পড়াশোনা

একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রথম অধ্যায় প্রশ্ন ও উত্তর

1 min read

ন্যানোটেকনোলজি কী?

উত্তরঃ ন্যানোটেকনোলজি হলো এমন একটি প্রযুক্তি যেখানে ন্যানোমিটার স্কেলে একটি বস্তুকে নিপুণভাবে ব্যবহার করা যায়।

প্লেজারিজম কি?

উত্তরঃ প্লেজারিজম হলো অন্যের লেখা বা গবেষণালব্ধ তথ্য নিজের নামে চালিয়ে দেওয়া।

সাইবার অপরাধ কি?

উত্তরঃ সাইবার অপরাধ হল সাইবার স্পেস অর্থাৎ ইন্টারনেটকে কেন্দ্র করে সংঘটিত কম্পিউটার অপরাধ। সাইবার অপরাধ বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। প্রচলিত কিছু সাইবার অপরাধের নাম হলো– স্প্যামিং, হ্যাকিং, ভাইরাস ও ওয়ার্ম।

বাগ বাউন্টি বলতে কি বুঝ?

উত্তরঃ অবৈধভাবে কারো কম্পিউটার বা কম্পিউটার নেটওয়ার্কে অনুপ্রবেশকারী হ্যাকারদের একটি শ্রেণী রয়েছে যারা বিভিন্ন কম্পিউটার সফটওয়্যারের ক্রটি (বাগ) খুঁজে বের করে তা সংশোধনের সুযোগ করে দেন। এদের বলা হয় হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার এবং এ কাজটিকে বলা হয় বাগ বাউন্টি।

বায়োমেট্রিক্স কি?

উত্তরঃ বায়োমেট্রিক্স হচ্ছে এক ধরনের কৌশল বা প্রযুক্তি যার মাধ্যমে মানুষের শারীরিক কাঠামো, আচার-আচরণ, বৈশিষ্ট্য, গুণাগুণ, ব্যক্তিত্ব প্রভৃতি দ্বারা ব্যক্তিকে চিহ্নিত বা শনাক্ত করা যায়। এ পদ্ধতিতে অফিসগুলোতে প্রবেশাধিকার সংরক্ষণ করা যায়। নির্দিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ছাড়া প্রবেশ করা সম্ভব নয়।

ক্রায়োসার্জারি কী?

উত্তরঃ গ্রিক শব্দ cryo এর অর্থ খুব শীতল এবং surgery অর্থ হাতে করা কাজ। ক্রায়োসার্জারি হচ্ছে এমন একটি চিকিৎসা পদ্ধতি যার মাধ্যমে অতি ঠাণ্ডায় অস্বাভাবিক ও অসুস্থ টিস্যু ধ্বংস করা হয়।

রোবোটিক্স (Robotics) বলতে কী বুঝ?

রোবোটিক্স (Robotics) হলো প্রযুক্তির একটি শাখা যেটি রোবটসমূহের ডিজাইন, নির্মাণ, কার্যক্রম ও প্রয়োগ নিয়ে কাজ করে। রোবোটিক্স এর সাধারণ বিষয়গুলো হলো কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, ইঞ্জিনিয়ারিং এবং মনোবিদ্যা। এ প্রযুক্তিটি কম্পিউটার বুদ্ধিমত্তা সম্বলিত এবং কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত রোবট মেশিন তৈরি করে যেগুলো আকৃতিগত দিক থেকে অনেকটাই মানুষের মতো হয় এবং অনেটা মানুষের মতোই দৈহিক ক্ষমতাসম্পন্ন থাকে। এ ক্ষেত্রটিতে তাই রোবটকে যেসব বৈশিষ্ট্য দেওয়ার চেষ্টা করা হয় সেগুলো হলোঃ

  • দৃষ্টিশক্তি বা ভিজ্যুয়াল পারসেপশন (Visual Perception)
  • স্পর্শ বা স্পর্শনেন্দ্রিয়গ্রাহ্য সক্ষমতা (Tactile Capabilities)
  • নিয়ন্ত্রণ ও ম্যানিপুলেশনের ক্ষেত্রে দক্ষতা বা নিপুণতা (Dexterity)
  • যেকোন স্থানে দৈহিকভাবে নড়াচড়া ক্ষমতা বা লোকোমোশন (Locomotion)
  • কোনো একটি গন্তব্যে কারও যাবার পথকে যথাযথভাবে খুঁজে বের করার বুদ্ধিমত্তা বা নেভিগেশন (Navigation)

কম্পিউটার এইডেড ম্যানুফেকচারিং (ক্যাম) এ রোবোটিক্সকে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করা যায়।

