সার্থক অঙ্ক ৯টি। যথা- ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ও ৯।

গণিত (Mathematics) বিষয়ের আরও প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন-১। সমীকরণ কাকে বলে?
উত্তরঃ কোনো অজ্ঞাত রাশি বা রাশিমালা যখন কোনো নির্দিষ্ট সংখ্যা বা মানের সমান লিখা হয় তখন তাকে সমীকরণ বলে। যেমন, x + y = 2, x3 + 2×2 + x + 2 = 0, x2 – 4 = 0 ইত্যাদি।

প্রশ্ন-২। চলক কাকে বলে?
উত্তরঃ গাণিতিক প্রক্রিয়ায় যে রাশির মান পরিবর্তিত হতে পারে তাকে চলক বলে।
যেহেতু চলক যে কোন মান গ্রহণ করতে পারে সেজন্য এটি কোন নির্দিষ্ট সংখ্যা দ্বারা নির্দেশ না করে প্রতীক দ্বারা নির্দেশ করা হয়। যেমন: X, Y, Z, P, Q ইত্যাদি।

প্রশ্ন-৩। বেগের লম্বাংশ কাকে বলে?
উত্তরঃ কোনো নির্দিষ্ট দিক বরাবর কোনো বেগের যতটুকু প্রভাব বা ছায়া থাকে, তাকে ঐ দিক বরাবর ঐ বেগের লম্বাংশ বলে।

প্রশ্ন-৪। ঘন জ্যামিতি কাকে বলে?
উত্তরঃ গণিত শাস্ত্রের যে শাখার সাহায্যে ঘনবস্তু এবং তল, রেখা ও বিন্দুর ধর্ম জানা যায়, তাকে ঘন জ্যামিতি (Solid geometry) বলে। কখনও কখনও একে জাগতিক জ্যামিতি বা ত্রিমাত্রিক জ্যামিতিও বলা হয়।

প্রশ্ন-৫। যোগ অংক কাকে বলে?
উত্তরঃ দুটি বা একাধিক অঙ্কের মোট পরিমাণ নির্ণয় করার পদ্ধতিকে যোগ বলে। আর সংখ্যা বা গাণিতিক আকারে উক্ত প্রক্রিয়া প্রকাশ করাকে যোগ অঙ্ক বলে।

প্রশ্ন-৬। হাইয়োরোগ্লিফিকস কাকে বলে?
উত্তরঃ প্রাচীন মিশরিয়রাদের সংখ্যা লিখন পদ্ধতিকে বলা হয় হাইয়োরোগ্লিফিকস (Hieroglyphics)।

প্রশ্ন-৭। কত সেরে ১ পঁশেরি?
উত্তরঃ ৫ সেরে ১ পশরী, পঁশেরি।

প্রশ্ন-৮। দেশীয় রীতিতে গণনা পদ্ধতি কয়টি ও কি কি?
উত্তরঃ দেশীয় রীতিতে গণনা পদ্ধতি আটটি। যথা- একক, দশক, শতক, হাজার, অযুত, লক্ষ, নিযুত ও কোটি।

প্রশ্ন-৯। ক্যালকুলাস শব্দটির আভিধানিক অর্থ কি?
উত্তরঃ ক্যালকুলাস শব্দটির আভিধানিক অর্থ নুড়ি।

প্রশ্ন-১০। স্বাভাবিক সংখ্যা কি?
উত্তরঃ স্বাভাবিক সংখ্যা হচ্ছে সকল ধনাত্মক পূর্ণসংখ্যা। সকল স্বাভাবিক সংখ্যার সেটকে N দ্বারা প্রকাশ করা হয়। অর্থাৎ N = {1, 2, 3,…..}। গণনার প্রয়োজনেই স্বাভাবিক সংখ্যা আবিষ্কৃত হয়, এ কারণে স্বাভাবিক সংখ্যাকে গণনাকারী সংখ্যাও বলা হয়।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x