যে পদার্থকে রাসায়নিক উপায়ে বিশ্লেষণ করলে সেই পদার্থ ব্যতিত অন্য কোনো পদার্থ পাওয়া যায় না তাকে মৌলিক পদার্থ বা মৌল বলে।

যেমন: হাইড্রোজেন, অক্সিজেন, সালফার ইত্যাদি।

২০১২সাল পর্যন্ত আবিষ্কৃত মৌলের সংখ্যা ১১৮ টি। এর মধ্যে আন্তর্জাতিক রসায়ন ও ফলিত রসাযন সংস্থা (International Union of Pure and Applied Chemistry) ১১৪ টিকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

মৌল নামের উৎপত্তি:

এই বিষয়ে ইতিহাসবিদদের মাঝে ঐক্য দেখা যায় না। কারণ বর্তমান কালে মৌল নামটি যে অর্থে ব্যবহৃত হয় তার পরিপেক্ষিতে মৌল নামটি প্রচীন কালে ব্যাপক অর্থে ব্যবহৃত হত।এটি অনেকটা দার্শনিকদের মতবাদের মতো ছিলো।

এতো সবের মধ্যে যে মতবাদটি বেশ গ্রহণযোগ্য তা হচ্ছে–

element(মৌল) শব্দটি ল্যাটিন বর্ণমালা l, m, n এবং t থেকে এসেছে।এগুলো উচ্চারিত হয় যথাক্রমে এভাবে- el, em, en, te(ল্যাটিনে এটি elementum)

সম্ভবত এভাবেই element শব্দটি গঠিত হয়েছে বলে বিজ্ঞানীগণ মনে করেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x