নিম্ন তাপমাত্রায় অসুস্থ টিস্যুর জীবাণু ধ্বংস করা যায়— ব্যাখ্যা কর।

উত্তরঃ চিকিৎসা পদ্ধতির উন্নতির কারণে বর্তমানে নিম্ন তাপমাত্রায় অসুস্থ টিস্যুর জীবাণু ধ্বংস করা হয়। এ পদ্ধতিকে বলা হয় ক্রায়োসার্জারি। অতি নিম্ন তাপমাত্রায় বরফ স্ফটিক ত্বকের অসুস্থ কোষকে ধ্বংস করে রক্ত সঞ্চালন ঠিক করে। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ব্যবস্থায় ক্রায়োপ্রব ব্যবহার করে বর্তমান সময়ে নিখুঁতভাবে ক্রায়োসার্জারি করা হয়।

“আজকাল ঘরে বসে কেনাকাটা অধিকতর সুবিধাজনক”— ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ ইন্টারনেটের মাধ্যমে পণ্য ক্রয় ও বিক্রয় করার পদ্ধতিকে ই-কমার্স বলা হয়। ই-কমার্সের কারণে বর্তমানে ঘরে বসেই পণ্য ক্রয় ও বিক্রয় করা যায়। ই-কমার্স সাইটগুলোতে পণ্যের বিবরণ ও মূল্য দেয়া থাকে। যে কেউ ঘরে বসেই পণ্য অর্ডার করতে পারে এবং ক্রেডিট কার্ড অথবা ক্যাশ অন ডেলিভারি (COD) পদ্ধতিতে পণ্য ক্রয় করতে পারে।

বায়োমেট্রিক্স একটি আচরণিক বৈশিষ্ট্য নির্ভর প্রযুক্তি ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ বায়োমেট্রিক্স হচ্ছে এক ধরনের কৌশল বা প্রযুক্তি যার মাধ্যমে মানুষের শারীরিক কাঠামো, আচার-আচরণ, বৈশিষ্ট্য, গুণাগুণ, ব্যক্তিত্ব প্রভৃতি দ্বারা নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে চিহ্নিত বা শনাক্তকরণ করা যায়। সংজ্ঞা থেকে দেখা যায় বায়োমেট্রিক্স প্রযুক্তিটি একান্তই শারীরিক কাঠামো ও আচার-আচরণ, বৈশিষ্ট্য ও গুণাবলি কেন্দ্রিক। সুতরাং এটি হলো একটি আচরণিক নির্ভর প্রযুক্তি।

“বৈদেশিক আয়ের জন্য এখন আর বিদেশে যাওয়ার দরকার নেই”- ব্যাখ্যা করো।

উত্তরঃ আউটসোর্সিং এমন এক ব্যবস্থা যার মাধ্যমে ঘরে বসেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিশ্বের যেকোনো দেশের কাজ কর্ম করা যায়। ই-পেমেন্ট এর মাধ্যমে এ ক্ষেত্রে মজুরি গ্রহণ করা হয়। এভাবে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে ঘরে বসেই বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা যায়।

বাস্তব জীবনে জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এর ভূমিকা লিখ।

উত্তরঃ বাস্তব জীবনে জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এর ভূমিকা নিচে দেওয়া হলোঃ

 

  • বিভিন্ন ধরনের ব্যাকটেরিয়া ও অণুজীব থেকে তৈরি হচ্ছে জীবন রক্ষাকারী ওষুধ।
  • কৃষিবিজ্ঞানীরা অধিক ফলনশীল উন্নত মানের খাদ্যদ্রব্য (ধান, মটর, শিম ইত্যাদি) উৎপাদন করছে।
  • নানা ধরনের ক্ষতিকর ও বিষাক্ত দূষণ পদার্থগুলো নষ্ট করে ফেলা যাচ্ছে।
  • ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে অপরাধকারী শনাক্তকরণ এবং সন্তানের পিতৃত্ব বা মাতৃত্ব নির্ণয় করা যায়।
  • কয়লা গ্যাস খনিতে মিথেন মুক্ত করার কাজে, আকরিক থেকে ধাতব পদার্থ যেমন- সোনা, ইউরেনিয়াম, তামা ইত্যাদি আহরণে, বন ধ্বংসকারী পোকা দমনে, আলু ও টমেটো ইত্যাদির পচনরোধে ব্যবহার করা হয়।
  • টিস্যুকালচার পদ্ধতিতে পাতা থেকে গাছ তৈরি অথবা প্রাণীদেহের বিশেষ কোষগুচ্ছ থেকে কোনো বিশেষ অঙ্গ তৈরির কাজে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়।
Rate this post
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.

Leave a Comment