পৃথিবীতে কত ভাগ পানি আছে: পৃথিবী একটি পানির আধার, মহাবিশ্বে আর কোনো জায়গায় এখন পর্যন্ত পানির অস্তিত্ব জানা যায়নি। তবে প্রশ্ন, ঠিক কতটা পানি আমাদের গ্রহের ভেতর এবং উপরে রয়েছে? পৃথিবীর উপরিভাগের প্রায় ৭১ শতাংশ পানি দিয়ে ঢাকা ও বাকি ২৯ শতাংশ স্থলভাগ। এখানে একটা বিশাল কনফিউশন আছে। সবার ধারণা, পৃথিবীর চার ভাগের তিন ভাগ পানি বাকি এক ভাগ স্থল। এ কথাটায় সামান্য ভুল আছে! কথাটা হবে এমন যে ‘পৃথিবীর উপরিভাগ বা পৃষ্ঠের তিন ভাগ পানি আর এক ভাগ স্থল।’ আর পৃথিবীর সব পানির প্রায় ৯৯.৫ শতাংশ ধারণ করে সমুদ্রগুলো। বাকিটুকু পুকুর, নদীনালা, খালবিল, যা কিছু আছে সব কিছুর।

একটি বুদবুদের মধ্যে পৃথিবীর সব পানিকে চিন্তা করা যাক এবার। চিত্রটি তিনটি মাত্রা দেখানোর চেষ্টা করে, তাই প্রতিটি গোলক ‘ভলিউম’ উপস্থাপন করে। পৃথিবীর অভ্যন্তরে এবং তার উপরে সব পানির প্রতিনিধিত্ব করে বৃহত্তম গোলকের আয়তন প্রায় ৩৩২৫০০০০০ ঘন মাইল বা ১৩৮৬০০০০০০ ঘন কিলোমিটার এবং প্রায় ৮৬০ মাইল বা প্রায় এক হাজার ৩৮৫ কিলোমিটার এই গোলকের ব্যাস।

পৃথিবীতে কত পানি তা কয়েকটি সংখ্যা দিয়েও অনুভব করা যায়। ১. যদি পৃথিবীর সব পানি (মহাসাগর, আইসিকিপস ও হিমবাহ, হ্রদ, নদী, ভূগর্ভের পানি এবং বায়ুমণ্ডলের পানিকে) একটি গোলকের মধ্যে রাখে, তবে সেই পানির বলটির ব্যাস হবে প্রায় ৮৬০ মাইল আরো কিছুটা বেশি। সল্টলেক সিটি, ইউটা থেকে টোপেকা, কানসাসের মধ্যবর্তী দূরত্বের চেয়ে সব পানির পরিমাণ প্রায় ৩৩২.৫ মিলিয়ন ঘন মাইল। এক ঘন মাইল পানির সমান পরিমাণ ১.১ এরও বেশি ট্রিলিয়ন গ্যালন। এক ঘন কিলোমিটার পানির পরিমাণ প্রায় ২৬৪ বিলিয়ন গ্যালন। ২. প্রায় ৩১০০ ঘন মাইল পানি, বেশির ভাগ জলীয় বাষ্পের আকারে, যেকোনো সময় বায়ুমণ্ডলে থাকে। যদি এটি একবারে বৃষ্টিপাতের মতো পড়ে যায় তবে পুরো পৃথিবীর ১ ইঞ্চি পরিমাণ পানি দিয়ে ঢেকে যেত। ৩. চার ঘন মাইল সমপরিমাণ পানি পুরো আমেরিকাজুড়ে এক দিনে ব্যবহার করা হয়। ৪. প্রতিদিন ২৮০ ঘন মাইল পানি বাষ্পীভবন বা বায়ুমণ্ডলে স্থানান্তরিত হয়।

৫. পৃথিবীর সব পানি যদি যুক্তরাষ্ট্রে যুক্ত করা হয়, তবে তা জমিটি প্রায় ১০৭ মাইল পর্যন্ত ঢেকে ফেলবে। ৬. পৃথিবীর মিষ্টি পানির মধ্যে নদী ও হ্রদের মধ্যে যতটা পাওয়া যায় তার চেয়ে অনেক বেশি মাটিতে জমে থাকে। প্রায় ২০০০০০০ ঘন মাইল মিঠাপানি পৃথিবীতে জমা থাকে বেশির ভাগ পৃষ্ঠের আধা মাইলের মধ্যে। ইন্টারনেট।

 

পৃথিবীর কত ভাগ স্থল ও কত ভাগ পানি?

পৃথিবীর ১০০ ভাগের ৭১.১১১১ ভাগ জল ও ২৮.৮৮৮৯ ভাগ স্থল। সূত্রঃ পবিত্র কুরআন।

ব‍্যাখ‍্যাঃ পবিত্র কুরআনে জল শব্দটি এসেছে ৩২ বার আর স্থল শব্দটি এসেছে ১৩ বার।

জল=৩২বার 

স্থল=১৩বার 

(৩২+১৩=৪৫) 

(৩২÷৪৫)×১০০=৭১.১১১১) 

(১৩÷৪৫)×১০০=২৮.৮৮৮৯)

অর্থাত্‍ পৃথিবীর ১০০ ভাগের ৭১.১১১১ ভাগ জল ও ২৮.৮৮৮৯ ভাগ স্থল।

 

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x