H2SO3 ও HNO3 এর মধ্যে HNO3 অধিক অম্লীয়। কারণ আমরা জানি যে এসিডের কেন্দ্রীয় পরমাণুর জারণ মান যত বেশি সেই এসিড তত বেশি অম্লীয়। এখানে H2SO3 এর কেন্দ্রীয় পরমাণু S এর জারণ মান +4। আবার HNO3 এর কেন্দ্রীয় পরমাণু N এর জারণ মান +5। যেহেতু কেন্দ্রীয় পরমাণু হিসেবে সালফারের তুলনায় নাইট্রোজেনের জারণ মান বেশি। সুতরাং H2SO3 ও HNO3 এর মধ্যে HNO3 অধিকতর অম্লীয়।

রসায়ন (Chemistry) বিষয়ের আরও প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন-১। পানি কী? পানির রাসায়নিক সংকেত কী?

উত্তরঃ পানি হল হাইড্রোজেন ও অক্সিজেন অণুর সমন্বয়ে গঠিত একটি যৌগিক পদার্থ। পানির রাসায়নিক সংকেত হল H2O। এটি একটি অজৈব, স্বচ্ছ, স্বাদহীন, গন্ধহীন এবং প্রায় বর্ণহীন এক রাসায়নিক পদার্থ।

প্রশ্ন-২। পারমাণবিক ভরের সংজ্ঞা কি?

উত্তরঃ কোনো পরমাণুর প্রোটন ও নিউট্রনের সম্মিলিত ভরকে এর পারমাণবিক ভর বলে।

প্রশ্ন-৩। তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কাকে বলে?

উত্তরঃ মৌলের যে সমস্ত আইসোটোপ বিভিন্ন ধরনের রশ্মি (α, β, γ) বিকিরণ করে অন্য মৌলের পরমাণুতে পরিণত হয় তাদেরকে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ বলে। যেমন: 99TC60CO ইত্যাদি।

প্রশ্ন-৪। লেসাইন পরীক্ষা কি?

উত্তরঃ জৈব যৌগে N, S, ও X মৌল সনাক্তকরণের জন্য সোডিয়াম ধাতুর সাথে জৈব যৌগকে গলিয়ে মূল দ্রবণ প্রস্তুতির পরীক্ষা হলো লেসাইন পরীক্ষা (Lassaigne Test)।

প্রশ্ন-৫। সেল কাকে বলে?

উত্তরঃ যে যন্ত্রের সাহায্যে রাসায়নিক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তর করা যায়, তাকে সেল বলে। একে তড়িৎ কোষও বলা হয়।

প্রশ্ন-৬। নাইট্রোজেন চক্র কাকে বলে?

উত্তরঃ নাইট্রোজেন বায়ু থেকে মাটিতে, মাটি থেকে উদ্ভিদে, উদ্ভিদ থেকে জীবদেহে এবং জীবদেহ থেকে পুনরায় মাটি হয়ে বায়ুতে ফিরে আসার চক্রকে নাইট্রোজেন চক্র বলে।

প্রশ্ন-৭। বায়োস্ফিয়ার বা জীবমণ্ডল কি?

উত্তরঃ বায়োস্ফিয়ার বা জীবমণ্ডল হলো জীবের বসবাস করার অঞ্চল। অর্থাৎ সমুদ্রের তলদেশ থেকে শুরু করে বায়ুমণ্ডলের উচ্চস্তর পর্যন্ত জীবের বসবাস করার অঞ্চলকে বায়োস্ফিয়ার বা জীবমণ্ডল।

প্রশ্ন-৮। ইউট্রোফিকেশন (Eutrophication) কি?

উত্তরঃ ইউট্রোফিকেশন হলো পানির এক প্রকারের দূষণ। যে পদ্ধতিতে হ্রদের তলদেশে জৈব পদার্থ ক্রমাগত জমা হওয়ার ফলে হ্রদ ভরাট হয় তাকে ইউট্রোফিকেশন বলে।

প্রশ্ন-৯। পুকুরে চুন প্রয়োগ করতে হয় কেন?

উত্তরঃ পুকুরে চুন প্রয়োগ করতে হয়। কারণ, চুন মাটি ও পানি জীবাণুমুক্ত করে ও উর্বরতা বৃদ্ধি করে। পানির ঘোলাটে অবস্থা দূর করে এবং তলদেশের বিষাক্ত গ্যাস দূর করে।

প্রশ্ন-১০। অরবিট কাকে বলে?

উত্তরঃ কোনাে পরমাণুর নিউক্লিয়াসের চতুর্দিকে যে সুনির্দিষ্ট বৃত্তাকার পথে ইলেকট্রনগুলাে আবর্তন করে তাকেই অরবিট বলে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x