরি করে তাকে আবরণী টিস্যু বা এপিথেলিয়াল টিস্যু বলে।

ফ্লোয়েম টিস্যুর কাজ কি?

উত্তরঃ ফ্লোয়েম টিস্যুর প্রধান কাজ হলো সামগ্রিকভাবে পাতায় সংশ্লেষিত খাদ্যবস্তু উদ্ভিদের বিভিন্ন অংশে পরিবহন করা। এছাড়া খাদ্য সঞ্চয় এবং দৃঢ়তা প্রদান করাও ফ্লোয়েম টিস্যুর কাজ।

জীব দেহে টিস্যু গুচ্ছাকারে থাকে কেন?

উত্তরঃ জীবদেহে যদি কোষগুলো একই সাথে ও একই রকমভাবে জৈবিক কার্য সম্পন্ন করত তাহলে সুষ্ঠু জৈবিক ধারা বজায় থাকত না। সুষ্ঠু জৈবিক ক্রিয়া এবং সুষ্ঠু জীবন ধারা রক্ষায় বিভিন্ন প্রকার কোষ একত্রে কাজ করার জন্য জীবদেহে টিস্যু গুচ্ছাকারে থাকে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x