International

কূটনীতি কি? কিছু গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক পরিভাষা

1 min read
কোন দেশ বা আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে নিজ দেশের যাবতীয় স্বার্থ সংরক্ষণ এবং অক্ষুন্ন রাখার জন্য কূটনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তার প্রধান কাজই হচ্ছে উপস্থাপনার মাধ্যমে পারস্পরিক বন্ধুত্বমূলক সম্পর্কের উন্নয়ন ও আনুষঙ্গিক তথ্যাদি তুলে ধরেন। তারা নিজ দেশ বা রাষ্ট্রের প্রশাসনিক কার্যাবলী সমূহ তুলে ধরেন। কিন্তু তারা কোন রাজনৈতিক কার্যাবলী সম্পাদন করেন না।
সর্বপ্রথম কূটনৈতিক বিষয়ের পরিভাষা নির্ধারণ করা হয় ১৯৬১ সালের ভিয়েনা সম্মেলনে। সেখানে অ্যাম্বাসেডর, মিনিস্টার, এবং চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্সকে কূটনৈতিক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিছু গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক পরিভাষা সম্পর্কে নিম্মে আলোচনা করা হল,

গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক পরিভাষা

পিং পং ডিপ্লোমেসি বা Table Tennis Diplomacy

১৯৭১ সালে দীর্ঘদিনের শত্রুতা সম্পন্ন দুই দেশ চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার সম্পর্কের উন্নতির জন্য পিং পং কূটনীতি (Ping Pong Diplomacy) এর মাধ্যমে মার্কিন টেবিল টেনিস দল চীন সফর করে। এই সফরের মধ্য দিয়ে দেশ দুটির দীর্ঘ দিনের বৈরী সম্পর্কের বরফ গলতে আরম্ভ করে এবং চীন জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ ও স্থায়ী প্রতিনিধি লাভ করে।
ডিপ্লোমেটিক ইলনেস
রাষ্ট্রীয় কোন সভা বা অনুষ্ঠানে অসুস্থতার অজুহাতে যোগদান না করাকে ডিপ্লোমেটিক ইলনেস বলে।
শ্বেতপত্র 
এটি মূলত সমকালীন অর্থনৈতিক বা সামাজিক গুরুত্বপূর্ন কোন বিষয়ে সরকারী নীতির লিখিত বিবৃতি । কোনো আইন পরিবর্তন করে নতুন বিল তৈরির আগে বা যেকোনো বিষয়ে আইন প্রণয়নেরেআগে জনমত যাচাইয়ের জন্য শ্বেপত্র প্রকাশ করা হয়। ইংল্যান্ডে শ্বেপত্রকে পার্লামেন্টারি পেপারস বলে।
রাষ্ট্রদূত
এক রাষ্ট্র বা দেশ কর্তৃক অন্য দেশে প্রেরিত সর্বোচ্চ শ্রেণীর কূটনৈতিকই রাষ্ট্রদূত।
হাইকমিশনার
সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ দেশসমূহ বা কমনওয়েলথভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের সর্বোচ্চ শ্রেণীর কূটনীতিকদের হাইকমিশনার বলা হয়।
অ্যাম্বাসেডর
মূলত জাতিসংঘভুক্ত রাষ্ট্রসমূহের সর্বোচ্চ কূটনৈতিক ব্যক্তিকে অ্যাম্বাসেডর বলে।
প্রোটোকল: আন্তর্জাতিক সভা-সমিতির কার্য বিবরণী সংবলীত দলিলকে প্রোটোকল বলে।
ভেটো কি
ভেটো এর অর্থ হচ্ছে এটা আমি মানি না। মূলত জাতিসংঘের স্থায়ী ৫ সদস্য রাষ্ট্র আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, চীন, রাশিয়া, এবং ফ্রান্সের আন্তর্জাতিক সিদ্ধান্তে ভেটো প্রদানের ক্ষমতা রয়েছে।
বাফার স্টেট
বিবাদমান দুই রাষ্ট্রের মধ্যবর্তী অবস্থানে থাকা নিরপেক্ষ, স্বাধীন ও কম শক্তিসম্পন্ন রাষ্ট্রকে বাফার স্টেট বলে। যেমন বেলজিয়াম।
ডি ফ্যাকটো
কোন নতুন সরকার বা রাষ্ট্রকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেওয়ার পূর্বে যে কোন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক তৈরি জন্য বিধিবদ্ধ আইনকে ডি ফ্যাকটো বলে।
ডি জুরি
আইনগত কোন সরকার বা রাষ্ট্রকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির প্রক্রিয়া।
চার্জ দ্য অ্যাফেয়ারস: রাষ্ট্রদূতের অনুপস্থিতিতে নিযুক্ত অস্থায়ী প্রধান।
ম্যানিফেস্টো
মূলত বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলো তাদের নির্বাচনের পূর্বে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য যেসব জনসন্মুখে প্রকাশ করে সেটিই ম্যানিফেস্টো
Persona-non-grata
কোন দেশ তার দেশে অন্য কোন দেশের কোন কূটনীতিক ব্যক্তিকে কোন কারণ দর্শনো ছাড়াই অবাঞ্জিত ঘোষণা করতে পারে তখন সেই কূটনীতিককে Persona-non-grata বলে।
5/5 - (24 votes)
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.