পদার্থ বিজ্ঞান
1 min read

স্কেলার রাশি ও ভেক্টর রাশি– সংজ্ঞা, পার্থক্য ও উদাহরণ

ভৌত জগতে পরিমাপযোগ্য সকল কিছুকে রাশি বলে। কোন রাশি যখন পরিমাপ করা হয় তখন তার একটি মান থাকে। আবার কিছু রাশি পরিমাপ করতে মান এর সাথে দিকেরও প্রয়োজন হয়। এই আর্টিকেলে, আমরা স্কেলার ও ভেক্টর রাশি সংজ্ঞা, পার্থক্য এবং উদাহরণ নিয়ে আলোচনা করব।

স্কেলার রাশি কি?

যে সকল ভৌত রাশিকে শুধু মান দ্বারা সম্পূর্ণভাবে প্রকাশ করা যায়, দিকের প্রয়োজন হয়না, তাদেরকে স্কেলার রাশি (Scalar quantity) বলে। স্কেলার রাশির মান প্রকাশ করতে শুধু একটি সংখ্যা এবং একক ব্যবহার হয়। যেমন, একটি টেবিলের দৈর্ঘ ২.৫ মিটার। এখানে দৈর্ঘের একক মিটার এবং টেবিলের দৈর্ঘ ২.৫ মিটার।

স্কেলার রাশির উদাহরণ

বিভিন্ন ধরনের স্কেলার রাশির মধ্যে রয়েছে, দৈর্ঘ, ভর, দ্রুতি, কাজ, ক্ষমতা, শক্তি, ঘনত্ব, তাপ, তাপমাত্রা, সময়, আয়তন, তরঙ্গদৈর্ঘ্য, কম্পাংক, বিস্তার, দীপনমাত্রা, দীপন ক্ষমতা, বিদ্যুৎ প্রবাহমাত্রা, রোধ, চার্জ, প্রতিসরাঙ্ক, স্ফুটনাঙ্ক, চৌম্বক বিভব, বৈদ্যুতিক বিভব, বিচ্যুতি ইত্যাদি।

ভেক্টর রাশি কি?

যে সকল ভৌত রাশিকে সম্পূর্ণরুপে প্রকাশের জন্য মান ও দিক উভয়ের প্রয়োজন হয়, তাদেরকে ভেক্টর রাশি (Vector quantity) বলে। যেমন, একটি গাড়ি ঘন্টায় ৩০ কিলোমিটার বেগে চলছে, এর অর্থ হচ্ছে গাড়িটি এক ঘন্টায় ৩০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করছে। কিন্তু গাড়িটি কোন দিকে চলছে তা বুঝতে হলে মানের সাথে দিকেরও প্রয়োজন হবে। এখন যদি আমরা বলি গাড়িটি পূর্ব দিকে ঘন্টায় ৩০ কিলোমিটার বেগে যাচ্ছে। তাহলে পুরোপুরি গাড়িটির প্রকৃত অবস্থা জানা যায়।

ভেক্টর রাশির উদাহরণ

সরণ, বেগ, ওজন, ভরবেগ, ত্বরণ, মন্দন, বল, বলের ঘাত, বলের ভ্রামক, চৌম্বক ভ্রামক, চৌম্বক দৈর্ঘ্য, চৌম্বক প্রাবাল্য, বৈদ্যূতিক প্রাবাল্য, পৃস্টটান, সান্দ্রতা, গুনাঙ্ক, অভিকর্ষজ ত্বরণ ইত্যাদি ভেক্টর রাশির উদাহরণ।

স্কেলার ও ভেক্টর রাশির মধ্যে পার্থক্য

স্কেলার রাশি ভেক্টর রাশি
১. যে রাশিকে সম্পূর্ণরূপে প্রকাশ করতে শুধু মান প্রয়োজন, তাকে স্কেলার রাশি বলে। যে রাশি প্রকাশ করতে মান ও দিক উভয়ই প্রয়োজন, তাকে ভেক্টর রাশি বলে।
২. স্কেলার রাশি প্রকাশে শুধু মান ও এককের প্রয়োজন হয়। ভেক্টর রাশির ক্ষেত্রে মান ও এককের সাথে দিকেরও প্রয়োজন হয়।
৩. দিক পরিবর্তন হলেও স্কেলার রাশির মানের কোনো পরিবর্তন হয় না। দিক পরিবর্তনের সাথে সাথে ভেক্টর রাশির মানেরও পরিবর্তন হয়।
৪. স্কেলার রাশির যোগ, বিয়োগ, গুণ ইত্যাদি বীজগণিতের নিয়মে হয়। ভেক্টর রাশির যোগ, বিয়োগ, গুণ ইত্যাদি সাধারণ বীজগণিতের নিয়মে হয় না, ভেক্টর বীজগণিতের নিয়মে হয়।
৫. দুটি স্কেলার রাশির যেকোন একটির মান শূন্য হলে এদের গুণফল শূন্য হয়। দুটি ভেক্টর রাশির কোনো একটির মান শূন্য না হলেও এদের ভেক্টর গুণফল শূন্য হতে পারে।
৬. দুটি স্কেলার রাশির গুণফলে সর্বদা একটি স্কেলার রাশি পাওয়া যায়। দুটি ভেক্টর রাশির গুণফল একটি ভেক্টর রাশি অথবা একটি স্কেলার রাশি হতে পারে।
৭. স্কেলার রাশির উদাহরণ হল – গতি, সময়, ভর, বৈদ্যুতিক চার্জ, আয়তন, তাপমাত্রা, মহাকর্ষ বল, ইত্যাদি। ভেক্টরের রাশির উদাহরণ হল – বেগ, বৈদ্যুতিক ক্ষেত্র, ত্বরণ, মেরুকরণ, বল, রৈখিক ভরবেগ ইত্যাদি।
5/5 - (9 votes)