ভূস্থির কক্ষপথে স্থাপিত কৃত্রিম উপগ্রহ পৃথিবীর আহ্নিক গতির সমান গতিতে পৃথিবীকে আবর্তন করার কারণে পৃথিবী ও কৃত্রিম উপগ্রহ উভয়ের পরিপ্রেক্ষিতে উভয়কে স্থির বলে মনে হয়। একে ভূস্থির উপগ্রহ বলে।

ভূ-স্থির উপগ্রহ মানুষের তৈরি কৃত্রিম উপগ্রহ। এটি প্রায় ২২,০০০ মাইল উচ্চতায় পৃথিবীর কক্ষপথে স্থাপন করা হয়। অন্যান্য উপগ্রহের মতো এটি সচল নয়। এটি সবসময় স্থির থাকে। তাই একে ভূ-স্থির উপগ্রহ বলে।

ভূ-স্থির উপগ্রহ কী কাজে ব্যবহৃত হয়?
ভূ-স্থির উপগ্রহ পৃথিবীর কম্পন, চাপ ও তাপ সম্পর্কীয় তথ্য পৃথিবীতে পাঠিয়ে থাকে এবং এসব তথ্যের বিশ্লেষণের মাধ্যমে ভূ-স্থির উপগ্রহ ভূমিকম্প ও আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের পূর্বাভাস প্রদান করে থাকে। অর্থাৎ আবহাওয়া তথ্য পেতে বিশেষ সহায়তা করে ভূ-স্থির উপগ্রহ। এছাড়াও এ উপগ্রহের মাধ্যমে বিশ্বের টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরস্পরের খুব কাছাকাছি এসেছে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x