পড়াশোনা

পানি দূষণ (Water pollution) কাকে বলে? পানি দূষণের কারণ, উৎস, প্রভাব ও প্রতিকার।

1 min read

পানিদূষণ কাকে বলে? (What is called Water Pollution in Bengali?)

পানির সাথে বিভিন্ন রোগজীবাণু, ময়লা-আবর্জনা বা বিষাক্ত পদার্থ মিশ্রিত হয়ে ব্যবহারের অনুপযুক্ত হয়ে পড়ে, একেই পানিদূষণ বলে। অর্থাৎ যে সকল প্রক্রিয়ায় পানি দূষিত হয় তাই পানিদূষণ প্ৰক্ৰিয়া।

পানি দূষণের কারণ (Causes of Water pollution)

পানি দূষণের কারণগুলো নিচে আলোচনা করা হলো :

মনুষ্য সৃষ্ট কারণ :

  • গৃহস্থালীর বর্জ্য পদার্থ পানিতে মিশে পানি দূষিত করতে পারে।
  • পানিতে গবাদি পশু-পাখি গোসল করালে।
  • জমিতে ব্যবহৃত রাসায়নিক সার ও কীটনাশক পানিতে মিশে পানিকে দূষিত করে।
  • পানিতে সাবান দ্বারা গোসল অথবা ডিটারজেন্ট দ্বারা কাপড় ধোয়ার কারণে পানি দূষিত হতে পারে।
  • কল-কারখানার বর্জ্য পদার্থ পানিতে মিশে গেলে।
  • তেলবাহী জাহাজের দুর্ঘটনার ফলে।

প্রাকৃতিক কারণ :

  • ভূমি ক্ষয়ের ফলে পানি দূষিত হতে পারে।
  • বন্যা অথবা জলাবদ্ধতার কারণে পানি দূষিত হতে পারে।
  • বদ্ধ পানিতে আগাছা জন্মালে অথবা গাছের পাতা পড়ে পঁচে পানি দূষিত হতে পারে।

বাংলাদেশে পানি দূষণের কারণ : বাংলাদেশে পানি দূষণের কারণগুলো হলো–
১। গৃহস্থালির বর্জ্য
২। পয়ঃনিষ্কাশন
৩। রাসায়নিক সার
৪। কীটনাশক
৫। শিল্প বর্জ্য
৬। তেল জাতীয় পদার্থ ইত্যাদি।

পানি দূষণের উৎস (Sources of Water pollution)

প্রাকৃতিক উৎসসমূহঃ জীবজন্তু ও গাছপালার মৃত্যুজনিত পদার্থ, আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে উদ্ভূত পদার্থ, পাহাড় ও ভূমির ক্ষয়ে পদার্থসমূহ পানিবাহিত হয়ে নদীতে এসে পড়ে এবং নদীর পানি দূষিত হয়।

কৃত্রিম উৎসসমূহঃ কলকারখানা, শিল্পঞ্চল থেকে নির্গত পদার্থ, মানুষের মলমূত্র, গৃহপালিত পশুর খাবার অবশেষ নদীর পানিতে মিশে ইহাকে দূষিত করে।

পানি দূষণের প্রভাব (Effects of Water pollution)

নদ-নদী, পুকুর, খাল-বিল ও ভূগর্ভস্থ উৎসের পানি দূষিত হলে তা উদ্ভিদ, প্রাণী ও মানুষের উপর নানারকম ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে, এমনকি কখনো কখনো তা মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। যেমন–

মানুষের উপর প্রভাব : টাইফয়েড, আমাশয়, কলেরা, জন্ডিস, হেপাটইটিস-বি, চর্মরোগ প্রভৃতি পানিবাহিত এইসব রোগের জীবাণু নানাভাবে পানিতে প্রবেশ করে; সেই পানিতে গোসল করলে, পান করলে, ঐ পানি দিয়ে খাবার রান্না করলে বা ধুলে অথবা যেকোনভাবে দূষিত পানির সংস্পর্শে এলে মানুষের দেহে এইসব জীবাণু সংক্রামিত হয়। এছাড়া ভারী ধাতু বা তেজস্ক্রিয় পদার্থ দ্বারা পানি দূষিত হলে তা মানুষের মস্তিস্কে বিকলাঙ্গতা, ক্যান্সারসহ অন্যান্য মারাত্মক রোগ সৃষ্টি করতে পারে।

জলজ উদ্ভিদ ও প্রাণীজগতের উপর প্রভাব : দূষিত পানি জলজ খাদ্য শৃঙ্খলের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে, যার ফলে ক্ষুদ্র প্লাঙ্কটন থেকে শুরু করে বিভিন্ন মাছ এবং জলজ প্রাণীর উপর নির্ভরশীল অন্যান্য প্রাণী ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

পানি দূষণের প্রতিকার (Solutions of Water pollution)

  • পানি বিশুদ্ধকরণ। যেমন : পরিশ্রাবণ, ক্লোরিনেশন, স্ফুটন, পাতন ও হ্যালোজেন ট্যাবলেট ইত্যাদি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অবিশুদ্ধ পানিকে বিশুদ্ধকরণ।
  • পানি ফুটিয়ে পান করা।
  • পানি দূষণের কারণে কোনো রোগ হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া।

 

শেষ কথা:
আশা করি আপনাদের এই আর্টিকেলটি পছন্দ হয়েছে। আমি সর্বদা চেষ্টা করি যেন আপনারা সঠিক তথ্যটি খুজে পান। যদি আপনাদের এই “পানি দূষণ (Water pollution) কাকে বলে? পানি দূষণের কারণ, উৎস, প্রভাব ও প্রতিকার।” আর্টিকেলটি পছন্দ হয়ে থাকলে, তাহলে অবশ্যই ৫ স্টার রেটিং দিবেন।

5/5 - (70 votes)
Mithu Khan

I am a blogger and educator with a passion for sharing knowledge and insights with others. I am currently studying for my honors degree in mathematics at Govt. Edward College, Pabna.