বাংলাদেশ বিমান বাহিনী যাকে সংক্ষেপে BAF অর্থাৎ Bangladesh Air Force বলা হয়।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর আকাশ যুদ্ধ শাখা। বিমান বাহিনীর প্রাথমিক দায়িত্ব হচ্ছে বাংলাদেশের আকাশ সীমার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা। পাশাপাশি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে বিমান সহায়তা প্রদান করাও বিমান বাহিনীর অন্যতম দায়িত্ব।

ঢাকার কুর্মিটোলাতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সদর দপ্তর অবস্থিত। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রধান হচ্ছেন একজন চার তারকা এয়ার চিফ মার্শাল পদমর্যাদার কর্মকর্তা।

বিমান বাহিনীর নীতি বাক্য হচ্ছে “বাংলার আকাশ রাখিব মুক্ত” যা ইংরেজীতে “Free shall we keep the sky of Bangladesh”
বাংলাদেশ বিমান বাহিনী বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা পরিচালিত হয়। বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ছাড়াও বাংলাদেশ নৌবাহিনী (Bangladesh NAVY), বাংলাদেশ সেনাবাহিনী (Bangladesh Army) বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা পরিচালিত হয়। যার দ্বায়িত্বে বাংলাদেশের গণপ্রজাতন্ত্রি সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী (BAF)- এর কাজঃ

১। বাংলাদেশ বিমান বাহিনী মূলত আকাশ প্রতিরক্ষার কাজে নিয়োজিত থাকে।
২। বাংলাদেশ বিমান বাহিনী বাংলাদেশের আকাশ সীমার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করে থাকে।
৩। বাংলাদেশ বিমান বাহিনী, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে বিমান সহায়তা প্রদান করে থাকে।
৪। আদর্শ, সাবলম্বী ও সুশিক্ষিত জাতি তথা সমাজ প্রতিষ্ঠায় বিমান বাহিনী প্রতিনীয়ত অবদান রেখে চলেছে।
৫। যুদ্ধ কালীন সময় বাংলাদেশ বিমান বাহিনী আকাশ যোগে প্রতিরোধ গড়ে তোলায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর মূখ্য কাজ।

পদক্রমের মর্যাদাঃ

অফিসারদের পদবিসমূহঃ
নিম্নক্রম অনুসারে:

১। এয়ার চিফ মার্শাল
২। এয়ার মার্শাল
৩। এয়ার ভাইস মার্শাল
৪। এয়ার কমোডোর
৫। গ্রুপ ক্যাপ্টেন
৬। উইং কমান্ডার
৭। স্কোয়াড্রন লীডার
৮। ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট
৯। ফ্লাইং অফিসার

বিমানসেনাদের পদবিসমূহঃ
নিম্নক্রম অনুসারে:

১। মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার
২। সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার
৩। ওয়ারেন্ট অফিসার
৪। সার্জেন্ট
৫। কর্পোর‍্যাল
৬। এলএসি (লীডিং এয়ারক্র্যাফটম্যান)
৭। এসি-১ (এয়ারক্র্যাফটম্যান-১)
৮। এসি-২ (এয়ারক্র্যাফটম্যান-২)

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী (BAF)- এর সিলেকশন পদ্ধতিঃ

বিমানসেনা পদে একজন চাকরি প্রত্যাশীকে ৫ টি ধাপ অতিক্রম করতে হয়।
১। সাধারণজ্ঞান+IQ
২। ইংরেজী
৩। পদারথবিজ্ঞান+গণিত+জীববিজ্ঞান
(এখানে বলে রাখা ভালো; জীববিজ্ঞান তাদের জন্য যারা মেডিক্যাল এসিস্টেন্ট পদে আবেদন করবে সুদু তাদের জন্য)
৪। মেডিক্যাল টেস্ট
৫। ভাইভা পরীক্ষা
এই ৫ টি ধাপ যারা অতিক্রম করতে পারবে তাদের জন্য সেই কাঙ্ক্ষিত চাকরিটি বরাদ্দ।

মানবন্টন

১। সাধারণজ্ঞান+IQ = ১০০
২। ইংরেজী = ৫০
৩। পদারথবিজ্ঞান+গণিত = ৫০ (টেকনিক্যাল) এবং পদারথবিজ্ঞান+গণিত+জীববিজ্ঞান = ৭৫ (মেডিক্যাল এসিস্টেন্ট)

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x