মশা মারার সুগন্ধী কয়েল তৈরি হয় নারকেল মালা বা ঐ জাতীয় সেলুলোজ পাউডার, কিছু রাসায়নিক পদার্থ ও গাঁদ বা মোম দিয়ে। পাইরিক্সিন ও পাইথ্রয়েড তো থাকেই।
যা মানুষের শরীরে সামান্য হলেও বিষক্রিয়া ঘটায়। এছাড়া ঐ কয়েল জ্বললেই কার্বন মনোক্সাইড তৈরি হয় এবং অন্য এমন কিছু পদার্থ তৈরি হয় যা মানব শরীরের পক্ষে মোটেও ভালো নয়। বিশেষ করে বাচ্চাদের শরীরে এইসব কয়েলের প্রভাব বেশ ক্ষতিকর।
ঐ সব মশা মারা সুগন্ধী কয়েল থেকে কি ধরণের বিপত্তি আসতে পারে?
বহুক্ষণ ধরে ঐ সব কয়েল জ্বলা ঘরে নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস চালালে মাথা ধরা, বমি ভাব আসতে পারে। পেট্রোলিয়ামজাত পদার্থ শরীরে প্রবেশ করার জন্য। কারণ অনেক সময়ই ঐ সব কয়েলের সুগন্ধ বাড়াবার জন্য সলভেণ্ট হিসেবে সুগন্ধযুক্ত পেট্রোলিয়ামজাত পদার্থ ব্যবহৃত হয়। এই সব পলিসাইক্লিক হাইড্রোকার্বন অনেক সময় ক্যান্সার এর কারণ হতে পারে। পাইরিফ্রয়েড থাকার ফলে এমনিতেই চোখ ও গলা জ্বালা করতে পারে।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x