পড়াশোনা
1 min read

দ্বিতীয় অধ্যায় : কৃষি প্রযুক্তি, অষ্টম শ্রেণির কৃষিশিক্ষা প্রশ্ন ও উত্তর

ধান গাছের বাদামি দাগ রোগ কী ধরনের?

উত্তর : ছত্রাকজনিত।

ইউরিয়া সারে উদ্ভিদের কোন পুষ্টি উপাদান বিদ্যমান থাকে?

উত্তর : নাইট্রোজেন।

শূন্য চাষ কাকে বলে?

উত্তর : বিনা চাষে জমিতে ফসল রোপণ করাকে শূন্য চাষ বলে।

ফসলবিন্যাস কি?

উত্তর : ফসলবিন্যাস হচ্ছে কৃষক সারা বছর বা ১২ মাস তার জমিতে কী কী ফসল ফলাবেন তার একটি পরিকল্পনা করা।

গুটি ইউরিয়া কি?

উত্তর : গুটি ইউরিয়া হলো নাইট্রোজেন সংবলিত রাসায়নিক সার যা দেখতে ন্যাপথালিনের মতো এবং গুড়া বা দানাদার ইউরিয়া থেকে ব্রিকোয়েট মেশিনের সাহায্যে তৈরি করা হয়।

সাথি ফসল কি?

উত্তর : সাথি ফসল হলো মূল ফসলের সাথে চাষ করা অন্য একটি ফসল যা ভিন্ন সময় পাকে, মাটির বিভিন্ন স্তর থেকে খাদ্য আহরণ করে ও বৃদ্ধির ধরণ ভিন্ন।

মৃত পশুর সৎকারে কোন রাসায়নিক দ্রব ব্যবহার করা হয়?

উত্তর : মৃত পশুর সৎকারে ডিডিটি ব্যবহার করা হয়।

ফসলের রোগ কী?

উত্তরঃ ফসলের বৃদ্ধি ব্যাহত হওয়া, দুর্বল ও লিকলিকে হওয়া, ফুল বা ফল ঝরে যাওয়াই হলো ফসলের রোগ।

গবাদিপশুর বাদলা রোগ কীভাবে ছড়ায়?

উত্তরঃ গবাদিপশুর বাদলা রোগ ক্ষতস্থান ও মলের মাধ্যমে ছড়ায়।

মোজাইক কি?

উত্তর : মোজাইক হলো ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট এবং ফসলের পাতায় গাঢ় ও হালকা হলুদ-সবুজ রংয়ের ছোপবিশিষ্ট রোগ।

ঢলে পড়া রোগ কী?

উত্তর : ফসলের কাণ্ড ও শিকড় রোগে আক্রান্ত হলে ফসলের শাখাগুলোর মাটির দিকে ঝুলে পড়াকেই ঢলে পড়া রোগ বলে।

মাঠ ফসলের বহুমুখীকরণ বলতে কী বোঝ?

উত্তর : মাঠ ফসলের বহুমুখীকরণ বলতে এক ধরনের ফসল বা একক প্রযুক্তির ওপর নির্ভর না করে ফসল বিন্যাস, মিশ্র ও সাথি ফসলের চাষ ও খামার যান্ত্রিকীকরণকে বোঝায়। ফসলের বহুমুখীকরণের মাধ্যমে উন্নত ফসলের জাত ও কলাকৌশলের সংযোগ ঘটিয়ে বীজের সাশ্রয় করা হয় এবং উৎপাদন খরচ কমানো হয়।

রোগাক্রান্ত গাছ পুড়িয়ে ফেলতে হয় কেন? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : এক গাছ রোগাক্রান্ত হলে অন্য গাছেও রোগ ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং শেষে পুরো ক্ষেতে ছড়িয়ে পড়ে সমস্ত ফসল নষ্ট হতে পারে। তাই রোগাক্রান্ত গাছ পুড়িয়ে বা মাটিতে পুঁতে ফেলা উচিত।

মৃত মাছ কীভাবে সৎকার করা হয়?

উত্তর : মাছ মারা গেলে সঠিক পদ্ধতিতে মাছ সৎকারের ব্যবস্থা করা উচিত। পুকুর হতে মৃত মাছগুলো জাল টেনে সংগ্রহ করতে হয়। অতঃপর পুকুর হতে দূরে যেখান থেকে বৃষ্টির পানি গড়িয়ে পুকুরে প্রবেশ করবে না সেখানে তিনফুট গভীর এবং মাছের সংখ্যানুযায়ী প্রশস্ত গর্ত করতে হবে। গর্তে মৃত মাছ নিক্ষেপ করে এর ওপর ব্লিচিং পাউডার ছিটাতে হবে। অতঃপর মাটি চাপা দিয়ে গর্ত ভরাট করতে হবে।

Rate this post